টাইগাররা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে

বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ওয়ানডে আজ

করোনার কারণে দীর্ঘ বিরতির পর আজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। দলের সেরা ১২ খেলোয়াড়কে ছাড়া সফরে আসা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে নিজেদের মেলে ধরার লক্ষ্যে নিজেদের মাঠে নামবে টাইগাররা।

দর্শকশূন্য মাঠে শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে ম্যাচটি শুরু হবে সকাল সাড়ে ১১টায়। ৫০ ওভারের ম্যাচটি সরাসরি দেখাবে বিটিভি, টি-স্পোর্টস ও নাগরিক টিভি।

করোনাভীতিতে বাংলাদেশ সফরে আসেননি উইন্ডিজ টেস্ট দলের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার ও ওয়ানডে অধিনায়ক কাইরন পোলার্ডসহ ১০ জন খেলোয়াড়। আরও দু’জন ক্রিকেটার সফর থেকে নাম প্রত্যাহার করায় ইতিহাসে সবচেয়ে দুর্বল দল হিসেবে বিবেচিত সফররত ক্যারিবিয়টি। তারপরও সিরিজটি আইসিসি বিশ্বকাপ সুপার লীগের অংশ হওয়াতে আত্মতুষ্টিতে ভুগছে না বাংলাদেশ। কারণ ২০২৩ বিশ্বকাপে সরাসরি খেলতে হলে ভারত বাদে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষ সাতের মধ্যে থাকতে হবে বাংলাদেশকে। গত বছর শুরু হওয়া সুপার লীগ পর্বে প্রতিটি দলকে হোম ও অ্যাওয়ে ভিত্তিতে চারটি করে তিন ম্যাচের সিরিজ খেলতে হবে। সুপার লীগে একটি ম্যাচ জিতলে ১০ পয়েন্ট, ম্যাচ টাই/পরিত্যক্ত/বাতিলের জন্য পাঁচ পয়েন্ট করে এবং হারের জন্য কোন পয়েন্ট পাওয়া যায় না। পয়েন্টের ভিত্তিতে র‌্যাংকিং নির্ধারিত হবে। সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে না পারা দলকে ২০২৩ সালের জুন-জুলাইয়ে বাছাইপর্ব খেলতে হবে। ওয়ানডে রেকর্ডের ভিত্তিতে যেহেতু পয়েন্ট অর্জন করা কঠিন, তাই নিজেদের মাঠে সিরিজগুলোতে ভালো ফল করে সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার পথ সহজ করতে চায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইতোমধ্যে ৩৮টি ওয়ানতে মুখোমুখি হয়েছে। এরমধ্যে বাংলাদেশ ১৫টি ও ক্যারিবীয়ানরা ২১টিতে জয় পায়। সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে বাংলাদেশ।

২০১৮ সালে ঘরের মাঠে পূর্ণশক্তির ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। নিজেদের কন্ডিশনে ফেভারিটের তকমা নিয়ে সিরিজ শুরু করছে বাংলাদেশ। তবে ফেভারিট হলেও সর্তক থাকবে টাইগাররা।

মূল চ্যালেঞ্জটি হলো গত ১০ মাস ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার পর মাঠে ফিরে মানিয়ে নেয়াটা।

করোনা বিরতির পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইতোমধ্যে তিনটি সিরিজ খেলে ফেলেছে। তবে সেসব সিরিজে তাদের সব খেলোয়াড় অংশ নেয়নি।

বিশেষজ্ঞদের মতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে অনেক অপরিচিত খেলোয়াড় থাকায় ও তাদের খেলার ধরণ সর্ম্পকে ধারণা কম থাকায় প্রতিপক্ষকে নিয়ে পরিকল্পনা করতে বেশ বেগ পেতে হবে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্টকে।

বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১ , ৬ মাঘ ১৪২৭, ৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২

টাইগাররা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে

বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ওয়ানডে আজ

image

নিজেকে ঝালাই করে নেন টাইগারদের ভরসার প্রতীক মুশফিকুর রহিম -বিসিবি

করোনার কারণে দীর্ঘ বিরতির পর আজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। দলের সেরা ১২ খেলোয়াড়কে ছাড়া সফরে আসা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে নিজেদের মেলে ধরার লক্ষ্যে নিজেদের মাঠে নামবে টাইগাররা।

দর্শকশূন্য মাঠে শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে ম্যাচটি শুরু হবে সকাল সাড়ে ১১টায়। ৫০ ওভারের ম্যাচটি সরাসরি দেখাবে বিটিভি, টি-স্পোর্টস ও নাগরিক টিভি।

করোনাভীতিতে বাংলাদেশ সফরে আসেননি উইন্ডিজ টেস্ট দলের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার ও ওয়ানডে অধিনায়ক কাইরন পোলার্ডসহ ১০ জন খেলোয়াড়। আরও দু’জন ক্রিকেটার সফর থেকে নাম প্রত্যাহার করায় ইতিহাসে সবচেয়ে দুর্বল দল হিসেবে বিবেচিত সফররত ক্যারিবিয়টি। তারপরও সিরিজটি আইসিসি বিশ্বকাপ সুপার লীগের অংশ হওয়াতে আত্মতুষ্টিতে ভুগছে না বাংলাদেশ। কারণ ২০২৩ বিশ্বকাপে সরাসরি খেলতে হলে ভারত বাদে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষ সাতের মধ্যে থাকতে হবে বাংলাদেশকে। গত বছর শুরু হওয়া সুপার লীগ পর্বে প্রতিটি দলকে হোম ও অ্যাওয়ে ভিত্তিতে চারটি করে তিন ম্যাচের সিরিজ খেলতে হবে। সুপার লীগে একটি ম্যাচ জিতলে ১০ পয়েন্ট, ম্যাচ টাই/পরিত্যক্ত/বাতিলের জন্য পাঁচ পয়েন্ট করে এবং হারের জন্য কোন পয়েন্ট পাওয়া যায় না। পয়েন্টের ভিত্তিতে র‌্যাংকিং নির্ধারিত হবে। সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে না পারা দলকে ২০২৩ সালের জুন-জুলাইয়ে বাছাইপর্ব খেলতে হবে। ওয়ানডে রেকর্ডের ভিত্তিতে যেহেতু পয়েন্ট অর্জন করা কঠিন, তাই নিজেদের মাঠে সিরিজগুলোতে ভালো ফল করে সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার পথ সহজ করতে চায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইতোমধ্যে ৩৮টি ওয়ানতে মুখোমুখি হয়েছে। এরমধ্যে বাংলাদেশ ১৫টি ও ক্যারিবীয়ানরা ২১টিতে জয় পায়। সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে বাংলাদেশ।

২০১৮ সালে ঘরের মাঠে পূর্ণশক্তির ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। নিজেদের কন্ডিশনে ফেভারিটের তকমা নিয়ে সিরিজ শুরু করছে বাংলাদেশ। তবে ফেভারিট হলেও সর্তক থাকবে টাইগাররা।

মূল চ্যালেঞ্জটি হলো গত ১০ মাস ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার পর মাঠে ফিরে মানিয়ে নেয়াটা।

করোনা বিরতির পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইতোমধ্যে তিনটি সিরিজ খেলে ফেলেছে। তবে সেসব সিরিজে তাদের সব খেলোয়াড় অংশ নেয়নি।

বিশেষজ্ঞদের মতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে অনেক অপরিচিত খেলোয়াড় থাকায় ও তাদের খেলার ধরণ সর্ম্পকে ধারণা কম থাকায় প্রতিপক্ষকে নিয়ে পরিকল্পনা করতে বেশ বেগ পেতে হবে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্টকে।