বছরের শেষ দিনে মৃত্যু ২৮ নতুন শনাক্ত ১০১৪

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ৭ হাজার ৫৫৯ জনের মৃত্যু হলো। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ১৪ জন, এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ৫ লাখ ১৩ হাজার ৫১০ জন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৩৮৯ জন, এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৫৭ হাজার ৪৫৯ জন। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৩ হাজার ২০৪টি। অ্যান্টিজেন টেস্টসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৩ হাজার ২৫৪টি। এখন পর্যন্ত ৩২ লাখ ২৭ হাজার ৫৯৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন ৭ দশমিক ৬৫ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ১৫ দশমিক ৯১ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হর ৮৯ দশমিক ০৮ শতাংশ এবং মৃত্যুহার এক দশমিক ৪৭ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ২১ জন পুরুষ এবং ৭ জন নারী। এখন পর্যন্ত পুরুষ ৫ হাজার ৭৫৪ জন এবং নারী মৃত্যুবরণ করেছেন এক হাজার ৮০৫ জন। মারা যাওয়া ২৮ জনের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ ঊর্ধ্ব ১৮ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩ জন এবং ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২ জন রয়েছেন। বিভাগ বিশ্লেষণে দেখা যায়, মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২২ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৩ জন এবং বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহে একজন করে রয়েছেন। ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৬ জন এবং বাড়িতে মারা গেছেন ২ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর আরও জানায়, মৃতদের মধ্যে ১২ জন অন্যান্য দীর্ঘমেয়াদি রোগে আক্রান্ত ছিলেন। এদের মধ্যে ২ জন ডায়াবেটিস, একজন ডায়াবেটিস, কিডনি রোগ ও লিভারের রোগ, একজন হাইপারটেনশন ও হার্টের রোগ, ২ জন হাইপারটেনশন ও ডায়াবেটিস, একজন ডায়াবেটিস ও হার্টের রোগ, একজন শুধু কিডনি রোগ, একজন কিডনি ও হার্টের রোগ এবং তিনজন ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন ও হার্টের রোগে ভুগছিলেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ১১৭ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ১৮০ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৯৬ হাজার ৩২৯ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৮৪ হাজার ৮৭০ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১১ হাজার ৪৫৯ জন।

শুক্রবার, ০১ জানুয়ারী ২০২১ , ১৭ পৌষ ১৪২৭, ১৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪২

দেশে করোনায়

বছরের শেষ দিনে মৃত্যু ২৮ নতুন শনাক্ত ১০১৪

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ৭ হাজার ৫৫৯ জনের মৃত্যু হলো। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ১৪ জন, এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ৫ লাখ ১৩ হাজার ৫১০ জন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৩৮৯ জন, এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৫৭ হাজার ৪৫৯ জন। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৩ হাজার ২০৪টি। অ্যান্টিজেন টেস্টসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৩ হাজার ২৫৪টি। এখন পর্যন্ত ৩২ লাখ ২৭ হাজার ৫৯৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন ৭ দশমিক ৬৫ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ১৫ দশমিক ৯১ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হর ৮৯ দশমিক ০৮ শতাংশ এবং মৃত্যুহার এক দশমিক ৪৭ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ২১ জন পুরুষ এবং ৭ জন নারী। এখন পর্যন্ত পুরুষ ৫ হাজার ৭৫৪ জন এবং নারী মৃত্যুবরণ করেছেন এক হাজার ৮০৫ জন। মারা যাওয়া ২৮ জনের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ ঊর্ধ্ব ১৮ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩ জন এবং ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২ জন রয়েছেন। বিভাগ বিশ্লেষণে দেখা যায়, মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২২ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৩ জন এবং বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহে একজন করে রয়েছেন। ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৬ জন এবং বাড়িতে মারা গেছেন ২ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর আরও জানায়, মৃতদের মধ্যে ১২ জন অন্যান্য দীর্ঘমেয়াদি রোগে আক্রান্ত ছিলেন। এদের মধ্যে ২ জন ডায়াবেটিস, একজন ডায়াবেটিস, কিডনি রোগ ও লিভারের রোগ, একজন হাইপারটেনশন ও হার্টের রোগ, ২ জন হাইপারটেনশন ও ডায়াবেটিস, একজন ডায়াবেটিস ও হার্টের রোগ, একজন শুধু কিডনি রোগ, একজন কিডনি ও হার্টের রোগ এবং তিনজন ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন ও হার্টের রোগে ভুগছিলেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ১১৭ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ১৮০ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৯৬ হাজার ৩২৯ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৮৪ হাজার ৮৭০ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১১ হাজার ৪৫৯ জন।