মানসিকভাবে অসুস্থ ৯২% মানুষই স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত

দেশের মোট জনসংখ্যার ১৭ শতাংশ মানুষ কোন না কোন মানসিক অসুস্থতায় ভুগছেন। এরমধ্যে ৮ শতাংশ মানুষ মানসিক স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছেন। সেবা বঞ্চিত হচ্ছেন অবশিষ্ট ৯২ শতাংশ মানুষ। এই সংকট নিরসনে দ্রুত কার্যকরি পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন এ খাতের বিশেষজ্ঞরা। গতকাল রোববার বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ন্যাশনাল ট্রমাকাউন্সেলিং সেন্টার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ এবং বাংলাদেশ ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি সোসাইটির যৌথ উদ্যোগে ‘অসমবিশ্বে মানসিক স্বাস্থ্য’ শীর্ষক ওয়েবিনারে বক্তারা এ আহ্বান জানান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান জোবেদা খাতুনের সভাপতিত্বে ওয়েবিনারে বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, ঢাবির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল, ঢাবির ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের অধ্যাপক ও বাংলাদেশ ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি সোসাইটির সভাপতি ড. মোহম্মদ মাহমুদুর রহমান, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কল্পে মাল্টিসেক্টরাল প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক একেএম শামীম আক্তার প্রমুখ। সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম বলেন, মানসিক অসুস্থতা প্রতিরোধের জন্য অনেক কাজ করার সুযোগ রয়েছে। হতাশা, কর্মস্পৃহা, মানসিক চাপকে শিশুকাল হতে এ্যাড্রেস করা হলে এই অস্থিরতা, প্রতিযোগিতা ও বৈষম্য দূর করা সম্ভব।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল বলেন, করোনাকালে বৈষম্যহীনতা পরিষ্কারভাবেই বিশ্বজুড়ে ফুটে উঠেছে। যার প্রভাব আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দেখা গিয়েছিল এবং ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ সংকট উত্তরণের সেক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল।

সোমবার, ১১ অক্টোবর ২০২১ , ২৬ আশ্বিন ১৪২৮ ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মানসিকভাবে অসুস্থ ৯২% মানুষই স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত

কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান বিশেষজ্ঞদের

দেশের মোট জনসংখ্যার ১৭ শতাংশ মানুষ কোন না কোন মানসিক অসুস্থতায় ভুগছেন। এরমধ্যে ৮ শতাংশ মানুষ মানসিক স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছেন। সেবা বঞ্চিত হচ্ছেন অবশিষ্ট ৯২ শতাংশ মানুষ। এই সংকট নিরসনে দ্রুত কার্যকরি পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন এ খাতের বিশেষজ্ঞরা। গতকাল রোববার বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ন্যাশনাল ট্রমাকাউন্সেলিং সেন্টার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ এবং বাংলাদেশ ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি সোসাইটির যৌথ উদ্যোগে ‘অসমবিশ্বে মানসিক স্বাস্থ্য’ শীর্ষক ওয়েবিনারে বক্তারা এ আহ্বান জানান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান জোবেদা খাতুনের সভাপতিত্বে ওয়েবিনারে বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, ঢাবির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল, ঢাবির ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের অধ্যাপক ও বাংলাদেশ ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি সোসাইটির সভাপতি ড. মোহম্মদ মাহমুদুর রহমান, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কল্পে মাল্টিসেক্টরাল প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক একেএম শামীম আক্তার প্রমুখ। সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম বলেন, মানসিক অসুস্থতা প্রতিরোধের জন্য অনেক কাজ করার সুযোগ রয়েছে। হতাশা, কর্মস্পৃহা, মানসিক চাপকে শিশুকাল হতে এ্যাড্রেস করা হলে এই অস্থিরতা, প্রতিযোগিতা ও বৈষম্য দূর করা সম্ভব।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল বলেন, করোনাকালে বৈষম্যহীনতা পরিষ্কারভাবেই বিশ্বজুড়ে ফুটে উঠেছে। যার প্রভাব আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দেখা গিয়েছিল এবং ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ সংকট উত্তরণের সেক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল।