এক ঘণ্টার ‘ডিসি’ স্কুলছাত্রী রিমি

ভোলার দশম শ্রেণীর ছাত্রী তাসনিম আজিজ রিমি ভবিষ্যতে জেলা প্রশাসক (ডিসি) হওয়ার স্বপ্ন লালন করছে। ডিসি অথবা এসপি এমন মর্যাদার কর্মকর্তা তার হতেই হবে। আর এ জন্য চাই পড়ালেখা ও জ্ঞানার্জন। বুধবার এক ঘণ্টার জন্য প্রতীকী জেলা প্রশাসকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল রিমিকে। গেল বছরও রিমি এক ঘণ্টার জন্য পুলিশ সুপার (এসপি) হয়ে ছিলেন।

একজন নারী বা যুবাকে এগিয়ে নেয়ার স্বপ্ন বাস্তবাতয়নের জন্য এমন উদ্যোগ গ্রহণ করে জেলা এনসিটিএফ। দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত প্রতীকী জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ করে দেন জেলা প্রশাসক মো. তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী । তার কাছ থেকে প্রতীকী দায়িত্ব গ্রহণ করেন ভোলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এই শিক্ষার্থী। দায়িত্ব নেয়ার পর তাকে জেলা প্রশাসকের পাশপাশি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করা হয়। তারপর আয়োজিত আলোচনা সভার দায়িত্বও পালন করেন রিমি। দায়িত্ব নিয়েই ভোলাকে শিশু ও নারী বান্ধব জেলা ও সাইবার বুলিং নির্মূল করার কথা জানান। বাল্যবিয়ে নিরোধের ব্যবস্থা, ইভটিজিং, ধর্ষণ, নারী নির্যাতন বন্ধে সুপারিশমালা পেশ করেন। পরে ওই প্রস্তাব বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন জেলা প্রশাসক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সুজিত হাওলাদার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মামুন আল ফারুক, জেলা তথ্য অফিসার মো. নুরুল আমিন, ভোলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ মাহমুদ খান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান, জেলা শিশুবিষয়ক কর্মকর্তা আক্তার হোসেন, ভোলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শারমিন জাহান শ্যামলী উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন এনসিটিএফ ভোলা জেলা সমন্বয়কারী সাংবাদিক আদিল হোসেন তপু। জেলা প্রশাসক তৌফিক-ইলাহী চৌধুরী বলেন, বর্তমানে দেশের সরকার প্রধান নারী, বিরোধীদলীয় নেত্রী নারী, জাতীয় সংসদের স্পিকারও এক জন নারী। সে ক্ষেত্রে প্রান্তিক গ্রামাঞ্চলের নারী ও কিশোরীরা অনেক পিছিয়ে আছে। তাসনিম আজিজ রিমি ওই কিশোরীদের আইকন হিসেবে পরিচিত পাবে। এর আগে রিমি ২০২০ সালের ২৮ অক্টোবর এক ঘণ্টার জন্য প্রতীকী পুলিশ সুপারের দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২১ , ২৯ আশ্বিন ১৪২৮ ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

এক ঘণ্টার ‘ডিসি’ স্কুলছাত্রী রিমি

image

ভোলার দশম শ্রেণীর ছাত্রী তাসনিম আজিজ রিমি ভবিষ্যতে জেলা প্রশাসক (ডিসি) হওয়ার স্বপ্ন লালন করছে। ডিসি অথবা এসপি এমন মর্যাদার কর্মকর্তা তার হতেই হবে। আর এ জন্য চাই পড়ালেখা ও জ্ঞানার্জন। বুধবার এক ঘণ্টার জন্য প্রতীকী জেলা প্রশাসকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল রিমিকে। গেল বছরও রিমি এক ঘণ্টার জন্য পুলিশ সুপার (এসপি) হয়ে ছিলেন।

একজন নারী বা যুবাকে এগিয়ে নেয়ার স্বপ্ন বাস্তবাতয়নের জন্য এমন উদ্যোগ গ্রহণ করে জেলা এনসিটিএফ। দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত প্রতীকী জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ করে দেন জেলা প্রশাসক মো. তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী । তার কাছ থেকে প্রতীকী দায়িত্ব গ্রহণ করেন ভোলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এই শিক্ষার্থী। দায়িত্ব নেয়ার পর তাকে জেলা প্রশাসকের পাশপাশি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করা হয়। তারপর আয়োজিত আলোচনা সভার দায়িত্বও পালন করেন রিমি। দায়িত্ব নিয়েই ভোলাকে শিশু ও নারী বান্ধব জেলা ও সাইবার বুলিং নির্মূল করার কথা জানান। বাল্যবিয়ে নিরোধের ব্যবস্থা, ইভটিজিং, ধর্ষণ, নারী নির্যাতন বন্ধে সুপারিশমালা পেশ করেন। পরে ওই প্রস্তাব বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন জেলা প্রশাসক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সুজিত হাওলাদার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মামুন আল ফারুক, জেলা তথ্য অফিসার মো. নুরুল আমিন, ভোলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ মাহমুদ খান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান, জেলা শিশুবিষয়ক কর্মকর্তা আক্তার হোসেন, ভোলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শারমিন জাহান শ্যামলী উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন এনসিটিএফ ভোলা জেলা সমন্বয়কারী সাংবাদিক আদিল হোসেন তপু। জেলা প্রশাসক তৌফিক-ইলাহী চৌধুরী বলেন, বর্তমানে দেশের সরকার প্রধান নারী, বিরোধীদলীয় নেত্রী নারী, জাতীয় সংসদের স্পিকারও এক জন নারী। সে ক্ষেত্রে প্রান্তিক গ্রামাঞ্চলের নারী ও কিশোরীরা অনেক পিছিয়ে আছে। তাসনিম আজিজ রিমি ওই কিশোরীদের আইকন হিসেবে পরিচিত পাবে। এর আগে রিমি ২০২০ সালের ২৮ অক্টোবর এক ঘণ্টার জন্য প্রতীকী পুলিশ সুপারের দায়িত্ব পালন করেছিলেন।