৬৮ বছর পর ফের এয়ার ইন্ডিয়ার মালিকানা কিনে নিল টাটা শিল্পগোষ্ঠী

প্রায় ১৮ হাজার কোটি টাকায় সর্বোচ্চ দরে ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থাকে কিনে নিলেন টাটা শিল্পগোষ্ঠী। গতকাল বিকেলে সাংবাদিক বৈঠকে সরকারের প্রাচীন এই সংস্থাটির নতুন মালিকানা টাটা গোষ্ঠীর নাম ঘোষণা করেন বিমান পরিবহন মন্ত্রকের সচিব রাজীব বনশল। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই এর যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে বলেও তিনি জানান। তিনি জানান, এই হস্তান্তরের পর মোট ৪৬ হাজার ২৬৫ কোটি টাকা ঋণ থাকবে এয়ার ইন্ডিয়ার। এই ঋণ এআইএএইচএল-এর নামে থাকবে।

১৯৩২ সালে টাটা গোষ্ঠীই প্রথম এয়ার ইন্ডিয়া চালু করেছিল। তখন এর নাম ছিল টাটা এয়ারলাইন্স। জেআরডি টাটা ছিলেন টাটা গোষ্ঠীর তৎকালীন চেয়ারম্যান। ১৯৪৬ সালে নাম বদলে হয় এয়ার ইন্ডিয়া। স্বাধীনতার পর ১৯৫৩ সালে তা চলে গিয়েছিল সরকারের অধীনে। সেই থেকে এই পর্যন্ত মোট ৭০ হাজার কোটি টাকার লোকসান হয়েছে এয়ার ইন্ডিয়ার। ২০ কোটি টাকা করে খরচ হচ্ছে প্রতিদিন। এর আগেও বিপুল ঋণের বোঝা থাকার কারণে কয়েকবার এয়ার ইন্ডিয়া বেসরকারিকরণের চেষ্টা হয়েছিল কিন্তু উৎসাহ দেখায়নি কোন শিল্পগোষ্ঠী।

ফের কেন্দ্রীয় সরকারের কয়েক দফা চেষ্টার পর অবশেষে টাটা গোষ্ঠী পুনরায় কিনে নিল এয়ার ইন্ডিয়ার মালিকানা। নিলাম ডাকের দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন বিমান স্পাইসজেটের প্রধান অজয় সিং। তাদের সর্বোচ্চ দরপত্র ছিল ১৫ হাজার ১০০ কোটি টাকা। কিন্তু তার চেয়েও বেশি দামে অর্থাৎ প্রায় ১৮ হাজার কোটি টাকা ও কতিপয় শর্ত মেনে এয়ার ইন্ডিয়া কিনে নিল রতন টাটা গ্রুপ।

শর্তের মধ্যে রয়েছে আগামী এক বছরের জন্য সমস্ত কর্মীদের চাকরি সুনিশ্চিত করবে টাটা গোষ্ঠী। এরপর টাটা গোষ্ঠী যে সমস্ত কর্মচারী ও আধিকারিদের রাখবে না, তাদের স্বেচ্ছায় অবসর (ভলান্টারি রিটায়ারমেন্ট)-র সুযোগ দেয়া হবে। এছাড়াও চাকরিরত সবাইকে পিএফ, গ্রাচুয়ালিটি এবং চিকিৎসার ব্যবস্থা দেয়া হবে।

বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়ার লোকসানের কারণে বেসরকারিকরণের চেষ্টা হয়। কিন্তু বিরোধী দলগুলোর অব্যাহত প্রতিবাদের মুখে তা সম্ভব হয়নি। এবার সরকার বিরোধী দলের দাবীকে উপেক্ষা করে শেষ পর্যন্ত রতন টাটা গ্রুপের কাছে বিক্রি করে দিল ভারতের ঐতিহ্যবাহী এই সংস্থাটিকে।

