বড় পতন শেয়ারবাজারে, একদিনে কমলো ৬৩ পয়েন্ট

আগের কার্যদিবসের মতো সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস গতকাল পতনে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। আগের কার্যদিবস সামান্য পতন হলেও গতকাল বড় পতন হয়েছে শেয়ারবাজারে। শেয়ারবাজারের সব সূচকের সঙ্গে কমেছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর এবং টাকার পরিমাণে লেনদেনও।

গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৬৩.৩৭ পয়েন্ট বা ০.৮৯ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ২২.২৯ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৪.২৯ বা ০.২৯ শতাংশ এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৬.৮৫ পয়েন্ট বা ০.৬২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৪৭০.৯৭ পয়েন্টে এবং দুই হাজার ৬৬৬.৯৯ পয়েন্টে।

ডিএসইতে গতকাল এক হাজার ২২৬ কোটি ৪ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে যা আগের কার্যদিবস থেকে ৫৬০ কোটি ২৩ লাখ টাকা কম। আগের কার্যদিবস লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৭৮৫ কোটি ৮২ লাখ টাকার।

ডিএসইতে গতকাল ৩৫৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১০৪টির বা ২৮.৯৭ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ২১৬টির বা ৬০.১৭ শতাংশের এবং ৩৯টির বা ১০.৮৬ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৮০.৫৪ পয়েন্ট বা ০.৮৭ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৫৩৮.৫৪ পয়েন্টে। সিএসইতে গতকাল ২৮৭টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১০০টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৬১টির আর ২৬টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ৪২ কোটি ৯৯ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ডিএসই’র ব্লক মার্কেটে ৩৮টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ৬৮ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর ১ কোটি ৮১ লাখ ৮১৭টি শেয়ার ৭২ বার হাত বদলের মাধ্যমে ৬৭ কোটি ৮৩ লাখ ৩৮ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ১৮ কোটি ৮৫ লাখ ১৩ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে ওয়ান ব্যাংকের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১১ কোটি ৫০ হাজার টাকার সোনালী পেপারের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ৭ কোটি ৮৪ লাখ ৪২ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে জেনেক্স ইনফোসিসের।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ২১৬টির বা ৬০.১৭ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে কোহিনুর কেমিক্যালের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের অনাগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি।

আগের কার্যদিবস কোহিনুর কেমিক্যালের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ৪৭৮.৭০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়িয়েছে ৪১৫.৩০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ৬৩.৪০ টাকা বা ১৩.২৪ শতাংশ কমেছে। এর মাধ্যমে কোহিনুর কেমিক্যাল ডিএসইর টপটেন লুজার তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন লুজার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে রিজেন্ট টেক্সটাইলের ১২.৭২ শতাংশ, আরামিট সিমেন্টের ৯.৭৩ শতাংশ, স্টাইলক্রাফটের ৭.৯৩ শতাংশ, এনআরবিসি ব্যাংকের ৭.৮৬ শতাংশ, মিথুন নিটিংয়ের ৭.৭৫ শতাংশ, ইয়াকিন পলিমারের ৭.৫৪ শতাংশ, ইন্দো-বাংলা ফার্মার ৬.৫৯ শতাংশ এবং বিআইএফসির শেয়ার দর ৬.৪৯ শতাংশ কমেছে।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ১০৪টির বা ২৮.৯৭ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে সেনা কল্যাণ ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি। আগের কার্যদিবস সেনা কল্যাণ ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ২৮.১০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়িয়েছে ৩০.৯০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ২.৮০ টাকা বা ৯.৯৭ শতাংশ বেড়েছে। এর মাধ্যমে সেনা কল্যাণ ইন্স্যুরেন্স ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন গেইনার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে একমি পেস্টিসাইডসের ৯.৬৫ শতাংশ, কাট্টালি টেক্সটাইলের ৯.৪৮ শতাংশ, আমান ফিডের ৮.১০ শতাংশ, ওয়ান ব্যাংকের ৬.৮৩ শতাংশ, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইলের ৬.৭৪ শতাংশ, স্যোসাল ইসলামী ব্যাংকের ৫.৫৫ শতাংশ, ফু-ওয়াং ফুডের ৫.২২ শতাংশ, আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের ৪.৬৯ শতাংশ এবং রহিম টেক্সটাইলের শেয়ার দর ৪.৪৫ শতাংশ বেড়েছে।

মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর ২০২১ , ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

