দুই অনুষ্ঠানে বিচারক নাদিয়া আহমেদ

নাদিয়া আহমেদ দুটি জাতীয় পর্যায়ের অনুষ্ঠানের বিচারক হিসেবে কাজ করছেন। ছোটবেলায় জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় নাদিয়া আহমেদ একবার মনিপুরী নৃত্যে প্রথম হয়েছিলেন আরেকবার সাধারণ নৃত্যে দ্বিতীয় হয়েছিলেন। যেই প্ল্যাটফর্ম তাকে আজকের নাদিয়া আহমেদ’-এ পরিণত করেছেন সেই প্ল্যাটফর্মেরই বিচারক হিসেবে কাজ করেছেন নাদিয়া আহমেদ। সম্প্রতি শেষ হওয়া ‘জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা’র বিচারক হিসেবে গুরু দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। আবার এরইমধ্যে আরটিভির আয়োজনে শুরু হওয়া ‘ক্যাম্পাস স্টার’রও বিচারক হিসেবে কাজ শুরু করেছেন। ‘ক্যাম্পাস স্টার’র প্রাথমির্ক বাছাই পর্ব এরই মধ্যে শুরু হয়েছে বলে জানান নাদিয়া। এতে বিচারক হিসেবে তার সঙ্গে আরও আছেন সজল ও কনা। দুটি অনুষ্ঠানের বিচারক হওয়া প্রসঙ্গে নাদিয়া আহমেদ বলেন, ‘আমি যেই প্ল্যাটফর্ম থেকে উঠে এসেছি সেই প্ল্যাটফর্মেরই বিচারক হিসেবে কাজ করতে পেরে অনেক আনন্দিত, গর্বিত। আমি জানি কতটা কষ্ট করে আমাকে সেই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে আজকের এই পর্যায়ে উঠে আসতে হয়েছে। বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আমার একটি কথাই বারবার মনে হয়েছে, আর তা হলো বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করা খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আমাদের একটু ভুল বিচারের কারণে সত্যিকার অর্থেও মেধাবী কেউ বাদ পড়ে যেতে পারে। তাই বিচারকার্য খুব কঠিন দায়িত্ব। আমি আমার কাজে সবসময়ই শতভাগ সৎ থেকে দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করি। আমি আমার বাবা মায়ের আদর্শেই নিজেকে গড়ে তুলেছি। একজন আদর্শ শিল্পী হিসেবে, মানুষ হিসেবে গড়ে তুলেছি। যার ফলও আমি গেলো নির্বাচনে পেয়েছি।’

নাদিয়া গেল ২১ জুন অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচনে কার্যনির্বাহী সদস্য পদে সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন। এদিকে চ্যানেল আইতে নাদিয়ার উপস্থাপনায় ‘সুপার শেফ’ অনুষ্ঠানটি নিয়মিত প্রচার হচ্ছে। শিগগিরই তিনি মান্নান হীরা, ফরিদুল হাসান, আবু হায়াত মাহমুদের নির্দেশনায় ঈদ নাটকের কাজ করবেন।

বুধবার, ০৩ জুলাই ২০১৯ , ১৯ আষাঢ় ১৪২৫, ২৯ শাওয়াল ১৪৪০

দুই অনুষ্ঠানে বিচারক নাদিয়া আহমেদ

image

নাদিয়া আহমেদ দুটি জাতীয় পর্যায়ের অনুষ্ঠানের বিচারক হিসেবে কাজ করছেন। ছোটবেলায় জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় নাদিয়া আহমেদ একবার মনিপুরী নৃত্যে প্রথম হয়েছিলেন আরেকবার সাধারণ নৃত্যে দ্বিতীয় হয়েছিলেন। যেই প্ল্যাটফর্ম তাকে আজকের নাদিয়া আহমেদ’-এ পরিণত করেছেন সেই প্ল্যাটফর্মেরই বিচারক হিসেবে কাজ করেছেন নাদিয়া আহমেদ। সম্প্রতি শেষ হওয়া ‘জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা’র বিচারক হিসেবে গুরু দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। আবার এরইমধ্যে আরটিভির আয়োজনে শুরু হওয়া ‘ক্যাম্পাস স্টার’রও বিচারক হিসেবে কাজ শুরু করেছেন। ‘ক্যাম্পাস স্টার’র প্রাথমির্ক বাছাই পর্ব এরই মধ্যে শুরু হয়েছে বলে জানান নাদিয়া। এতে বিচারক হিসেবে তার সঙ্গে আরও আছেন সজল ও কনা। দুটি অনুষ্ঠানের বিচারক হওয়া প্রসঙ্গে নাদিয়া আহমেদ বলেন, ‘আমি যেই প্ল্যাটফর্ম থেকে উঠে এসেছি সেই প্ল্যাটফর্মেরই বিচারক হিসেবে কাজ করতে পেরে অনেক আনন্দিত, গর্বিত। আমি জানি কতটা কষ্ট করে আমাকে সেই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে আজকের এই পর্যায়ে উঠে আসতে হয়েছে। বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আমার একটি কথাই বারবার মনে হয়েছে, আর তা হলো বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করা খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আমাদের একটু ভুল বিচারের কারণে সত্যিকার অর্থেও মেধাবী কেউ বাদ পড়ে যেতে পারে। তাই বিচারকার্য খুব কঠিন দায়িত্ব। আমি আমার কাজে সবসময়ই শতভাগ সৎ থেকে দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করি। আমি আমার বাবা মায়ের আদর্শেই নিজেকে গড়ে তুলেছি। একজন আদর্শ শিল্পী হিসেবে, মানুষ হিসেবে গড়ে তুলেছি। যার ফলও আমি গেলো নির্বাচনে পেয়েছি।’

নাদিয়া গেল ২১ জুন অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচনে কার্যনির্বাহী সদস্য পদে সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন। এদিকে চ্যানেল আইতে নাদিয়ার উপস্থাপনায় ‘সুপার শেফ’ অনুষ্ঠানটি নিয়মিত প্রচার হচ্ছে। শিগগিরই তিনি মান্নান হীরা, ফরিদুল হাসান, আবু হায়াত মাহমুদের নির্দেশনায় ঈদ নাটকের কাজ করবেন।