গাড়ির ভেতর ক্ষতবিক্ষত লাশ

রাজধানীর তেজগাঁওয়ে গাড়ির ভেতর থেকে সজল কুমার ঘোষ নামে এক ব্যক্তির ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত শনিবার রাতে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল পুলিশ ওই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে। গত বৃহস্পতিবার থেকে সজল নিখোঁজ ছিল। পুলিশের ধারণা সজলকে হত্যা করা হয়েছে। লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শের আলম জানান, নিহত সজল কুমার ঘোষ ধানমন্ডির এক ব্যক্তির গাড়িচালক ছিলেন। চলিত মাসের ৭ তারিখ থেকে তিনি নিখোঁজ হন। পরে মালিকের পক্ষ থেকে ধানমন্ডি থানায় নিখোঁজের একটি জিডি করা হয়।

শনিবার রাতে তেজগাঁওয়ে কালোরঙের একটি পাজেরো গাড়ির ভেতর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। টয়োটা ব্র্যান্ডের ওই গাড়িতে অর্ধগলিত অবস্থায় মরদেহটি পাওয়া যায়।

ওসি (তদন্ত) মো. শের আলম জানান, ঢাকা-মেট্রো-ঘ-১১-৭৯৮৬ নম্বরের ওই গাড়িটি চালকসহ গত বৃহস্পতিবার থেকে পাওয়া যাচ্ছিল না। মরদেহ উদ্ধারের পর সব আইনি প্রক্রিয়া শেষে সেটি ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির সময় তার শরীরে ক্ষতচিহ্ন দেখা যায়। এটি হত্যাকা- কি না এখনই বলা যাচ্ছে না। তদন্তের পরে বিস্তারিত জানা যাবে।

সোমবার, ১১ অক্টোবর ২০২১ , ২৬ আশ্বিন ১৪২৮ ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

গাড়ির ভেতর ক্ষতবিক্ষত লাশ

রাজধানীর তেজগাঁওয়ে গাড়ির ভেতর থেকে সজল কুমার ঘোষ নামে এক ব্যক্তির ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত শনিবার রাতে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল পুলিশ ওই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে। গত বৃহস্পতিবার থেকে সজল নিখোঁজ ছিল। পুলিশের ধারণা সজলকে হত্যা করা হয়েছে। লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শের আলম জানান, নিহত সজল কুমার ঘোষ ধানমন্ডির এক ব্যক্তির গাড়িচালক ছিলেন। চলিত মাসের ৭ তারিখ থেকে তিনি নিখোঁজ হন। পরে মালিকের পক্ষ থেকে ধানমন্ডি থানায় নিখোঁজের একটি জিডি করা হয়।

শনিবার রাতে তেজগাঁওয়ে কালোরঙের একটি পাজেরো গাড়ির ভেতর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। টয়োটা ব্র্যান্ডের ওই গাড়িতে অর্ধগলিত অবস্থায় মরদেহটি পাওয়া যায়।

ওসি (তদন্ত) মো. শের আলম জানান, ঢাকা-মেট্রো-ঘ-১১-৭৯৮৬ নম্বরের ওই গাড়িটি চালকসহ গত বৃহস্পতিবার থেকে পাওয়া যাচ্ছিল না। মরদেহ উদ্ধারের পর সব আইনি প্রক্রিয়া শেষে সেটি ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির সময় তার শরীরে ক্ষতচিহ্ন দেখা যায়। এটি হত্যাকা- কি না এখনই বলা যাচ্ছে না। তদন্তের পরে বিস্তারিত জানা যাবে।