দেশে করোনায় একদিনে ২০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৭০২

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে আরও ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেছেন সাত হাজার ৯৪২ জন। নতুন শনাক্ত হয়েছেন ৭০২ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ২৯ হাজার ৩১ জনে। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ঢাকা সিটিসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে উপসর্গবিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬৮২ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন চার লাখ ৭৩ হাজার ৮৫৫ জন। সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৯৯টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা হয়েছে। এরমধ্যে আরটি-পিসিআর ল্যাব ১১৫টি, জিন-এক্সপার্ট ২৮টি, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন ৫৬টি। এসব ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৫ হাজার ৫৭৪টি। মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৫ হাজার ৯৭টি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৩৪ লাখ ৮৫ হাজার ২৫৭টি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৪ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ১৮ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৯ দশমিক ৫৭ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫০ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, ২৪ ঘণ্টায় মৃত ২৯ জনের মধ্যে ১৪ জন পুরুষ ও নারী ছয়জন। এদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা বিভাগে ১১, চট্টগ্রাম বিভাগে ৬, রাজশাহী বিভাগে ২, খুলনা বিভাগে একজন। হাসপাতালে মারা গেছেন ১৮ জন ও বাড়িতে দুইজন।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে ১৫ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে পাঁচ রয়েছেন। দেশে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া ৭ হাজার ৯৪২ জনের মধ্যে ৬ হাজার ১৮ জনই পুরুষ এবং ১ হাজার ৯২৪ জন নারী।

তাদের মধ্যে ৪ হাজার ৩৮১ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। ১ হাজার ৯৯৯ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ৯১৪ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ৩৯১ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে, ১৬১ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে, ৬০ জনের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এবং ৩৬ জনের বয়স ছিল ১০ বছরের কম।

এরমধ্যে ৪ হাজার ৪০৬ জন ঢাকা বিভাগের, ১ হাজার ৪৫৭ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ৪৫৪ জন রাজশাহী বিভাগের, ৫৪৪ জন খুলনা বিভাগের, ২৪০ জন বরিশাল বিভাগের, ৩০১ জন সিলেট বিভাগের, ৩৫৪ জন রংপুর বিভাগের এবং ১৮৬ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আরও জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ৮০ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৯৩ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৯৮ হাজার ২৯৭ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৮৭ হাজার ২২৫ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১১ হাজার ৭২ জন।

বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১ , ৬ মাঘ ১৪২৭, ৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২

দেশে করোনায় একদিনে ২০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৭০২

image

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে আরও ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেছেন সাত হাজার ৯৪২ জন। নতুন শনাক্ত হয়েছেন ৭০২ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ২৯ হাজার ৩১ জনে। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ঢাকা সিটিসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে উপসর্গবিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬৮২ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন চার লাখ ৭৩ হাজার ৮৫৫ জন। সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৯৯টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা হয়েছে। এরমধ্যে আরটি-পিসিআর ল্যাব ১১৫টি, জিন-এক্সপার্ট ২৮টি, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন ৫৬টি। এসব ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৫ হাজার ৫৭৪টি। মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৫ হাজার ৯৭টি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৩৪ লাখ ৮৫ হাজার ২৫৭টি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৪ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ১৮ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৯ দশমিক ৫৭ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫০ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, ২৪ ঘণ্টায় মৃত ২৯ জনের মধ্যে ১৪ জন পুরুষ ও নারী ছয়জন। এদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা বিভাগে ১১, চট্টগ্রাম বিভাগে ৬, রাজশাহী বিভাগে ২, খুলনা বিভাগে একজন। হাসপাতালে মারা গেছেন ১৮ জন ও বাড়িতে দুইজন।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে ১৫ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে পাঁচ রয়েছেন। দেশে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া ৭ হাজার ৯৪২ জনের মধ্যে ৬ হাজার ১৮ জনই পুরুষ এবং ১ হাজার ৯২৪ জন নারী।

তাদের মধ্যে ৪ হাজার ৩৮১ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। ১ হাজার ৯৯৯ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ৯১৪ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ৩৯১ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে, ১৬১ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে, ৬০ জনের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এবং ৩৬ জনের বয়স ছিল ১০ বছরের কম।

এরমধ্যে ৪ হাজার ৪০৬ জন ঢাকা বিভাগের, ১ হাজার ৪৫৭ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ৪৫৪ জন রাজশাহী বিভাগের, ৫৪৪ জন খুলনা বিভাগের, ২৪০ জন বরিশাল বিভাগের, ৩০১ জন সিলেট বিভাগের, ৩৫৪ জন রংপুর বিভাগের এবং ১৮৬ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আরও জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ৮০ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৯৩ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৯৮ হাজার ২৯৭ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৮৭ হাজার ২২৫ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১১ হাজার ৭২ জন।