শনিবার, ০৯ অক্টোবর ২০২১ , ২৪ আশ্বিন ১৪২৮ ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

৬৮ বছর পর ফের এয়ার ইন্ডিয়ার মালিকানা কিনে নিল টাটা শিল্পগোষ্ঠী

প্রায় ১৮ হাজার কোটি টাকায় সর্বোচ্চ দরে ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থাকে কিনে নিলেন টাটা শিল্পগোষ্ঠী। গতকাল বিকেলে সাংবাদিক বৈঠকে সরকারের প্রাচীন এই সংস্থাটির নতুন মালিকানা টাটা গোষ্ঠীর নাম ঘোষণা করেন বিমান পরিবহন মন্ত্রকের সচিব রাজীব বনশল। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই এর যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে বলেও তিনি জানান। তিনি জানান, এই হস্তান্তরের পর মোট ৪৬ হাজার ২৬৫ কোটি টাকা ঋণ থাকবে এয়ার ইন্ডিয়ার। এই ঋণ এআইএএইচএল-এর নামে থাকবে।

১৯৩২ সালে টাটা গোষ্ঠীই প্রথম এয়ার ইন্ডিয়া চালু করেছিল। তখন এর নাম ছিল টাটা এয়ারলাইন্স। জেআরডি টাটা ছিলেন টাটা গোষ্ঠীর তৎকালীন চেয়ারম্যান। ১৯৪৬ সালে নাম বদলে হয় এয়ার ইন্ডিয়া। স্বাধীনতার পর ১৯৫৩ সালে তা চলে গিয়েছিল সরকারের অধীনে। সেই থেকে এই পর্যন্ত মোট ৭০ হাজার কোটি টাকার লোকসান হয়েছে এয়ার ইন্ডিয়ার। ২০ কোটি টাকা করে খরচ হচ্ছে প্রতিদিন। এর আগেও বিপুল ঋণের বোঝা থাকার কারণে কয়েকবার এয়ার ইন্ডিয়া বেসরকারিকরণের চেষ্টা হয়েছিল কিন্তু উৎসাহ দেখায়নি কোন শিল্পগোষ্ঠী।

ফের কেন্দ্রীয় সরকারের কয়েক দফা চেষ্টার পর অবশেষে টাটা গোষ্ঠী পুনরায় কিনে নিল এয়ার ইন্ডিয়ার মালিকানা। নিলাম ডাকের দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন বিমান স্পাইসজেটের প্রধান অজয় সিং। তাদের সর্বোচ্চ দরপত্র ছিল ১৫ হাজার ১০০ কোটি টাকা। কিন্তু তার চেয়েও বেশি দামে অর্থাৎ প্রায় ১৮ হাজার কোটি টাকা ও কতিপয় শর্ত মেনে এয়ার ইন্ডিয়া কিনে নিল রতন টাটা গ্রুপ।

শর্তের মধ্যে রয়েছে আগামী এক বছরের জন্য সমস্ত কর্মীদের চাকরি সুনিশ্চিত করবে টাটা গোষ্ঠী। এরপর টাটা গোষ্ঠী যে সমস্ত কর্মচারী ও আধিকারিদের রাখবে না, তাদের স্বেচ্ছায় অবসর (ভলান্টারি রিটায়ারমেন্ট)-র সুযোগ দেয়া হবে। এছাড়াও চাকরিরত সবাইকে পিএফ, গ্রাচুয়ালিটি এবং চিকিৎসার ব্যবস্থা দেয়া হবে।

বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়ার লোকসানের কারণে বেসরকারিকরণের চেষ্টা হয়। কিন্তু বিরোধী দলগুলোর অব্যাহত প্রতিবাদের মুখে তা সম্ভব হয়নি। এবার সরকার বিরোধী দলের দাবীকে উপেক্ষা করে শেষ পর্যন্ত রতন টাটা গ্রুপের কাছে বিক্রি করে দিল ভারতের ঐতিহ্যবাহী এই সংস্থাটিকে।