বড় পতন শেয়ারবাজারে, একদিনে কমলো ৬৩ পয়েন্ট

image

আগের কার্যদিবসের মতো সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস গতকাল পতনে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। আগের কার্যদিবস সামান্য পতন হলেও গতকাল বড় পতন হয়েছে শেয়ারবাজারে। শেয়ারবাজারের সব সূচকের সঙ্গে কমেছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর এবং টাকার পরিমাণে লেনদেনও।

গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৬৩.৩৭ পয়েন্ট বা ০.৮৯ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ২২.২৯ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৪.২৯ বা ০.২৯ শতাংশ এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৬.৮৫ পয়েন্ট বা ০.৬২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৪৭০.৯৭ পয়েন্টে এবং দুই হাজার ৬৬৬.৯৯ পয়েন্টে।

ডিএসইতে গতকাল এক হাজার ২২৬ কোটি ৪ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে যা আগের কার্যদিবস থেকে ৫৬০ কোটি ২৩ লাখ টাকা কম। আগের কার্যদিবস লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৭৮৫ কোটি ৮২ লাখ টাকার।

ডিএসইতে গতকাল ৩৫৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১০৪টির বা ২৮.৯৭ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ২১৬টির বা ৬০.১৭ শতাংশের এবং ৩৯টির বা ১০.৮৬ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৮০.৫৪ পয়েন্ট বা ০.৮৭ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৫৩৮.৫৪ পয়েন্টে। সিএসইতে গতকাল ২৮৭টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১০০টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৬১টির আর ২৬টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ৪২ কোটি ৯৯ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ডিএসই’র ব্লক মার্কেটে ৩৮টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ৬৮ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর ১ কোটি ৮১ লাখ ৮১৭টি শেয়ার ৭২ বার হাত বদলের মাধ্যমে ৬৭ কোটি ৮৩ লাখ ৩৮ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ১৮ কোটি ৮৫ লাখ ১৩ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে ওয়ান ব্যাংকের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১১ কোটি ৫০ হাজার টাকার সোনালী পেপারের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ৭ কোটি ৮৪ লাখ ৪২ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে জেনেক্স ইনফোসিসের।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ২১৬টির বা ৬০.১৭ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে কোহিনুর কেমিক্যালের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের অনাগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি।

আগের কার্যদিবস কোহিনুর কেমিক্যালের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ৪৭৮.৭০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়িয়েছে ৪১৫.৩০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ৬৩.৪০ টাকা বা ১৩.২৪ শতাংশ কমেছে। এর মাধ্যমে কোহিনুর কেমিক্যাল ডিএসইর টপটেন লুজার তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন লুজার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে রিজেন্ট টেক্সটাইলের ১২.৭২ শতাংশ, আরামিট সিমেন্টের ৯.৭৩ শতাংশ, স্টাইলক্রাফটের ৭.৯৩ শতাংশ, এনআরবিসি ব্যাংকের ৭.৮৬ শতাংশ, মিথুন নিটিংয়ের ৭.৭৫ শতাংশ, ইয়াকিন পলিমারের ৭.৫৪ শতাংশ, ইন্দো-বাংলা ফার্মার ৬.৫৯ শতাংশ এবং বিআইএফসির শেয়ার দর ৬.৪৯ শতাংশ কমেছে।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ১০৪টির বা ২৮.৯৭ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে সেনা কল্যাণ ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি। আগের কার্যদিবস সেনা কল্যাণ ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ২৮.১০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়িয়েছে ৩০.৯০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ২.৮০ টাকা বা ৯.৯৭ শতাংশ বেড়েছে। এর মাধ্যমে সেনা কল্যাণ ইন্স্যুরেন্স ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন গেইনার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে একমি পেস্টিসাইডসের ৯.৬৫ শতাংশ, কাট্টালি টেক্সটাইলের ৯.৪৮ শতাংশ, আমান ফিডের ৮.১০ শতাংশ, ওয়ান ব্যাংকের ৬.৮৩ শতাংশ, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইলের ৬.৭৪ শতাংশ, স্যোসাল ইসলামী ব্যাংকের ৫.৫৫ শতাংশ, ফু-ওয়াং ফুডের ৫.২২ শতাংশ, আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের ৪.৬৯ শতাংশ এবং রহিম টেক্সটাইলের শেয়ার দর ৪.৪৫ শতাংশ বেড়েছে।