শেয়ারবাজারে বড় পতন, একদিনে কমলো সাড়ে ৬৫ পয়েন্ট

সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস গতকাল বড় পতন হয়েছে শেয়ারবাজারে। এই নিয়ে টানা তিন কার্যদিবস পতন হয়েছে শেয়ারবাজারে। এদিন শেয়ারবাজারের সব সূচক কমেছে। একই সাথে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। তবে টাকার পরিমাণে লেনদেন কিছুটা বেড়েছে।

গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৬৫.৫৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ২৪৮.৪৪ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২৪.৪৪ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৩২.৩১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৫৬৬.৬০ পয়েন্টে এবং দুই হাজার ৭১৭.৫৯ পয়েন্টে। ডিএসইতে গতকাল এক হাজার ৯৫২ কোটি ৯৯ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের কার্যদিবস থেকে ৮৯ কোটি ১৯ লাখ টাকা বেশি। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৮৬৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা।

ডিএসইতে গতকাল ৩৭৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১০৬টির বা ২৮.১৯ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ২৪১টির বা ৬৪.১০ শতাংশের এবং ২৯টির বা ৭.৭১ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৯৮.০৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২১ হাজার ১৬২.৭৮ পয়েন্টে। সিএসইতে গতকাল ৩১৫টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮৭টির দর বেড়েছে, কমেছে ২০২টির আর ২৬টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ৬১ কোটি ৫০ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ডিএসইর ব্লক মার্কেটে ২৫টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ৭১ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে চারটির লেনদেন ৫৮ কোটি টাকার বেশি। কোম্পানিগুলোর ৮৩ লাখ ৭৯ হাজার ২৪৬টি শেয়ার ৫০ বার হাত বদলের মাধ্যমে ৭০ কোটি ৯৪ লাখ ৭৫ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ২৭ কোটি ২৭ লাখ ৫২ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে ফরজুন সুজের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৩ কোটি ৪০ লাখ টাকার পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্সের, তৃতীয় সর্বোচ্চ ৯ কোটি ৭৭ লাখ ২১ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে জেনেক্সের এবং চতুর্থ সর্বোচ্চ ৮ কোটি ১৯ লাখ ৮২ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে সোনালী পেপারের।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ১০৬টির বা ২৮.১৯ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। আগের কার্যদিবসের মতো গতকালও এনআরবিসি ব্যাংকের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি। আগের কার্যদিবস এনআরবিসি ব্যাংকের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ২৭.১০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়িয়েছে ২৯.৮০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ২.৭০ টাকা বা ৯.৯৬ শতাংশ বেড়েছে। এর মাধ্যমে এনআরবিসি ব্যাংক ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন গেইনার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের ৯.৮৮ শতাংশ, জনতা ইন্স্যুরেন্সের ৮.১২ শতাংশ, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্সের ৭.৮৭ শতাংশ, জিকিউ বলপেনের ৭.১২ শতাংশ, নর্দার্ন ইসলামী ইন্স্যুরেন্সের ৬.২৯ শতাংশ, ঢাকা ডাইংয়ের ৫.৯৩ শতাংশ, জেনেক্সের ৫.৪৬ শতাংশ, প্রাইম ইন্স্যুরেন্সের ৫.০৬ শতাংশ এবং পূরবী জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার দর ৫.০৬ শতাংশ বেড়েছে।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ২৪১টির বা ৬৪.১০ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইংয়ের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের অনাগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি। আগের কার্যদিবস ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইংয়ের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ২৩ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়িয়েছে ২১.৩০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ১.৭০ টাকা বা ৭.৩৯ শতাংশ কমেছে। এর মাধ্যমে ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইং ডিএসইর টপটেন লুজার তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন লুজার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে তুংহাই নিটিংয়ের ৭.০৪ শতাংশ, ইন্দো-বাংলা ফার্মার ৬.০১ শতাংশ, লাফার্জহোলসিমের ৫.৮৭ শতাংশ, দেশ গার্মেন্টসের ৫.৫১ শতাংশ, পাওয়ার গ্রীডের ৫.৪৯ শতাংশ, এসিআই ফর্মূলেশনের ৫.৪৬ শতাংশ, মেট্রো স্পিনিংয়ের ৫.৩০ শতাংশ, মতিন স্পিনিংয়ের ৫.১৪ শতাংশ এবং এইচআর টেক্সটাইলের শেয়ার দর ৫.১৩ শতাংশ কমেছে।

বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২১ , ২৯ আশ্বিন ১৪২৮ ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

শেয়ারবাজারে বড় পতন, একদিনে কমলো সাড়ে ৬৫ পয়েন্ট

সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস গতকাল বড় পতন হয়েছে শেয়ারবাজারে। এই নিয়ে টানা তিন কার্যদিবস পতন হয়েছে শেয়ারবাজারে। এদিন শেয়ারবাজারের সব সূচক কমেছে। একই সাথে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। তবে টাকার পরিমাণে লেনদেন কিছুটা বেড়েছে।

গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৬৫.৫৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ২৪৮.৪৪ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২৪.৪৪ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৩২.৩১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৫৬৬.৬০ পয়েন্টে এবং দুই হাজার ৭১৭.৫৯ পয়েন্টে। ডিএসইতে গতকাল এক হাজার ৯৫২ কোটি ৯৯ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের কার্যদিবস থেকে ৮৯ কোটি ১৯ লাখ টাকা বেশি। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৮৬৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা।

ডিএসইতে গতকাল ৩৭৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১০৬টির বা ২৮.১৯ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ২৪১টির বা ৬৪.১০ শতাংশের এবং ২৯টির বা ৭.৭১ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৯৮.০৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২১ হাজার ১৬২.৭৮ পয়েন্টে। সিএসইতে গতকাল ৩১৫টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮৭টির দর বেড়েছে, কমেছে ২০২টির আর ২৬টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ৬১ কোটি ৫০ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ডিএসইর ব্লক মার্কেটে ২৫টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ৭১ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে চারটির লেনদেন ৫৮ কোটি টাকার বেশি। কোম্পানিগুলোর ৮৩ লাখ ৭৯ হাজার ২৪৬টি শেয়ার ৫০ বার হাত বদলের মাধ্যমে ৭০ কোটি ৯৪ লাখ ৭৫ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ২৭ কোটি ২৭ লাখ ৫২ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে ফরজুন সুজের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৩ কোটি ৪০ লাখ টাকার পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্সের, তৃতীয় সর্বোচ্চ ৯ কোটি ৭৭ লাখ ২১ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে জেনেক্সের এবং চতুর্থ সর্বোচ্চ ৮ কোটি ১৯ লাখ ৮২ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে সোনালী পেপারের।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ১০৬টির বা ২৮.১৯ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। আগের কার্যদিবসের মতো গতকালও এনআরবিসি ব্যাংকের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি। আগের কার্যদিবস এনআরবিসি ব্যাংকের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ২৭.১০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়িয়েছে ২৯.৮০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ২.৭০ টাকা বা ৯.৯৬ শতাংশ বেড়েছে। এর মাধ্যমে এনআরবিসি ব্যাংক ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন গেইনার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের ৯.৮৮ শতাংশ, জনতা ইন্স্যুরেন্সের ৮.১২ শতাংশ, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্সের ৭.৮৭ শতাংশ, জিকিউ বলপেনের ৭.১২ শতাংশ, নর্দার্ন ইসলামী ইন্স্যুরেন্সের ৬.২৯ শতাংশ, ঢাকা ডাইংয়ের ৫.৯৩ শতাংশ, জেনেক্সের ৫.৪৬ শতাংশ, প্রাইম ইন্স্যুরেন্সের ৫.০৬ শতাংশ এবং পূরবী জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার দর ৫.০৬ শতাংশ বেড়েছে।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ২৪১টির বা ৬৪.১০ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইংয়ের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের অনাগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি। আগের কার্যদিবস ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইংয়ের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ২৩ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়িয়েছে ২১.৩০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ১.৭০ টাকা বা ৭.৩৯ শতাংশ কমেছে। এর মাধ্যমে ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইং ডিএসইর টপটেন লুজার তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন লুজার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে তুংহাই নিটিংয়ের ৭.০৪ শতাংশ, ইন্দো-বাংলা ফার্মার ৬.০১ শতাংশ, লাফার্জহোলসিমের ৫.৮৭ শতাংশ, দেশ গার্মেন্টসের ৫.৫১ শতাংশ, পাওয়ার গ্রীডের ৫.৪৯ শতাংশ, এসিআই ফর্মূলেশনের ৫.৪৬ শতাংশ, মেট্রো স্পিনিংয়ের ৫.৩০ শতাংশ, মতিন স্পিনিংয়ের ৫.১৪ শতাংশ এবং এইচআর টেক্সটাইলের শেয়ার দর ৫.১৩ শতাংশ কমেছে।