খালেদার চিকিৎসার সঙ্গে রাজনীতিকে না মেলানোর আহ্বান মির্জা ফখরুলের

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করুন। এর সঙ্গে রাজনীতিকে নিয়ে আসবেন না। তাকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলা সাজিয়ে আটক করে রাখা হয়েছে। এর ফলে তার শরীরে অনেকগুলো ব্যাধির সৃষ্টি হয়েছে। সেখানে সুচিকিৎসার সুযোগ ছিল না। চিকিৎসা না দেয়ার কারণে আজকে তার অনেক রোগ দেখা দিয়েছে।’

গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী’র ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা জানি, আমাদের নেত্রী এ দেশের কোটি মানুষের কত কাছের মানুষ। একজন রিকশাওয়ালাকে জিজ্ঞেস করেন, তিনি বলবেন, আল্লাহ খালেদা জিয়াকে সুস্থ করে দেন। শ্রমিককে গিয়ে জিজ্ঞেস করেন, তিনি বলবেন আল্লাহ বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তির ব্যবস্থা করে দেন।’

তিনি বলেন, ‘এভার কেয়ারের চিকিৎসকরা প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন। ইতোমধ্যে তারা তাকে সুস্থ করে বাসায় পাঠিয়েছিলেন। আবারও তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বর্তমানে তার বাইরে চিকিৎসা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন, ডাক্তাররাই এ কথা বলছেন।

বলছেন, তাকে বিদেশে পাঠালে তিনি সুস্থ হবেন। এ কথা বার বার বলা হয়েছে, সবাই বলছেন, কিন্তু আওয়ামী লীগ এবং আওয়ামী লীগের নেত্রী তিনি কোনভাবেই সেটি গ্রহণ করছেন না।’

খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক অবদানের কথা উল্লেখ করে বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার যে অবদান, সেই অবদান বাংলাদেশের জীবিত কোনও রাজনীতিবিদের নেই। নেত্রীকে বাঁচানোর জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালাবো।’

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, শামসুজ্জামান দুদু, ঢাকা উত্তর কমিটির আহ্বায়ক আমানুল্লাহ আমান, বিএনপির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ অনেকে।

শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর ২০২১ , ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

খালেদার চিকিৎসার সঙ্গে রাজনীতিকে না মেলানোর আহ্বান মির্জা ফখরুলের

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করুন। এর সঙ্গে রাজনীতিকে নিয়ে আসবেন না। তাকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলা সাজিয়ে আটক করে রাখা হয়েছে। এর ফলে তার শরীরে অনেকগুলো ব্যাধির সৃষ্টি হয়েছে। সেখানে সুচিকিৎসার সুযোগ ছিল না। চিকিৎসা না দেয়ার কারণে আজকে তার অনেক রোগ দেখা দিয়েছে।’

গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী’র ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা জানি, আমাদের নেত্রী এ দেশের কোটি মানুষের কত কাছের মানুষ। একজন রিকশাওয়ালাকে জিজ্ঞেস করেন, তিনি বলবেন, আল্লাহ খালেদা জিয়াকে সুস্থ করে দেন। শ্রমিককে গিয়ে জিজ্ঞেস করেন, তিনি বলবেন আল্লাহ বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তির ব্যবস্থা করে দেন।’

তিনি বলেন, ‘এভার কেয়ারের চিকিৎসকরা প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন। ইতোমধ্যে তারা তাকে সুস্থ করে বাসায় পাঠিয়েছিলেন। আবারও তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বর্তমানে তার বাইরে চিকিৎসা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন, ডাক্তাররাই এ কথা বলছেন।

বলছেন, তাকে বিদেশে পাঠালে তিনি সুস্থ হবেন। এ কথা বার বার বলা হয়েছে, সবাই বলছেন, কিন্তু আওয়ামী লীগ এবং আওয়ামী লীগের নেত্রী তিনি কোনভাবেই সেটি গ্রহণ করছেন না।’

খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক অবদানের কথা উল্লেখ করে বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার যে অবদান, সেই অবদান বাংলাদেশের জীবিত কোনও রাজনীতিবিদের নেই। নেত্রীকে বাঁচানোর জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালাবো।’

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, শামসুজ্জামান দুদু, ঢাকা উত্তর কমিটির আহ্বায়ক আমানুল্লাহ আমান, বিএনপির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ অনেকে।