‘শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের নৈতিক জয় হয়েছে’

পাকিস্তানের বিপক্ষে তৃতীয় ও শেষ টি-২০ ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য ছিল হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর মিশন। যদিও শেষ দিকে সম্ভাবনা জাগিয়ে জিততে পারেনি মাহমুদুল্লাহরা। তবে ম্যাচ না জিতলেও বাংলাদেশের নৈতিক জয় হয়েছে বলে মনে করেন বিসিবির সাবেক সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী। ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর স্পোর্টিং মনোভাবে মুগ্ধ হয়েছেন তিনি।

ঘটনা মাহমুদুল্লাহর শেষ ওভারে। ওই ওভারের শেষ বলটি পিচ করার পর নেওয়াজ হাত উঠিয়ে জানালেন, তিনি প্রস্তুত নন। ততক্ষণে বল লেগ স্টাম্প ভেঙে দিয়েছে। ফিল্ড আম্পায়ার তানভীর আহমেদ বলটি ‘ডেড’ ঘোষণা করেন। মাহমুদুল্লাহও ব্যাটারের যুক্তি মেনে নেন। ফলে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই বহাল থাকে। এরপর শেষ বলে চার মেরে পাকিস্তান জয়ের হাসি হাসে। এই ঘটনায় মাহমুদুল্লাহর স্পোর্টসম্যানশিপের প্রশংসা করেছেন বিসিবির সাবেক সভাপতি এবং সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী। এক টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘মাহমুদুল্লাহর ডেলিভারিটি বৈধ ছিল এবং তিনি স্পোর্টসম্যানশিপের ঊর্ধ্বে উঠে বদান্যতা দেখিয়েছেন। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের সঙ্গে দ্বিমত পোষণও করেননি। বিষয়টা সত্যিই স্মরণীয়। পাকিস্তান বাংলাদেশকে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করেছে, কিন্তু বাংলাদেশ ম্যাচটিতে নৈতিক জয় পেয়েছে।’

বুধবার, ২৪ নভেম্বর ২০২১ , ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

‘শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের নৈতিক জয় হয়েছে’

পাকিস্তানের বিপক্ষে তৃতীয় ও শেষ টি-২০ ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য ছিল হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর মিশন। যদিও শেষ দিকে সম্ভাবনা জাগিয়ে জিততে পারেনি মাহমুদুল্লাহরা। তবে ম্যাচ না জিতলেও বাংলাদেশের নৈতিক জয় হয়েছে বলে মনে করেন বিসিবির সাবেক সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী। ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর স্পোর্টিং মনোভাবে মুগ্ধ হয়েছেন তিনি।

ঘটনা মাহমুদুল্লাহর শেষ ওভারে। ওই ওভারের শেষ বলটি পিচ করার পর নেওয়াজ হাত উঠিয়ে জানালেন, তিনি প্রস্তুত নন। ততক্ষণে বল লেগ স্টাম্প ভেঙে দিয়েছে। ফিল্ড আম্পায়ার তানভীর আহমেদ বলটি ‘ডেড’ ঘোষণা করেন। মাহমুদুল্লাহও ব্যাটারের যুক্তি মেনে নেন। ফলে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই বহাল থাকে। এরপর শেষ বলে চার মেরে পাকিস্তান জয়ের হাসি হাসে। এই ঘটনায় মাহমুদুল্লাহর স্পোর্টসম্যানশিপের প্রশংসা করেছেন বিসিবির সাবেক সভাপতি এবং সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী। এক টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘মাহমুদুল্লাহর ডেলিভারিটি বৈধ ছিল এবং তিনি স্পোর্টসম্যানশিপের ঊর্ধ্বে উঠে বদান্যতা দেখিয়েছেন। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের সঙ্গে দ্বিমত পোষণও করেননি। বিষয়টা সত্যিই স্মরণীয়। পাকিস্তান বাংলাদেশকে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করেছে, কিন্তু বাংলাদেশ ম্যাচটিতে নৈতিক জয় পেয়েছে।’