৪৫ বছর পর পূর্ব-লাদাখে গোলাগুলি

ভারতীয় সৈন্যরা বহুল বিতর্কিত পূর্ব-লাদাখে বিরোধপূর্ণ সীমান্ত এলাকা অতিক্রম করে টহলরত চীনা সৈন্যদের সতর্ক করতে এবং চীনা সৈন্যরা পাল্টা পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছে বলে চীনের সামরিক বাহিনীর মুখপত্র জানায়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমের বরাতে জানা যায়, আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার না করার দ্বিপাক্ষিক সমঝোতা ভেঙে ৪৫ বছর পর চীন-ভারতের বিরোধপূর্ণ বিশেষ অঞ্চলে প্রথমবারের মতো গোলাগুলি ঘটে। সীমান্তে ভারতীয় বাহিনীর সাথে টানটান উত্তেজনার পর এবার ভারত ও চীনের সীমান্তরক্ষী বাহিনী পূর্ব লাদাখের বিশেষ অঞ্চলটিতে ৭ সেপ্টেম্বর মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। কোনো পক্ষ থেকে নিহত বা আহত হবার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে প্রকাশিত, গোলাগুলির ঘটনা ঘটলেও সীমান্ত পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে। এ ঘটনাকে ওয়ার্নিং শুট বলে দাবি করেছে গণমাধ্যমটি। একে অন্যকে সতর্ক করতেই গুলি চালানো হয়েছে বলে দাবি দু’দেশের গণমাধ্যমের। সিএনএন,ইন্ডিয়া টুডে।

যদিও সংঘাতের ঘটনায় ভারতীয় সেনাদেরই দায়ী করেছে চীন। চীনা গণমাধ্যমের দাবি, ভারতীয় সেনারা অবৈধভাবে চীনের সীমানায় প্রবেশ করার সময় ওয়ার্নিং শুট করে তাদের সতর্ক করে চীনা বাহিনী। জবাবে পাল্টা গুলি চালায় ভারতীয় সেনারাও। গোলাগুলির ইস্যুতে এখনও মুখ খোলেনি নয়াদিল্লি। যুদ্ধ বিশেষজ্ঞদের মতে, ভারত-চীন সীমান্তে যুদ্ধের ক্ষেত্র প্রস্তুত হচ্ছে ধীরে ধীরে। গত ৪৫ বছরে একাধিক মৌখিক বা লিখিত চুক্তির মাধ্যমে যে স্থিতাবস্থা নিয়ে এসেছে ভারত ও চীন, তা যেকোন সময় ভেঙে যেতে পারে।

কয়েক মাস ধরে প্রতিবেশি দেশ দুটির সম্পর্ক ক্রমাগত অবনতি ঘটেছে। চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম দেশটির সামরিক বাহিনী পিপলস লিবারেশন আর্মির মুখপত্র ঝ্যাং শুইলি বলছে, লাদাখের প্যাংগং সো লেকের দক্ষিণ তীরের কাছে শিনপ্যাও পার্বত্য অঞ্চলে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা অবৈধভাবে অতিক্রম করেছে ভারতীয় সৈন্যরা। তিনি বলেছেন, ভারতের এ পদক্ষেপ দু’পক্ষের পৌঁছানো সমঝোতার গুরুতর লঙ্ঘন, এ অঞ্চলে উত্তেজনা ছড়িয়ে দিয়েছে...এ ধরনের পদক্ষেপ অত্যন্ত বিপজ্জনক। বিপজ্জনক কর্মকাণ্ড তাৎক্ষণিকভাবে বন্ধ করতে আমরা ভারতীয় পক্ষকে অনুরোধ জানিয়েছি।

বুধবার, ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ , ১৯ মহররম ১৪৪২, ২১ ভাদ্র ১৪২৭

৪৫ বছর পর পূর্ব-লাদাখে গোলাগুলি

image

ভারতীয় সৈন্যরা বহুল বিতর্কিত পূর্ব-লাদাখে বিরোধপূর্ণ সীমান্ত এলাকা অতিক্রম করে টহলরত চীনা সৈন্যদের সতর্ক করতে এবং চীনা সৈন্যরা পাল্টা পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছে বলে চীনের সামরিক বাহিনীর মুখপত্র জানায়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমের বরাতে জানা যায়, আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার না করার দ্বিপাক্ষিক সমঝোতা ভেঙে ৪৫ বছর পর চীন-ভারতের বিরোধপূর্ণ বিশেষ অঞ্চলে প্রথমবারের মতো গোলাগুলি ঘটে। সীমান্তে ভারতীয় বাহিনীর সাথে টানটান উত্তেজনার পর এবার ভারত ও চীনের সীমান্তরক্ষী বাহিনী পূর্ব লাদাখের বিশেষ অঞ্চলটিতে ৭ সেপ্টেম্বর মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। কোনো পক্ষ থেকে নিহত বা আহত হবার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে প্রকাশিত, গোলাগুলির ঘটনা ঘটলেও সীমান্ত পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে। এ ঘটনাকে ওয়ার্নিং শুট বলে দাবি করেছে গণমাধ্যমটি। একে অন্যকে সতর্ক করতেই গুলি চালানো হয়েছে বলে দাবি দু’দেশের গণমাধ্যমের। সিএনএন,ইন্ডিয়া টুডে।

যদিও সংঘাতের ঘটনায় ভারতীয় সেনাদেরই দায়ী করেছে চীন। চীনা গণমাধ্যমের দাবি, ভারতীয় সেনারা অবৈধভাবে চীনের সীমানায় প্রবেশ করার সময় ওয়ার্নিং শুট করে তাদের সতর্ক করে চীনা বাহিনী। জবাবে পাল্টা গুলি চালায় ভারতীয় সেনারাও। গোলাগুলির ইস্যুতে এখনও মুখ খোলেনি নয়াদিল্লি। যুদ্ধ বিশেষজ্ঞদের মতে, ভারত-চীন সীমান্তে যুদ্ধের ক্ষেত্র প্রস্তুত হচ্ছে ধীরে ধীরে। গত ৪৫ বছরে একাধিক মৌখিক বা লিখিত চুক্তির মাধ্যমে যে স্থিতাবস্থা নিয়ে এসেছে ভারত ও চীন, তা যেকোন সময় ভেঙে যেতে পারে।

কয়েক মাস ধরে প্রতিবেশি দেশ দুটির সম্পর্ক ক্রমাগত অবনতি ঘটেছে। চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম দেশটির সামরিক বাহিনী পিপলস লিবারেশন আর্মির মুখপত্র ঝ্যাং শুইলি বলছে, লাদাখের প্যাংগং সো লেকের দক্ষিণ তীরের কাছে শিনপ্যাও পার্বত্য অঞ্চলে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা অবৈধভাবে অতিক্রম করেছে ভারতীয় সৈন্যরা। তিনি বলেছেন, ভারতের এ পদক্ষেপ দু’পক্ষের পৌঁছানো সমঝোতার গুরুতর লঙ্ঘন, এ অঞ্চলে উত্তেজনা ছড়িয়ে দিয়েছে...এ ধরনের পদক্ষেপ অত্যন্ত বিপজ্জনক। বিপজ্জনক কর্মকাণ্ড তাৎক্ষণিকভাবে বন্ধ করতে আমরা ভারতীয় পক্ষকে অনুরোধ জানিয়েছি।