মানুষ মানুষের জন্য

তাসলিমা বাঁচাতে চায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার মালাই (দক্ষিণ পাড়া) গ্রামের কাজী বাড়ির মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিনের দ্বিতীয় শ্রেণীতে পড়ুয়া কন্যা তাসলিমা (১০) দুরারোগ্য (ব্লাড ক্যান্সার) ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে ২ বছর যাবত চলাফেরা করতে পারছে না। তার মা ঝর্ণা বেগম তাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের আর্থিক সহযোগিতা চান। জানা যায়, বর্তমানে তাসলিমার এক হাত ও এক পা অবশ হয়ে গেছে। তাকে ১৫ দিন পর পর এক ব্যাগ করে রক্ত দিতে হয়। পরিবারের পক্ষ থেকে এ ব্যয় মিটানো অসম্ভব। ইতোমধ্যে তার পরিবার নিজের সঞ্চয় ও আত্মীয় স্বজনদের সহযোগিতায় ২-৩ লাখ টাকা খরচ করে এখন দিশেহারা।

এ সম্পর্কে জিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ডের সদস্য আব্দুল কাদের চৌধুরী বলেন, আমি তাসলিমার চিকিৎসার জন্য সাংসদের কাছে সহযোগিতা কামনা করেছি এবং সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে তার সুচিকিৎসা করা সম্ভব হবে । প্রতিবন্ধী ভাতার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। যে কেউ তাকে সহযোগিতা করতে চাইলে তার পরিবারের সাথে ০১৬৪৭৮২৫৯১৫ মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন।

শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১ , ১১ আষাঢ় ১৪২৮ ১৩ জিলকদ ১৪৪২

মানুষ মানুষের জন্য

তাসলিমা বাঁচাতে চায়

image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার মালাই (দক্ষিণ পাড়া) গ্রামের কাজী বাড়ির মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিনের দ্বিতীয় শ্রেণীতে পড়ুয়া কন্যা তাসলিমা (১০) দুরারোগ্য (ব্লাড ক্যান্সার) ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে ২ বছর যাবত চলাফেরা করতে পারছে না। তার মা ঝর্ণা বেগম তাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের আর্থিক সহযোগিতা চান। জানা যায়, বর্তমানে তাসলিমার এক হাত ও এক পা অবশ হয়ে গেছে। তাকে ১৫ দিন পর পর এক ব্যাগ করে রক্ত দিতে হয়। পরিবারের পক্ষ থেকে এ ব্যয় মিটানো অসম্ভব। ইতোমধ্যে তার পরিবার নিজের সঞ্চয় ও আত্মীয় স্বজনদের সহযোগিতায় ২-৩ লাখ টাকা খরচ করে এখন দিশেহারা।

এ সম্পর্কে জিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ডের সদস্য আব্দুল কাদের চৌধুরী বলেন, আমি তাসলিমার চিকিৎসার জন্য সাংসদের কাছে সহযোগিতা কামনা করেছি এবং সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে তার সুচিকিৎসা করা সম্ভব হবে । প্রতিবন্ধী ভাতার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। যে কেউ তাকে সহযোগিতা করতে চাইলে তার পরিবারের সাথে ০১৬৪৭৮২৫৯১৫ মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন।