এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন প্রকাশ

এবারের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা কেন্দ্রের তালিকা প্রকাশ করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। একই সঙ্গে এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজনের পদ্ধতিও প্রকাশ করেছে বোর্ড। করোনা সংক্রমণের কারণে প্রায় দেড় বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এবার সংক্ষিপ্ত পরিসরে এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে।

গত ১০ অক্টোবর এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন প্রকাশ করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড।

এবার এসএসসি ও এইচএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের প্রতি বিষয়ে ৩২ নম্বরের পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। এর মধ্যে রচনামূলক ২০ নম্বর ও নৈর্ব্যক্তিকে থাকবে ১২ নম্বর। মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের বসতে হবে ৪৫ নম্বরের পরীক্ষায়। এরমধ্যে ৩০ নম্বর রচনামূলক ও ১৫ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক পরীক্ষা নেয়া হবে। রচনামূলক ও নৈর্ব্যক্তিকের নম্বরকে ১০০ নম্বরে রূপান্তর করে প্রাপ্ত নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

এসএসসির নম্বর বিভাজন

ঢাকা শিক্ষা বোর্ড প্রকাশিত এসএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, উচ্চতর গণিত ও জীববিজ্ঞান বিষয়ের রচনামূলক অংশে শিক্ষার্থীদের মোট ৩২ নম্বরের পরীক্ষা হবে। এরমধ্যে রচনামূলক ২০ নম্বর ও নৈর্ব্যক্তিকে ১২ নম্বর থাকবে।

বিজ্ঞান বিভাগের বিষয়গুলোতে রচনামূলক অংশে ৮টি প্রশ্ন থাকবে, তবে যেকোন দুইটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে শিক্ষার্থীদের। নম্বর ১০ করে ২০। নৈর্ব্যক্তিকে ২৫টি প্রশ্নের মধ্যে ১২টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। নৈর্ব্যক্তিকে নম্বর ১২। এই ৩১ নম্বরে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের।

বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ২০ নম্বরকে ৫০ নম্বরে ও নৈর্ব্যক্তিকের ১২ নম্বরকে ১৫ নম্বরে রূপান্তর করে (কনভার্ট) শিক্ষার্থীদের মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

এসএসসির মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে মোট পরীক্ষার হবে ৪৫ নম্বরের। এর মধ্যে রচনামূলক অংশে ৩০ নম্বর ও নৈর্ব্যক্তিকে ১৫ নম্বরের পরীক্ষা হবে। রচনামূলক অংশে মোট ১১টি প্রশ্ন থাকবে, যার মধ্যে যেকোন তিনটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। প্রতিটির মান ১০ নম্বর। আর নৈর্ব্যক্তিকে ৩০টি প্রশ্ন থাকবে, তবে উত্তর দিতে হবে ১৫টি প্রশ্নের। প্রতিটি প্রশ্নের জন্য ১ নম্বর করে মোট নম্বর ১৫।

মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পরীক্ষার্থীদের ৩০ নম্বরকে ৭০ নম্বরে ও নৈর্ব্যক্তিকের ১৫ নম্বরকে ৩০ নম্বরে রূপান্তর করে মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে। প্রতিটি বিষয়ের পরীক্ষা হবে এক ঘণ্টা ৩০ মিনিট। এর মধ্যে রচনামূলকে এক ঘণ্টা ১৫ মিনিট ও নৈর্ব্যক্তিকের জন্য থাকবে ১৫ মিনিট।

এইচএসসির নম্বর বিভাজন

এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন পর্যালোচনায় দেখা যায়, বিজ্ঞান বিভাগের প্রতি বিষয়ে পরীক্ষা হবে মোট ৩২ নম্বরে। এরমধ্যে রচনামূলক ২০ ও নৈর্ব্যক্তিকে থাকবে ১২ নম্বর। রচনামূলক অংশে প্রতিটি পত্রে মোট ৮টি প্রশ্ন থাকবে, যার মধ্যে ২টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। প্রতিটিতে ১০ নম্বর। আর নৈর্ব্যক্তিকে ২৫টি প্রশ্ন থাকবে, যার মধ্যে উত্তর দিতে হবে ১২টির। প্রতিটির মান ১ নম্বর।

বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ২০ নম্বরকে ৫০ নম্বরে ও নৈর্ব্যক্তিকের ১২ নম্বরকে ১৫ নম্বরে রূপান্তর করে মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের প্রতিটি পত্রের মোট পরীক্ষা হবে ৪৫ নম্বরে। এর মধ্যে রচনামূলক ৩০ নম্বর এবং নৈর্ব্যক্তিকে থাকবে ১৫ নম্বর। রচনামূলক অংশে ১১টি প্রশ্ন থাকবে, তবে উত্তর দিতে হবে ৩টি প্রশ্নের। প্রতিটিতে ১০ নম্বর। আর নৈর্ব্যক্তিকে ৩০টি প্রশ্নের মধ্যে উত্তর করতে হবে ১৫টির। প্রতিটির মান ১ নম্বর।

মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের ৩০ নম্বরকে ৭০ নম্বরে ও নৈর্ব্যক্তিকের ১৫ নম্বরকে ৩০ নম্বরে রূপান্তর করে পরীক্ষার্থীদের মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

পরীক্ষা কেন্দ্রের তালিকা

এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা কেন্দ্রের তালিকা প্রকাশ করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। গতকাল বোর্ডের ওয়েবসাইটে এই তালিকা প্রকাশ করা হয়।

চলতি বছরের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা আগামী ১৪ নভেম্বর শুরু হবে। এসএসসির তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা শেষ হবে ২৩ নভেম্বর।

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ২ ডিসেম্বর। এই পরীক্ষা শেষ হবে ৩০ ডিসেম্বর।

মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর ২০২১ , ২৭ আশ্বিন ১৪২৮ ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন প্রকাশ

পরীক্ষা কেন্দ্রের তালিকা প্রকাশ

এবারের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা কেন্দ্রের তালিকা প্রকাশ করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। একই সঙ্গে এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজনের পদ্ধতিও প্রকাশ করেছে বোর্ড। করোনা সংক্রমণের কারণে প্রায় দেড় বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এবার সংক্ষিপ্ত পরিসরে এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে।

গত ১০ অক্টোবর এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন প্রকাশ করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড।

এবার এসএসসি ও এইচএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের প্রতি বিষয়ে ৩২ নম্বরের পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। এর মধ্যে রচনামূলক ২০ নম্বর ও নৈর্ব্যক্তিকে থাকবে ১২ নম্বর। মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের বসতে হবে ৪৫ নম্বরের পরীক্ষায়। এরমধ্যে ৩০ নম্বর রচনামূলক ও ১৫ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক পরীক্ষা নেয়া হবে। রচনামূলক ও নৈর্ব্যক্তিকের নম্বরকে ১০০ নম্বরে রূপান্তর করে প্রাপ্ত নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

এসএসসির নম্বর বিভাজন

ঢাকা শিক্ষা বোর্ড প্রকাশিত এসএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, উচ্চতর গণিত ও জীববিজ্ঞান বিষয়ের রচনামূলক অংশে শিক্ষার্থীদের মোট ৩২ নম্বরের পরীক্ষা হবে। এরমধ্যে রচনামূলক ২০ নম্বর ও নৈর্ব্যক্তিকে ১২ নম্বর থাকবে।

বিজ্ঞান বিভাগের বিষয়গুলোতে রচনামূলক অংশে ৮টি প্রশ্ন থাকবে, তবে যেকোন দুইটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে শিক্ষার্থীদের। নম্বর ১০ করে ২০। নৈর্ব্যক্তিকে ২৫টি প্রশ্নের মধ্যে ১২টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। নৈর্ব্যক্তিকে নম্বর ১২। এই ৩১ নম্বরে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের।

বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ২০ নম্বরকে ৫০ নম্বরে ও নৈর্ব্যক্তিকের ১২ নম্বরকে ১৫ নম্বরে রূপান্তর করে (কনভার্ট) শিক্ষার্থীদের মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

এসএসসির মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে মোট পরীক্ষার হবে ৪৫ নম্বরের। এর মধ্যে রচনামূলক অংশে ৩০ নম্বর ও নৈর্ব্যক্তিকে ১৫ নম্বরের পরীক্ষা হবে। রচনামূলক অংশে মোট ১১টি প্রশ্ন থাকবে, যার মধ্যে যেকোন তিনটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। প্রতিটির মান ১০ নম্বর। আর নৈর্ব্যক্তিকে ৩০টি প্রশ্ন থাকবে, তবে উত্তর দিতে হবে ১৫টি প্রশ্নের। প্রতিটি প্রশ্নের জন্য ১ নম্বর করে মোট নম্বর ১৫।

মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পরীক্ষার্থীদের ৩০ নম্বরকে ৭০ নম্বরে ও নৈর্ব্যক্তিকের ১৫ নম্বরকে ৩০ নম্বরে রূপান্তর করে মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে। প্রতিটি বিষয়ের পরীক্ষা হবে এক ঘণ্টা ৩০ মিনিট। এর মধ্যে রচনামূলকে এক ঘণ্টা ১৫ মিনিট ও নৈর্ব্যক্তিকের জন্য থাকবে ১৫ মিনিট।

এইচএসসির নম্বর বিভাজন

এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন পর্যালোচনায় দেখা যায়, বিজ্ঞান বিভাগের প্রতি বিষয়ে পরীক্ষা হবে মোট ৩২ নম্বরে। এরমধ্যে রচনামূলক ২০ ও নৈর্ব্যক্তিকে থাকবে ১২ নম্বর। রচনামূলক অংশে প্রতিটি পত্রে মোট ৮টি প্রশ্ন থাকবে, যার মধ্যে ২টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। প্রতিটিতে ১০ নম্বর। আর নৈর্ব্যক্তিকে ২৫টি প্রশ্ন থাকবে, যার মধ্যে উত্তর দিতে হবে ১২টির। প্রতিটির মান ১ নম্বর।

বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ২০ নম্বরকে ৫০ নম্বরে ও নৈর্ব্যক্তিকের ১২ নম্বরকে ১৫ নম্বরে রূপান্তর করে মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের প্রতিটি পত্রের মোট পরীক্ষা হবে ৪৫ নম্বরে। এর মধ্যে রচনামূলক ৩০ নম্বর এবং নৈর্ব্যক্তিকে থাকবে ১৫ নম্বর। রচনামূলক অংশে ১১টি প্রশ্ন থাকবে, তবে উত্তর দিতে হবে ৩টি প্রশ্নের। প্রতিটিতে ১০ নম্বর। আর নৈর্ব্যক্তিকে ৩০টি প্রশ্নের মধ্যে উত্তর করতে হবে ১৫টির। প্রতিটির মান ১ নম্বর।

মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের ৩০ নম্বরকে ৭০ নম্বরে ও নৈর্ব্যক্তিকের ১৫ নম্বরকে ৩০ নম্বরে রূপান্তর করে পরীক্ষার্থীদের মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

পরীক্ষা কেন্দ্রের তালিকা

এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা কেন্দ্রের তালিকা প্রকাশ করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। গতকাল বোর্ডের ওয়েবসাইটে এই তালিকা প্রকাশ করা হয়।

চলতি বছরের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা আগামী ১৪ নভেম্বর শুরু হবে। এসএসসির তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা শেষ হবে ২৩ নভেম্বর।

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ২ ডিসেম্বর। এই পরীক্ষা শেষ হবে ৩০ ডিসেম্বর।