পুলিশের জন্য হেলিকপ্টার কেনা হচ্ছে রাশিয়া থেকে

পুলিশের জন্য হেলিকপ্টার কেনা হচ্ছে রাশিয়া থেকে। রাশিয়ার জেএসসি হেলিকপ্টার তৈরি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে দুটি হেলিকপ্টার কেনার আনুষ্ঠানিক চুক্তি সাক্ষর হয়েছে গতকাল। পুলিশ সদর দপ্তরে ওই চুক্তি সাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

পুলিশ সদর দপ্তর সূত্র জানিয়েছে, বাংলাদেশ পুলিশের অপারেশনাল কার্যক্রমসহ জরুরি প্রয়োজনে হেলিকপ্টার যুক্ত করার দাবি ছিল দীর্ঘদিনের। আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব¡াধীন দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার ক্ষমতায় আসার পর পুলিশ সদর দপ্তরের প্রস্তাবনায় পুলিশের অপরেশনাল কাজের জন্য হেলিকপ্টার চাওয়া হয়। এ জন্য সম্ভাব্য বাজেটও চাওয়া হয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাবনা পাঠানো হলেও সাবেক অর্থ মন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বিরোধীতার কারণে শেষ পর্যন্ত হেলিকপ্টার কেনা হয়নি পুলিশের। তবে শেষ পর্যন্ত পুলিশের জন্য হেলিকপ্টার কেনা হচ্ছে রাশিয়া থেকে।

পুলিশ সদর দপ্তর থেকে জানা গেছে, পুলিশের জন্য দুটি নতুন হেলিকপ্টার কিনতে গতকাল সদর দপ্তরের ‘হল অব প্রাইডে’ চুক্তিটি স্বাক্ষর হয়। চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ এবং জেএসসি রাশিয়ান হেলিকপ্টার্সের মহাপরিচালক আন্দ্রি বাগিনস্কি ভার্চুয়ালি নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

জননিরাপত্তা বিধান এবং দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বাংলাদেশ পুলিশের সক্ষমতা ও দক্ষতা আরও বৃদ্ধির লক্ষ্যে জেএসসি রাশিয়ান হেলিকপ্টার্স থেকে দুটি এমআই-১৭১এ২ হেলিকপ্টার কেনার চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন, বাংলাদেশে নিযুক্ত রাশিয়ান অ্যাম্বাসেডার আলেক্সান্ডার মানতায়েস্কি, বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত আইজি ও পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

শনিবার, ২০ নভেম্বর ২০২১ , ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

পুলিশের জন্য হেলিকপ্টার কেনা হচ্ছে রাশিয়া থেকে

পুলিশের জন্য হেলিকপ্টার কেনা হচ্ছে রাশিয়া থেকে। রাশিয়ার জেএসসি হেলিকপ্টার তৈরি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে দুটি হেলিকপ্টার কেনার আনুষ্ঠানিক চুক্তি সাক্ষর হয়েছে গতকাল। পুলিশ সদর দপ্তরে ওই চুক্তি সাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

পুলিশ সদর দপ্তর সূত্র জানিয়েছে, বাংলাদেশ পুলিশের অপারেশনাল কার্যক্রমসহ জরুরি প্রয়োজনে হেলিকপ্টার যুক্ত করার দাবি ছিল দীর্ঘদিনের। আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব¡াধীন দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার ক্ষমতায় আসার পর পুলিশ সদর দপ্তরের প্রস্তাবনায় পুলিশের অপরেশনাল কাজের জন্য হেলিকপ্টার চাওয়া হয়। এ জন্য সম্ভাব্য বাজেটও চাওয়া হয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাবনা পাঠানো হলেও সাবেক অর্থ মন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বিরোধীতার কারণে শেষ পর্যন্ত হেলিকপ্টার কেনা হয়নি পুলিশের। তবে শেষ পর্যন্ত পুলিশের জন্য হেলিকপ্টার কেনা হচ্ছে রাশিয়া থেকে।

পুলিশ সদর দপ্তর থেকে জানা গেছে, পুলিশের জন্য দুটি নতুন হেলিকপ্টার কিনতে গতকাল সদর দপ্তরের ‘হল অব প্রাইডে’ চুক্তিটি স্বাক্ষর হয়। চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ এবং জেএসসি রাশিয়ান হেলিকপ্টার্সের মহাপরিচালক আন্দ্রি বাগিনস্কি ভার্চুয়ালি নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

জননিরাপত্তা বিধান এবং দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বাংলাদেশ পুলিশের সক্ষমতা ও দক্ষতা আরও বৃদ্ধির লক্ষ্যে জেএসসি রাশিয়ান হেলিকপ্টার্স থেকে দুটি এমআই-১৭১এ২ হেলিকপ্টার কেনার চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন, বাংলাদেশে নিযুক্ত রাশিয়ান অ্যাম্বাসেডার আলেক্সান্ডার মানতায়েস্কি, বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত আইজি ও পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।