করোনা মোকাবিলায় ৬৪ জেলার দায়িত্বে ৬৪ সচিব

করোনা মহামারী মোকাবিলায় ৬৪ জেলায় ৬৪ জন সচিবকে দায়িত্ব দিয়ে অফিস আদেশ জারি করেছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিবরা সংশ্লিস্ট জেলার জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সমন্বয় করে দায়িত্ব পালন করবেন। গতকাল এ সংক্রান্ত একটি আদেশ দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে বলা হয়েছে, জেলা পর্যায়ে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাপনা ও অন্যান্য সরকারি কার্যক্রম সমন্বয়ে ৬৪ জন সিনিয়র সচিব ও সচিবকে ৬৪ জেলার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

আদেশে বলা হয়েছে, দায়িত্বপ্রাপ্ত সিনিয়র সচিব ও সচিবরা সমন্বয়কাজে তার মন্ত্রণালয় বা বিভাগ বা দপ্তর বা সংস্থার উপযুক্ত সংখ্যক কর্মকর্তাকে সম্পৃক্ত করতে পারবেন। নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা জেলার সংসদ সদস্য ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় গণমাধ্যম ব্যক্তি ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরামর্শ ও প্রয়োজনীয় সমন্বয় সাধন করে কোডিড-১৯ সংক্রান্ত স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাপনা ও সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম পরিচালনার কাজ তত্ত্বাবধান ও পরিবীক্ষণ করবেন। আদেশে বলা হয়েছে, অবসর বা বদলির কারণে সিনিয়র সচিব বা সচিবের দপ্তর পরিবর্তন বা পদ শূন্য হলে সেখানে নিযুক্ত সিনিয়র সচিব বা সচিব দায়িত্ব পালন করবেন।

আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে সাত দিনের জন্য কঠোর লকডাউন দেয়া হচ্ছে। এ সময়ে জরুরি সেবা দেয়া প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা ছাড়া সরকারি-বেসরকারি সব অফিস বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে গণপরিবহন, শিল্পকারখানা। করোনা সংক্রমাণ ভয়াবহ রূপ নেয়ায় সরকার গত ৫ এপ্রিল থেকে ১ সপ্তাহের লক ডাউন ঘোষণা করেছিলেন। লক ডাউনে গণ পরিবহন ও মার্কেট বন্ধ রাখার পাশাপাশি অপ্রয়োজনে ঘর থেকে বের না হওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছিলো। গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও লক ডাউন উপেক্ষা করে ব্যক্তিগত যানবহান চলাচল অব্যাহত ছিল। এমনকি সিএনজি, রিকশাসহ অন্যান্য যানবহানও চলাচল ছিল। বড় মার্কেটগুলো বন্ধ থাকলেও অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা ছিল। রাস্তায় মানুষের চলাচলও ছিল নিয়ন্ত্রণহীন। এমন পরিস্থিতিতে লক ডাউনে তৃতীয় দিনে সল্প পরিসরে গণপরিবহন চালু হয়। এখনও লক ডাউন থাকলেও মার্কেটসহ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান শর্ত সাপেক্ষে খোলার অনুমতি দেয়া হয়।

রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১ , ২৮ চৈত্র ১৪২৭ ২৭ শাবান ১৪৪২

অফিস আদেশ

করোনা মোকাবিলায় ৬৪ জেলার দায়িত্বে ৬৪ সচিব

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

করোনা মহামারী মোকাবিলায় ৬৪ জেলায় ৬৪ জন সচিবকে দায়িত্ব দিয়ে অফিস আদেশ জারি করেছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিবরা সংশ্লিস্ট জেলার জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সমন্বয় করে দায়িত্ব পালন করবেন। গতকাল এ সংক্রান্ত একটি আদেশ দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে বলা হয়েছে, জেলা পর্যায়ে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাপনা ও অন্যান্য সরকারি কার্যক্রম সমন্বয়ে ৬৪ জন সিনিয়র সচিব ও সচিবকে ৬৪ জেলার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

আদেশে বলা হয়েছে, দায়িত্বপ্রাপ্ত সিনিয়র সচিব ও সচিবরা সমন্বয়কাজে তার মন্ত্রণালয় বা বিভাগ বা দপ্তর বা সংস্থার উপযুক্ত সংখ্যক কর্মকর্তাকে সম্পৃক্ত করতে পারবেন। নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা জেলার সংসদ সদস্য ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় গণমাধ্যম ব্যক্তি ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরামর্শ ও প্রয়োজনীয় সমন্বয় সাধন করে কোডিড-১৯ সংক্রান্ত স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাপনা ও সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম পরিচালনার কাজ তত্ত্বাবধান ও পরিবীক্ষণ করবেন। আদেশে বলা হয়েছে, অবসর বা বদলির কারণে সিনিয়র সচিব বা সচিবের দপ্তর পরিবর্তন বা পদ শূন্য হলে সেখানে নিযুক্ত সিনিয়র সচিব বা সচিব দায়িত্ব পালন করবেন।

আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে সাত দিনের জন্য কঠোর লকডাউন দেয়া হচ্ছে। এ সময়ে জরুরি সেবা দেয়া প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা ছাড়া সরকারি-বেসরকারি সব অফিস বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে গণপরিবহন, শিল্পকারখানা। করোনা সংক্রমাণ ভয়াবহ রূপ নেয়ায় সরকার গত ৫ এপ্রিল থেকে ১ সপ্তাহের লক ডাউন ঘোষণা করেছিলেন। লক ডাউনে গণ পরিবহন ও মার্কেট বন্ধ রাখার পাশাপাশি অপ্রয়োজনে ঘর থেকে বের না হওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছিলো। গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও লক ডাউন উপেক্ষা করে ব্যক্তিগত যানবহান চলাচল অব্যাহত ছিল। এমনকি সিএনজি, রিকশাসহ অন্যান্য যানবহানও চলাচল ছিল। বড় মার্কেটগুলো বন্ধ থাকলেও অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা ছিল। রাস্তায় মানুষের চলাচলও ছিল নিয়ন্ত্রণহীন। এমন পরিস্থিতিতে লক ডাউনে তৃতীয় দিনে সল্প পরিসরে গণপরিবহন চালু হয়। এখনও লক ডাউন থাকলেও মার্কেটসহ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান শর্ত সাপেক্ষে খোলার অনুমতি দেয়া হয়।