ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীদের ঘরে ফেরার আহ্বান

অটোপাসসহ চার দফা দাবিতে আন্দোলনরত ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের ঘরে ফেরার আহ্বান জানিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলেছেন, ‘অযৌক্তিক আন্দোলন নিয়ে রাজপথে থাকলে শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

গতকাল সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব আমিনুল ইসলাম খান।

ইঞ্জিনিয়ারদের অটোপাস দেয়া যায় না- মন্তব্য করে সচিব বলেন, ‘সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। বাংলাদেশ পলিটেকনিক ছাত্র পরিষদ ভিন্ন উদ্দেশ্যে আন্দোলন করছে।’

কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান মোরাদ হোসেন মোল্লা, বোর্ডের সচিব জাহেদুল হাসানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

আন্দোলনরত কারিগরি শিক্ষার্থীদের বিষয়ে সচিব আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ‘আমরা মনে করছি তারা ফিরে আসবে। অথবা তারা যদি অসত্য, বিভ্রান্তিকর অপতৎপরতা অব্যাহত রাখে তাহলে আমাদের ধরে নিতে হবে তাদের উদ্দেশ, শিক্ষা নয়। শিক্ষার বাইরেও তাদের অন্য কোন উদ্দেশ রয়েছে। একটা অস্থিতিশীলতা, একটা বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা তাদের অপচেষ্টা রয়েছে। সেক্ষেত্রে সরকার যথা নিয়মে মোকাবিলা করবে।’

ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীরা এক বছরের ‘ইয়ার লস’ প্রসঙ্গে সচিব বলেন, ‘স্থগিত হওয়া দ্বিতীয়, চতুর্থ ও ষষ্ঠ পর্বের তাত্ত্বিক পরীক্ষায় অটোপাস ও প্রথম, তৃতীয়, পঞ্চম ও সপ্তম পর্বের ক্লাস চালু করে শর্ট সিলেবাসে পরীক্ষা নেয়া, অতিরিক্ত ফি প্রত্যাহার এবং প্রাইভেট পলিটেকনিকের সেমিস্টার ফি মওকুফ এবং সব প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিপ্লোমা ছাত্রদের আসন বরাদ্দের দাবি জানিয়ে আন্দোলন করছে। হঠাৎ তৈরি হওয়া নতুন সংগঠন ‘বাংলাদেশ পলিটেকনিক ছাত্র পরিষদ’র দাবি করার আগেই সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। তারা এখন কোন ভিন্ন উদ্দেশ্যে আন্দোলন করছে। ইঞ্জিনিয়ারদের অটোপাস দেয়া হবে না।’

শনিবারই কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের বৈঠকে পরীক্ষার নম্বর ও সময় কমিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয় জানিয়ে আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ‘প্রতিটি বিষয়ের মোট ১০০ নম্বরের মধ্যে পরীক্ষা দিতে হবে ৫০ নম্বরের। আর তিন ঘণ্টার পরীক্ষা দুই ঘণ্টা এবং দুই ঘণ্টার পরীক্ষা দিতে হবে দেড় ঘণ্টায়। এই সিদ্ধান্তের পরেও রংপুর ও বরিশালে সড়ক অবরোধ করা হয় ‘বাংলাদেশ পলিটেকনিক ছাত্র পরিষদ’র ব্যানারে।’

সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১ , ৪ মাঘ ১৪২৭, ৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীদের ঘরে ফেরার আহ্বান

ইঞ্জিনিয়ারদের অটোপাস দেয়া হবে না

অটোপাসসহ চার দফা দাবিতে আন্দোলনরত ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের ঘরে ফেরার আহ্বান জানিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলেছেন, ‘অযৌক্তিক আন্দোলন নিয়ে রাজপথে থাকলে শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

গতকাল সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব আমিনুল ইসলাম খান।

ইঞ্জিনিয়ারদের অটোপাস দেয়া যায় না- মন্তব্য করে সচিব বলেন, ‘সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। বাংলাদেশ পলিটেকনিক ছাত্র পরিষদ ভিন্ন উদ্দেশ্যে আন্দোলন করছে।’

কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান মোরাদ হোসেন মোল্লা, বোর্ডের সচিব জাহেদুল হাসানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

আন্দোলনরত কারিগরি শিক্ষার্থীদের বিষয়ে সচিব আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ‘আমরা মনে করছি তারা ফিরে আসবে। অথবা তারা যদি অসত্য, বিভ্রান্তিকর অপতৎপরতা অব্যাহত রাখে তাহলে আমাদের ধরে নিতে হবে তাদের উদ্দেশ, শিক্ষা নয়। শিক্ষার বাইরেও তাদের অন্য কোন উদ্দেশ রয়েছে। একটা অস্থিতিশীলতা, একটা বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা তাদের অপচেষ্টা রয়েছে। সেক্ষেত্রে সরকার যথা নিয়মে মোকাবিলা করবে।’

ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীরা এক বছরের ‘ইয়ার লস’ প্রসঙ্গে সচিব বলেন, ‘স্থগিত হওয়া দ্বিতীয়, চতুর্থ ও ষষ্ঠ পর্বের তাত্ত্বিক পরীক্ষায় অটোপাস ও প্রথম, তৃতীয়, পঞ্চম ও সপ্তম পর্বের ক্লাস চালু করে শর্ট সিলেবাসে পরীক্ষা নেয়া, অতিরিক্ত ফি প্রত্যাহার এবং প্রাইভেট পলিটেকনিকের সেমিস্টার ফি মওকুফ এবং সব প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিপ্লোমা ছাত্রদের আসন বরাদ্দের দাবি জানিয়ে আন্দোলন করছে। হঠাৎ তৈরি হওয়া নতুন সংগঠন ‘বাংলাদেশ পলিটেকনিক ছাত্র পরিষদ’র দাবি করার আগেই সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। তারা এখন কোন ভিন্ন উদ্দেশ্যে আন্দোলন করছে। ইঞ্জিনিয়ারদের অটোপাস দেয়া হবে না।’

শনিবারই কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের বৈঠকে পরীক্ষার নম্বর ও সময় কমিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয় জানিয়ে আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ‘প্রতিটি বিষয়ের মোট ১০০ নম্বরের মধ্যে পরীক্ষা দিতে হবে ৫০ নম্বরের। আর তিন ঘণ্টার পরীক্ষা দুই ঘণ্টা এবং দুই ঘণ্টার পরীক্ষা দিতে হবে দেড় ঘণ্টায়। এই সিদ্ধান্তের পরেও রংপুর ও বরিশালে সড়ক অবরোধ করা হয় ‘বাংলাদেশ পলিটেকনিক ছাত্র পরিষদ’র ব্যানারে।’