স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসি’

নির্মিত হলো স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসি’। গত ৯, ১০ এবং ১৬ জানুয়ারি দৃশ্য ধারণের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে ‘ভালোবাসি’র শুটিং। প্রকাশ পাবে ভালোবাসা দিবসকে কেন্দ্র করে। ‘ভালোবাসি’র কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন সালহা খানম নাদিয়া। তরুণ নির্মাতা রাফাত জামিল এটি নির্মাণ করছেন।

তথ্যপ্রযুক্তি সাংবা?দিক ও লেখক রাহিতুল ইসলামের অণু-উপন্যাস ‘ভালোবাসি’র ছায়া অবলম্বনে সাজানো হয়েছে ‘ভালোবাসি’র গল্পটি। সালাহা খানম নাদিয়া ছাড়াও অভিনয় করছেন খায়রুল বাসার, জ্যোত চট্টোপাধ্যায়, ইশতিয়াক আহমেদ টিংকু, রাফায়াতুল্লাহ সোহান, সায়মা সেলিম আনিকা, সাহানা আফরোজ স্বপ্না, অনেজা জলি, তুতিয়া ইয়াসমিন পাপিয়া প্রমুখ।

এ স্বল্পদৈর্ঘ্যরে শুটিং সম্পর্কে নাদিয়া বলেন, ‘এই কাজের মাধ্যমে চলতি বছর প্রথম শুটিং শুরু করি। কাজটি করতে গিয়ে যেমন কষ্ট পেয়েছি তেমনি খুশিও হয়েছি। দুদিন ভোর পাঁচটা পর্যন্ত শুটিং করেছি। যে চরিত্রে অভিনয় করেছি তার মাধ্যমে পঙ্গু মানুষের কষ্টটা কেমন কিছুটা হলেও বুঝতে পেরেছি। যেমনটা কষ্ট করেছি, তেমনি কাজটা ভালোও হয়েছে। এতে করে খুশি হয়েছি। ফিল করছি, একটি ভালো কাজ দিয়েই বছর শুরু করলাম।

‘ভালোবাসি’ বইয়ের লেখক ও লগ্নিকারী রাহিতুল ইসলাম বলেন, ‘গল্পটা সব ধরনের মানুষেরই ভালো লাগবে। একই সঙ্গে ছবিটি এক ধরনের ব্যথাও দেবে দর্শকের হৃদয়ে।

বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১ , ৬ মাঘ ১৪২৭, ৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসি’

image

নির্মিত হলো স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসি’। গত ৯, ১০ এবং ১৬ জানুয়ারি দৃশ্য ধারণের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে ‘ভালোবাসি’র শুটিং। প্রকাশ পাবে ভালোবাসা দিবসকে কেন্দ্র করে। ‘ভালোবাসি’র কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন সালহা খানম নাদিয়া। তরুণ নির্মাতা রাফাত জামিল এটি নির্মাণ করছেন।

তথ্যপ্রযুক্তি সাংবা?দিক ও লেখক রাহিতুল ইসলামের অণু-উপন্যাস ‘ভালোবাসি’র ছায়া অবলম্বনে সাজানো হয়েছে ‘ভালোবাসি’র গল্পটি। সালাহা খানম নাদিয়া ছাড়াও অভিনয় করছেন খায়রুল বাসার, জ্যোত চট্টোপাধ্যায়, ইশতিয়াক আহমেদ টিংকু, রাফায়াতুল্লাহ সোহান, সায়মা সেলিম আনিকা, সাহানা আফরোজ স্বপ্না, অনেজা জলি, তুতিয়া ইয়াসমিন পাপিয়া প্রমুখ।

এ স্বল্পদৈর্ঘ্যরে শুটিং সম্পর্কে নাদিয়া বলেন, ‘এই কাজের মাধ্যমে চলতি বছর প্রথম শুটিং শুরু করি। কাজটি করতে গিয়ে যেমন কষ্ট পেয়েছি তেমনি খুশিও হয়েছি। দুদিন ভোর পাঁচটা পর্যন্ত শুটিং করেছি। যে চরিত্রে অভিনয় করেছি তার মাধ্যমে পঙ্গু মানুষের কষ্টটা কেমন কিছুটা হলেও বুঝতে পেরেছি। যেমনটা কষ্ট করেছি, তেমনি কাজটা ভালোও হয়েছে। এতে করে খুশি হয়েছি। ফিল করছি, একটি ভালো কাজ দিয়েই বছর শুরু করলাম।

‘ভালোবাসি’ বইয়ের লেখক ও লগ্নিকারী রাহিতুল ইসলাম বলেন, ‘গল্পটা সব ধরনের মানুষেরই ভালো লাগবে। একই সঙ্গে ছবিটি এক ধরনের ব্যথাও দেবে দর্শকের হৃদয়ে।