বাসে ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টা : চালক গ্রেফতার

জেলার দিরাইয়ে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টার মূল আসামি বাসচালক শহীদ মিয়াকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি।

গতকাল ভোরে ঢাকা থেকে সুনামগঞ্জে পুরাতন বাসস্টেশন নামার পর তাকে আটক করা হয়। সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মিজানুর রহমান জানান, আটক শহীদকে সিআইডি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করবে। গত ২৭ ডিসেম্বর গভীর রাতে রশিদ আহমদ নামের চালকের সহকারীকে (হেলপার) ছাতকের বুরাইরগাঁও থেকে আটক করে সিলেটের পিবিআই।

সিলেটের লামাকাজী থেকে গত ২৬ ডিসেম্বর বিকেলে দিরাই যাচ্ছিলেন ওই কলেজছাত্রী। দিরাই পৌরসভার সুজানগর গ্রামে পাশে যাত্রীবাহী বাসের সবাই নেমে যাওয়ার পর একা হয়ে যান ওই ছাত্রী। এ সময় চালক ও তার সহকারী কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। ইজ্জত বাঁচাতে ওই ছাত্রী চলন্ত বাস থেকে লাফিয়ে পড়েন।

স্থানীয় বাসিন্দারা সড়কের পাশ থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দিরাই হাসপাতালে নেন। মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। পরে পুলিশ বাসটি জব্দ করে। রাতেই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বাসচালক শহীদ মিয়া ও তার সহকারী রশিদ আহমদকে আসামি করে দিরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। ওই ছাত্রী দিরাই ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী। তিনি বর্তমানে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। এ নিয়ে ঢাকার সংবাদ সম্মেলন হতে পারে।

রবিবার, ০৩ জানুয়ারী ২০২১ , ১৯ পৌষ ১৪২৭, ১৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪২

সুনামগঞ্জে

বাসে ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টা : চালক গ্রেফতার

জেলার দিরাইয়ে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টার মূল আসামি বাসচালক শহীদ মিয়াকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি।

গতকাল ভোরে ঢাকা থেকে সুনামগঞ্জে পুরাতন বাসস্টেশন নামার পর তাকে আটক করা হয়। সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মিজানুর রহমান জানান, আটক শহীদকে সিআইডি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করবে। গত ২৭ ডিসেম্বর গভীর রাতে রশিদ আহমদ নামের চালকের সহকারীকে (হেলপার) ছাতকের বুরাইরগাঁও থেকে আটক করে সিলেটের পিবিআই।

সিলেটের লামাকাজী থেকে গত ২৬ ডিসেম্বর বিকেলে দিরাই যাচ্ছিলেন ওই কলেজছাত্রী। দিরাই পৌরসভার সুজানগর গ্রামে পাশে যাত্রীবাহী বাসের সবাই নেমে যাওয়ার পর একা হয়ে যান ওই ছাত্রী। এ সময় চালক ও তার সহকারী কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। ইজ্জত বাঁচাতে ওই ছাত্রী চলন্ত বাস থেকে লাফিয়ে পড়েন।

স্থানীয় বাসিন্দারা সড়কের পাশ থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দিরাই হাসপাতালে নেন। মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। পরে পুলিশ বাসটি জব্দ করে। রাতেই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বাসচালক শহীদ মিয়া ও তার সহকারী রশিদ আহমদকে আসামি করে দিরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। ওই ছাত্রী দিরাই ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী। তিনি বর্তমানে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। এ নিয়ে ঢাকার সংবাদ সম্মেলন হতে পারে।