গরমে স্বাস্থ্য সুরক্ষা জরুরি

সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিকল্প নেই। প্রতি বছরের মতো এবারও এসেছে গ্রীষ্মকাল। গ্রীষ্মের প্রচণ্ড দাবদাহে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। গ্রীষ্মকালকে বলা হয়ে থাকে রোগ জীবাণুর আতুর ঘর। এছাড়া গরমে শরীর থেকে অতিরিক্ত পরিমাণে পানি বের হয়ে যায়। যে কারণে মানুষ পানিশূন্যতা রোগে ভোগে। যার ফলে দুর্বলতা, মাথা ঘোরানো, মাথাব্যথা এবং অচেতন হয়ে যাওয়ার মতো বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। আর এসব শারীরিক সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার একমাত্র উপায় হলো বেশি বেশি পানি পান করা।

প্রতিদিন গড়ে ১০-১২ গ্লাস পানি পান করা প্রয়োজন। এছাড়াও ডাবের পানি, ফলের শরবত, লেবুর শরবত খাওয়া যেতে পারে। এতে করে শরীরের পানির ঘাটতি পূরণ করা সম্ভব হয়। ডাবের পানিতে প্রচুর পরিমাণে খনিজ লবণ থাকায় গরমে ডাবের পানি পান করলে পানির পাশাপাশি শরীরে খনিজ লবণের চাহিদাও পূরণ হয়। এছাড়াও শরীরের পানিশূন্যতা দূর করতে খাবার স্যালাইন খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করে। ঘরে বসেও খাবার স্যালাইন তৈরি করা যায়। এক্ষেত্রে ১ লিটার পানিতে এক মুঠো গুড় বা চিনি, সেই সঙ্গে এক চিমটে নুন মিশিয়ে স্বাস্থ্যকর খাবার স্যালাইন তৈরি করা সম্ভব।

ইমন ইসলাম

লেখক : শিক্ষার্থী, সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১ , ৫ বৈশাখ ১৪২৮ ৫ রমজান ১৪৪২

গরমে স্বাস্থ্য সুরক্ষা জরুরি

সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিকল্প নেই। প্রতি বছরের মতো এবারও এসেছে গ্রীষ্মকাল। গ্রীষ্মের প্রচণ্ড দাবদাহে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। গ্রীষ্মকালকে বলা হয়ে থাকে রোগ জীবাণুর আতুর ঘর। এছাড়া গরমে শরীর থেকে অতিরিক্ত পরিমাণে পানি বের হয়ে যায়। যে কারণে মানুষ পানিশূন্যতা রোগে ভোগে। যার ফলে দুর্বলতা, মাথা ঘোরানো, মাথাব্যথা এবং অচেতন হয়ে যাওয়ার মতো বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। আর এসব শারীরিক সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার একমাত্র উপায় হলো বেশি বেশি পানি পান করা।

প্রতিদিন গড়ে ১০-১২ গ্লাস পানি পান করা প্রয়োজন। এছাড়াও ডাবের পানি, ফলের শরবত, লেবুর শরবত খাওয়া যেতে পারে। এতে করে শরীরের পানির ঘাটতি পূরণ করা সম্ভব হয়। ডাবের পানিতে প্রচুর পরিমাণে খনিজ লবণ থাকায় গরমে ডাবের পানি পান করলে পানির পাশাপাশি শরীরে খনিজ লবণের চাহিদাও পূরণ হয়। এছাড়াও শরীরের পানিশূন্যতা দূর করতে খাবার স্যালাইন খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করে। ঘরে বসেও খাবার স্যালাইন তৈরি করা যায়। এক্ষেত্রে ১ লিটার পানিতে এক মুঠো গুড় বা চিনি, সেই সঙ্গে এক চিমটে নুন মিশিয়ে স্বাস্থ্যকর খাবার স্যালাইন তৈরি করা সম্ভব।

ইমন ইসলাম

লেখক : শিক্ষার্থী, সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়