বৈশাখী টিভিতে সাত পর্বের

‘ভাইরাল ভিডিও’

বৈশাখী টিভি পর্দায় আসছে সাত পর্বের ধারাবাহিক নাটক ‘ভাইরাল ভিডিও’। প্রচার হবে আগামী ৯ জানুয়ারি থেকে প্রতিদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। নাটকের গল্প লিখেছেন পুরস্কারপ্রাপ্ত নাটক লেখক টিপু আলম মিলন। আকাশ রঞ্জনের চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় এ নাটকে অভিনয় করেছেন নাদিয়া, রাশেদ সীমান্ত, কচি খন্দকার, আমিরুল হক চৌধুরী, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, রোমানা স্বর্ণা, আমিন আজাদ প্রমুখ। লেখক টিপু আলম মিলন বলেন, ভালো কিছু করাকে ভালো চোখে দেখে না সমাজের বেশিরভাগ মানুষ। অন্যের দোষ ত্রুটি ধরা আর একশ্রেণীর মানুষকে অবহেলা করাই তাদের কাজ। মূলত শ্রেণী ভেদাভেদ আর অবহেলাকে ঘিরেই নাটকের কাহিনী। ভাইরাল ভিডিও একটি দৃশ্যমান ঘটনা মাত্র কিন্তু এর নেপথ্যে রয়েছে অনেক কাহিনী। নাটকটি দর্শকদের ভালো লাগবে বলে আমার বিশ্বাস। নাটকের গল্প নিয়ে বলতে গিয়ে কাহিনীকার টিপু আলম মিলন আরও বলেন, গ্রামের এক সহজ সরল যুবক জামাল। গ্রামের প্রতিবেশী বড় ভাই দারোয়ান ইদ্রিসের কাছে একটি চাকরির আশায় ঢাকায় আসে। ইদ্রিস যে বাড়ির দারোয়ান ওই বাড়ির এক অনুষ্ঠানে বিব্রতকর এক পরিস্থিতিতে জামাল নাজেহাল হয়। উচ্চপদস্থ ফ্ল্যাট মালিকদের আচরণে খুবই কষ্ট পায় সে। হঠাৎ করেই ফ্ল্যাট মালিকদের একটি ভিডিও চলে আসে জামালের হাতে। সে ভিডিও নিয়ে টেনশনে পড়ে যায় ফ্ল্যাট মালিকরা। নানা নাটকীয়তা আর সাসপেন্স নিয়ে এগিয়ে চলে নাটকের কাহিনী।

শুক্রবার, ০৮ জানুয়ারী ২০২১ , ২৪ পৌষ ১৪২৭, ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪২

বৈশাখী টিভিতে সাত পর্বের

‘ভাইরাল ভিডিও’

image

বৈশাখী টিভি পর্দায় আসছে সাত পর্বের ধারাবাহিক নাটক ‘ভাইরাল ভিডিও’। প্রচার হবে আগামী ৯ জানুয়ারি থেকে প্রতিদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। নাটকের গল্প লিখেছেন পুরস্কারপ্রাপ্ত নাটক লেখক টিপু আলম মিলন। আকাশ রঞ্জনের চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় এ নাটকে অভিনয় করেছেন নাদিয়া, রাশেদ সীমান্ত, কচি খন্দকার, আমিরুল হক চৌধুরী, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, রোমানা স্বর্ণা, আমিন আজাদ প্রমুখ। লেখক টিপু আলম মিলন বলেন, ভালো কিছু করাকে ভালো চোখে দেখে না সমাজের বেশিরভাগ মানুষ। অন্যের দোষ ত্রুটি ধরা আর একশ্রেণীর মানুষকে অবহেলা করাই তাদের কাজ। মূলত শ্রেণী ভেদাভেদ আর অবহেলাকে ঘিরেই নাটকের কাহিনী। ভাইরাল ভিডিও একটি দৃশ্যমান ঘটনা মাত্র কিন্তু এর নেপথ্যে রয়েছে অনেক কাহিনী। নাটকটি দর্শকদের ভালো লাগবে বলে আমার বিশ্বাস। নাটকের গল্প নিয়ে বলতে গিয়ে কাহিনীকার টিপু আলম মিলন আরও বলেন, গ্রামের এক সহজ সরল যুবক জামাল। গ্রামের প্রতিবেশী বড় ভাই দারোয়ান ইদ্রিসের কাছে একটি চাকরির আশায় ঢাকায় আসে। ইদ্রিস যে বাড়ির দারোয়ান ওই বাড়ির এক অনুষ্ঠানে বিব্রতকর এক পরিস্থিতিতে জামাল নাজেহাল হয়। উচ্চপদস্থ ফ্ল্যাট মালিকদের আচরণে খুবই কষ্ট পায় সে। হঠাৎ করেই ফ্ল্যাট মালিকদের একটি ভিডিও চলে আসে জামালের হাতে। সে ভিডিও নিয়ে টেনশনে পড়ে যায় ফ্ল্যাট মালিকরা। নানা নাটকীয়তা আর সাসপেন্স নিয়ে এগিয়ে চলে নাটকের কাহিনী।