ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় নুরকে অব্যাহতি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরকে অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত। গতকাল ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস সামছ জগলুল হোসেন তদন্ত প্রতিবেদন গ্রহণ করে অব্যাহতির এ আদেশ দেন।

এরআগে গত ৩ অক্টোবর ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে নুরের বিরুদ্ধে কোন অপরাধের প্রমাণ পায়নি বলে প্রতিবেদন দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফরিদা পারভীন লিয়া। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন, নুরের ফেইসবুক আইডি ডিজিটাল ফরেনসিক টিমের মাধ্যমে পরীক্ষা করে মতামত নেয়া হয়। পর্যালোচনায় দেখা যায়, নুরুল হক ২০২০ সালের ১১ অক্টোবর বাদীকে উদ্দেশ করে ‘ছি! আমরা ধিক্কার জানাই। এত নাটক যে করছে সে দুশ্চরিত্রাহীন। ধর্ষণের নাটক করছে স্বেচ্ছায় একটি ছেলের সঙ্গে বিছানায় গিয়ে’ নামে যে বক্তব্যটি প্রচার করেছেন বলা হয়েছে, এমন কোন বক্তব্য তার ফেইসবুকে পাওয়া যায়নি। গত বছরের ১৪ অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের এক শিক্ষার্থী আদালতে মামলাটি করেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দেন। মামলায় অভিযোগ করা হয়, নুরুল হক নুর তার ফেইসবুক আইডি থেকে ভিডিও প্রকাশ করেন। সেখানে তিনি বাদীকে ‘দুশ্চরিত্রহীন’ বলেন। ভিডিওতে বাদীর জন্য অপমানজনক, মানহানিকর এবং আক্রমণাত্মক তথ্য প্রকাশ করেন নুর, যা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

একই ছাত্রী নুরদের বিরুদ্ধে রাজধানীর কোতয়ালী ও লালবাগ থানায় ধর্ষণের দুটি মামলা করেছিলেন।

ওই দুই মামলায়ও নুরের বিষয়ে কোন অভিযোগ পায়নি মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।

বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২১ , ২৯ আশ্বিন ১৪২৮ ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় নুরকে অব্যাহতি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরকে অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত। গতকাল ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস সামছ জগলুল হোসেন তদন্ত প্রতিবেদন গ্রহণ করে অব্যাহতির এ আদেশ দেন।

এরআগে গত ৩ অক্টোবর ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে নুরের বিরুদ্ধে কোন অপরাধের প্রমাণ পায়নি বলে প্রতিবেদন দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফরিদা পারভীন লিয়া। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন, নুরের ফেইসবুক আইডি ডিজিটাল ফরেনসিক টিমের মাধ্যমে পরীক্ষা করে মতামত নেয়া হয়। পর্যালোচনায় দেখা যায়, নুরুল হক ২০২০ সালের ১১ অক্টোবর বাদীকে উদ্দেশ করে ‘ছি! আমরা ধিক্কার জানাই। এত নাটক যে করছে সে দুশ্চরিত্রাহীন। ধর্ষণের নাটক করছে স্বেচ্ছায় একটি ছেলের সঙ্গে বিছানায় গিয়ে’ নামে যে বক্তব্যটি প্রচার করেছেন বলা হয়েছে, এমন কোন বক্তব্য তার ফেইসবুকে পাওয়া যায়নি। গত বছরের ১৪ অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের এক শিক্ষার্থী আদালতে মামলাটি করেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দেন। মামলায় অভিযোগ করা হয়, নুরুল হক নুর তার ফেইসবুক আইডি থেকে ভিডিও প্রকাশ করেন। সেখানে তিনি বাদীকে ‘দুশ্চরিত্রহীন’ বলেন। ভিডিওতে বাদীর জন্য অপমানজনক, মানহানিকর এবং আক্রমণাত্মক তথ্য প্রকাশ করেন নুর, যা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

একই ছাত্রী নুরদের বিরুদ্ধে রাজধানীর কোতয়ালী ও লালবাগ থানায় ধর্ষণের দুটি মামলা করেছিলেন।

ওই দুই মামলায়ও নুরের বিষয়ে কোন অভিযোগ পায়নি মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।