১৬ মাসে ৫৩ জনের আত্মহত্যা

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে গত ১৬ মাসে ৫৩ জন নারী, পুরুষ, শিশু আত্মহত্যা করেছে। বেশিরভাগ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে পারিবারিক কলহের জের ধরে। বালিয়াকান্দি থানা পুলিশ বিভিন্ন সভা-সেমিনারে আত্মহত্যার কুফল সম্পর্কে অবগত করে আসছে।

বালিয়াকান্দি থানা সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত ৪১ জন গলায় ফাঁস, বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। এদের মধ্যে মহিলা ২৫ জন, পুরুষ ১৬ জন। ২০২১ সালের ১২ এপ্রিল পর্যন্ত ১২ জন আত্মহত্যা করেছে। এদের মধ্যে মহিলা ৩ জন, শিশু ২ জন, পুরুষ৭ জন। এদের মধ্যে পেটে ব্যথা, মানসিক রোগী, পারিবারিক কলহসহ বিভিন্ন কারণ উল্লেখ রয়েছে। প্রতিটি আত্মহত্যার ঘটনায় বালিয়াকান্দি থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।

গত সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের বাকসাডাঙ্গী গ্রামের রিয়াজুল ইসলাম টুনুর ছেলে স্থানীয় হাইস্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র আলাউদ্দিন (১৪) গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে। সে কয়েকদিন ধরে বলছিল, গলায় রশি ও বিষপান করলে মারা যায় না। সে গলায় ফাঁস নিলে বাড়ির লোকজন টের পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। এ ব্যাপারে বালিয়াকান্দি থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ছাবনী পাড়া গ্রামে গলায় ফাঁস নিয়ে মনজু মিয়া (৫৫) নামে একজন জুটমিল শ্রমিক আত্মহত্যা করেছে। তিনি ওই গ্রামের হারুন অর রশিদের ছেলে। গত ৭ এপ্রিল পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে প্রেরণ করে।

নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, স্থানীয় রাজ্জাক জুট মিলে মনজু মিয়া চাকরি করত। বেশ কিছুদিন ধরে মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। গত ৬ এপ্রিল দিবাগত রাত ১টার দিকে বাড়ির অদূরে আমগাছের ডালের সঙ্গে তার ঝুলন্ত লাশ দেখা যায়। দ্রুত নামালেও তার আগেই মৃত্যু হয়।

বালিয়াকান্দিতে ৩ সন্তানের জননী গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ওই গৃহবধূর নাম হালিমন বেগম (৩৫)। তিনি উপজেলার বহরপুর ইউনিয়নের ইকোরজনা গ্রামের তোফাজ্জেল প্রমাণিকের স্ত্রী।

বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১ , ১ বৈশাখ ১৪২৮ ১ রমজান ১৪৪২

বালিয়াকান্দিতে

১৬ মাসে ৫৩ জনের আত্মহত্যা

প্রতিনিধি, বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী)

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে গত ১৬ মাসে ৫৩ জন নারী, পুরুষ, শিশু আত্মহত্যা করেছে। বেশিরভাগ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে পারিবারিক কলহের জের ধরে। বালিয়াকান্দি থানা পুলিশ বিভিন্ন সভা-সেমিনারে আত্মহত্যার কুফল সম্পর্কে অবগত করে আসছে।

বালিয়াকান্দি থানা সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত ৪১ জন গলায় ফাঁস, বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। এদের মধ্যে মহিলা ২৫ জন, পুরুষ ১৬ জন। ২০২১ সালের ১২ এপ্রিল পর্যন্ত ১২ জন আত্মহত্যা করেছে। এদের মধ্যে মহিলা ৩ জন, শিশু ২ জন, পুরুষ৭ জন। এদের মধ্যে পেটে ব্যথা, মানসিক রোগী, পারিবারিক কলহসহ বিভিন্ন কারণ উল্লেখ রয়েছে। প্রতিটি আত্মহত্যার ঘটনায় বালিয়াকান্দি থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।

গত সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের বাকসাডাঙ্গী গ্রামের রিয়াজুল ইসলাম টুনুর ছেলে স্থানীয় হাইস্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র আলাউদ্দিন (১৪) গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে। সে কয়েকদিন ধরে বলছিল, গলায় রশি ও বিষপান করলে মারা যায় না। সে গলায় ফাঁস নিলে বাড়ির লোকজন টের পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। এ ব্যাপারে বালিয়াকান্দি থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ছাবনী পাড়া গ্রামে গলায় ফাঁস নিয়ে মনজু মিয়া (৫৫) নামে একজন জুটমিল শ্রমিক আত্মহত্যা করেছে। তিনি ওই গ্রামের হারুন অর রশিদের ছেলে। গত ৭ এপ্রিল পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে প্রেরণ করে।

নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, স্থানীয় রাজ্জাক জুট মিলে মনজু মিয়া চাকরি করত। বেশ কিছুদিন ধরে মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। গত ৬ এপ্রিল দিবাগত রাত ১টার দিকে বাড়ির অদূরে আমগাছের ডালের সঙ্গে তার ঝুলন্ত লাশ দেখা যায়। দ্রুত নামালেও তার আগেই মৃত্যু হয়।

বালিয়াকান্দিতে ৩ সন্তানের জননী গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ওই গৃহবধূর নাম হালিমন বেগম (৩৫)। তিনি উপজেলার বহরপুর ইউনিয়নের ইকোরজনা গ্রামের তোফাজ্জেল প্রমাণিকের স্ত্রী।