বিএনপি ‘স্বতন্ত্র পরিচয়ের ঘোমটা’ পরে ইউপি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

বিএনপি ‘স্বতন্ত্র পরিচয়ের ঘোমটা’ পরে ইউনিয়ন পরিষদ (্ইউপি) নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল রাজধানীতে নিজের সরকারি বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ‘বিএনপিকে বলি ঘোমটা ছেড়ে সৎ সাহস থাকলে প্রকাশ্যে দলীয় প্রতীকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুন।’

নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে বিএনপির এক দফার আন্দোলনের রঙিন খোয়াব অচিরেই দুঃস্বপ্নে রূপ নেবে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন অর্জনে দেশের মানুষ খুশি। এজন্য বিএনপির আন্দোলনে জনগণ সাড়া দেবে না।’

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, পরবর্তী নির্বাচনের ব্যাপারে সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই। তাই এ বিষয়ে অযথা মাঠ গরম করার চেষ্টা করবেন না।’

আবরার হত্যা প্রসঙ্গে বিএনপির মহাসচিবের বক্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তাদের শাসনামলে দলীয় একজন লোকের বিচার হয়েছে কোন অপকর্মের জন্য, এমন কোন নজির দেখাতে পারবেন কি? শেখ হাসিনার সরকারই বিশ্বজিৎ ও বরগুনার রিফাত হত্যার বিচার করেছে।

শেখ হাসিনার সরকার অপরাধীকে অপরাধী হিসেবেই দেখে- উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দলীয় পরিচয় কারও আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না। শেখ হাসিনার সরকারই তা বারবার প্রমাণ করেছে।’ দলীয় পরিচয়ে কাউকে ছাড় দেয়া হয়নি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আবরার হত্যা মামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ব্যবস্থা নিয়েছে এবং সাংগঠনিক ও দলীয়ভাবেও ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বর্তমানে মামলাটির বিচার প্রক্রিয়াধীন। আবরার হত্যার সঙ্গে জড়িত প্রায় সবাই ছাত্রলীগ পরিচয়ের, কাউকে ছাড় দেয়া হয়নি।’ সুতরাং অপরাধী যে দলেরই হোক না কেন তাকে বিচারের আওতায় আনতে হবে বলে জানান ওবায়দুল কাদের।

রবিবার, ১০ অক্টোবর ২০২১ , ২৫ আশ্বিন ১৪২৮ ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বিএনপি ‘স্বতন্ত্র পরিচয়ের ঘোমটা’ পরে ইউপি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

বিএনপি ‘স্বতন্ত্র পরিচয়ের ঘোমটা’ পরে ইউনিয়ন পরিষদ (্ইউপি) নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল রাজধানীতে নিজের সরকারি বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ‘বিএনপিকে বলি ঘোমটা ছেড়ে সৎ সাহস থাকলে প্রকাশ্যে দলীয় প্রতীকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুন।’

নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে বিএনপির এক দফার আন্দোলনের রঙিন খোয়াব অচিরেই দুঃস্বপ্নে রূপ নেবে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন অর্জনে দেশের মানুষ খুশি। এজন্য বিএনপির আন্দোলনে জনগণ সাড়া দেবে না।’

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, পরবর্তী নির্বাচনের ব্যাপারে সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই। তাই এ বিষয়ে অযথা মাঠ গরম করার চেষ্টা করবেন না।’

আবরার হত্যা প্রসঙ্গে বিএনপির মহাসচিবের বক্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তাদের শাসনামলে দলীয় একজন লোকের বিচার হয়েছে কোন অপকর্মের জন্য, এমন কোন নজির দেখাতে পারবেন কি? শেখ হাসিনার সরকারই বিশ্বজিৎ ও বরগুনার রিফাত হত্যার বিচার করেছে।

শেখ হাসিনার সরকার অপরাধীকে অপরাধী হিসেবেই দেখে- উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দলীয় পরিচয় কারও আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না। শেখ হাসিনার সরকারই তা বারবার প্রমাণ করেছে।’ দলীয় পরিচয়ে কাউকে ছাড় দেয়া হয়নি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আবরার হত্যা মামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ব্যবস্থা নিয়েছে এবং সাংগঠনিক ও দলীয়ভাবেও ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বর্তমানে মামলাটির বিচার প্রক্রিয়াধীন। আবরার হত্যার সঙ্গে জড়িত প্রায় সবাই ছাত্রলীগ পরিচয়ের, কাউকে ছাড় দেয়া হয়নি।’ সুতরাং অপরাধী যে দলেরই হোক না কেন তাকে বিচারের আওতায় আনতে হবে বলে জানান ওবায়দুল কাদের।