সূচক কমলেও বেড়েছে লেনদেন

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বড় উত্থান হলেও গতকাল বড় পতনে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। এদিন উভয় শেয়ারবাজারের সব সূচক কমেছে। একই সঙ্গে কমেছে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর। তবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল প্রায় ২৪শ’ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫৮.৮৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৮৫০.৪৩ পয়েন্টে। ডিএসইর অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২৪.১৮ পয়েন্ট, ডিএসই-৩০ সূচক ২৭.৯৫ পয়েন্ট এবং সিডিএসইটি সূচক ২২.৪৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১২৯৯.৩১ পয়েন্টে, ২২০৮.৮২ পয়েন্টে এবং ১২৬৯.৫৮ পয়েন্টে। গতকাল ডিএসইতে ২ হাজার ৩৮৪ কোটি ৮৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়েছে যা আগের দিন থেকে ৩১৪ কোটি ২ লাখ টাকা বেশি। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৭০ কোটি ৮৫ লাখ টাকার। ডিএসইতে গতকাল ৩৫৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৭২টির বা ২০.০৫ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ২৩১টির বা ৬৪.৩৪ শতাংশের এবং ৫৬টির বা ১৫.৫৯ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অন্য শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৭৭.৫২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৪৭.৫২ পয়েন্টে। সিএসইতে গতকাল ২৭৯টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮১টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৬৮টির আর ৩০টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ১৫১ কোটি ৬৯ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ডিএসই’র ব্লক মার্কেটে ২০টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ২৫ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর ৫৩ লাখ ১৬ হাজার ৪৪৩টি শেয়ার ৩১ বার হাত বদল হয়েছে। এর মাধ্যমে কোম্পানিগুলোর ২৫ কোটি ৪৯ লাখ ৯৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ১৪ কোটি ২৬ লাখ ৭১ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে এসকে ট্রিমসের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২ কোটি ৩২ লাখ ৬৬ হাজার টাকার রবি আজিয়াটার এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ১ কোটি ৪৫ লাখ ৪৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে গ্রামীণফোনের।

এছাড়া অ্যাসোসিয়েটেড অক্সিজেনের ৫ লাখ টাকার, ব্রিটিশ আমেরিকান ট্যোবাকোর ৫ লাখ ১১ হাজার টাকার, বিডি কমের ১২ লাখ ২৫ হাজার টাকার, বিডি ফাইন্যান্সের ৫৯ লাখ টাকার, বিকন ফার্মার ৫ লাখ ৬৪ হাজার টাকার, বেক্সিমকো ফার্মার ৭৮ লাখ ৮০ হাজার টাকার, সিএপিএম বিডিবিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৮ লাখ ৬৮ হাজার টাকার, সিটি ব্যাংকের ১২ লাখ ৯২ হাজার টাকার, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের ৩০ লাখ টকার, জিবিবি পাওয়ারের ১১ লাখ ৮৮ হাজার টাকার, গ্রীন ডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৯ লাখ ১০ হাজার টাকার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের ১২ লাখ ৬০ হাজার টাকার, মতিন স্পিনিংয়ের ১ কোটি ৩৫ লাখ ২৫ হাজার টাকার, এমএল ডাইংয়ের ২৪ লাখ ২ হাজার টাকার, এনসিসি ব্যাংকের ৬০ লাখ ৮৯ হাজার টাকার, এসএস স্টিলের ১ কোটি ৩০ লাখ ৫০ হাজার টাকার এবং ইউনাইটেড পাওয়ারের ১ কোটি ৪৩ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১ , ৪ মাঘ ১৪২৭, ৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সূচক কমলেও বেড়েছে লেনদেন

image

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বড় উত্থান হলেও গতকাল বড় পতনে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। এদিন উভয় শেয়ারবাজারের সব সূচক কমেছে। একই সঙ্গে কমেছে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর। তবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল প্রায় ২৪শ’ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫৮.৮৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৮৫০.৪৩ পয়েন্টে। ডিএসইর অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২৪.১৮ পয়েন্ট, ডিএসই-৩০ সূচক ২৭.৯৫ পয়েন্ট এবং সিডিএসইটি সূচক ২২.৪৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১২৯৯.৩১ পয়েন্টে, ২২০৮.৮২ পয়েন্টে এবং ১২৬৯.৫৮ পয়েন্টে। গতকাল ডিএসইতে ২ হাজার ৩৮৪ কোটি ৮৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়েছে যা আগের দিন থেকে ৩১৪ কোটি ২ লাখ টাকা বেশি। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৭০ কোটি ৮৫ লাখ টাকার। ডিএসইতে গতকাল ৩৫৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৭২টির বা ২০.০৫ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ২৩১টির বা ৬৪.৩৪ শতাংশের এবং ৫৬টির বা ১৫.৫৯ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অন্য শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৭৭.৫২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৪৭.৫২ পয়েন্টে। সিএসইতে গতকাল ২৭৯টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮১টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৬৮টির আর ৩০টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ১৫১ কোটি ৬৯ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ডিএসই’র ব্লক মার্কেটে ২০টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ২৫ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর ৫৩ লাখ ১৬ হাজার ৪৪৩টি শেয়ার ৩১ বার হাত বদল হয়েছে। এর মাধ্যমে কোম্পানিগুলোর ২৫ কোটি ৪৯ লাখ ৯৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ১৪ কোটি ২৬ লাখ ৭১ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে এসকে ট্রিমসের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২ কোটি ৩২ লাখ ৬৬ হাজার টাকার রবি আজিয়াটার এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ১ কোটি ৪৫ লাখ ৪৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে গ্রামীণফোনের।

এছাড়া অ্যাসোসিয়েটেড অক্সিজেনের ৫ লাখ টাকার, ব্রিটিশ আমেরিকান ট্যোবাকোর ৫ লাখ ১১ হাজার টাকার, বিডি কমের ১২ লাখ ২৫ হাজার টাকার, বিডি ফাইন্যান্সের ৫৯ লাখ টাকার, বিকন ফার্মার ৫ লাখ ৬৪ হাজার টাকার, বেক্সিমকো ফার্মার ৭৮ লাখ ৮০ হাজার টাকার, সিএপিএম বিডিবিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৮ লাখ ৬৮ হাজার টাকার, সিটি ব্যাংকের ১২ লাখ ৯২ হাজার টাকার, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের ৩০ লাখ টকার, জিবিবি পাওয়ারের ১১ লাখ ৮৮ হাজার টাকার, গ্রীন ডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৯ লাখ ১০ হাজার টাকার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের ১২ লাখ ৬০ হাজার টাকার, মতিন স্পিনিংয়ের ১ কোটি ৩৫ লাখ ২৫ হাজার টাকার, এমএল ডাইংয়ের ২৪ লাখ ২ হাজার টাকার, এনসিসি ব্যাংকের ৬০ লাখ ৮৯ হাজার টাকার, এসএস স্টিলের ১ কোটি ৩০ লাখ ৫০ হাজার টাকার এবং ইউনাইটেড পাওয়ারের ১ কোটি ৪৩ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।