রূপগঞ্জে গণপিটুণিতে নিহতের ঘটনায় চেয়ারম্যান কাউন্সিলর আ’লীগ নেতারা আসামী

নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জে হত্যা, ডাকাতি, চাঁদাবাজি ও ধর্ষণসহ বহু মামলার আসামী সোলায়মান (৩৭) গণপিটুণিতে নিহতের ঘটনায় মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ আলমাছ, তারাবো পৌরসভার কাউন্সিলর ও রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি রফিকুল ইসলাম মনিরসহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের আসামী করার প্রতিবাদে মানববন্ধন হয়েছে। রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে গতকাল ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভুলতার গাউছিয়া এলাকায় এ মানববন্ধন করা হয়। মানবন্ধনপূর্বক আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন গোলাকান্দাইল ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মঞ্জুর হোসেন ভুঁইয়া। সভায় বক্তব্য রাখেন কাঞ্চন পৌরসভার আওয়ামীলীগের সাধারণ গোলাম রসুল কলি, ভুলতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ব্যারিষ্টার আরিফুল ইসলাম, রূপগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মশিউর রহমান তারেক, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হারেজ, ভোলাবো ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আবুল হোসেন খান, সাধারণ সম্পাদক হাসান আশকারী, গোলাকান্দাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল সাত্তার ভুঁইয়া, ভুলতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল হোসেন, রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুল হাসান তুহিন, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান শাহিন, রূপগঞ্জ স্বেচ্ছসেবক লীগের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মেহের, সাধারণ সম্পাদক নাঈম ভুঁইয়া, রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্র লীগের সভাপতি ফয়সাল সিকদার, রূপগঞ্জ উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ শীলা রাণি পাল। রূপগঞ্জ উপজেলা যুব মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফেরদৌসী আক্তার, সাধারণ সম্পাদক সেলিনা আক্তার রিতা, আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল মান্নান মুন্সী, আব্দুল মান্নান মিয়া প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, গত ১ জুন তারাবো পৌরসভার গন্ধর্বপুর নামাপাড়া এলাকায় দিনদুপুরে অস্ত্রে শস্ত্রে সজ্জিত ডাকাত প্রবেশ করেছে মর্মে মসজিদে মাইকিং করা হয়। এ সময় গ্রামবাসী ধাওয়া করে সোলায়মানকে জাপটে ধরে গণপিটুনি দেয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান। শুধুমাত্র রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে ও আসন্ন মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তোফায়েল আহমেদ আলমাছসহ অন্যদের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার লক্ষ্যে গণপিটুনিতে নিহতের ঘটনায় একটি চক্র সুকৌশলে আসামী করেছে। তারা দাবি করেন সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রকৃত হত্যাকারীদের বিচার করতে হবে। নিরপরাধীদের মামলা থেকে অব্যহতি দিতে হবে।

শনিবার, ০৫ জুন ২০২১ , ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ ২৩ শাওয়াল ১৪৪২

রূপগঞ্জে গণপিটুণিতে নিহতের ঘটনায় চেয়ারম্যান কাউন্সিলর আ’লীগ নেতারা আসামী

প্রতিবাদে মানববন্ধন

নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জে হত্যা, ডাকাতি, চাঁদাবাজি ও ধর্ষণসহ বহু মামলার আসামী সোলায়মান (৩৭) গণপিটুণিতে নিহতের ঘটনায় মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ আলমাছ, তারাবো পৌরসভার কাউন্সিলর ও রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি রফিকুল ইসলাম মনিরসহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের আসামী করার প্রতিবাদে মানববন্ধন হয়েছে। রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে গতকাল ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভুলতার গাউছিয়া এলাকায় এ মানববন্ধন করা হয়। মানবন্ধনপূর্বক আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন গোলাকান্দাইল ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মঞ্জুর হোসেন ভুঁইয়া। সভায় বক্তব্য রাখেন কাঞ্চন পৌরসভার আওয়ামীলীগের সাধারণ গোলাম রসুল কলি, ভুলতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ব্যারিষ্টার আরিফুল ইসলাম, রূপগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মশিউর রহমান তারেক, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হারেজ, ভোলাবো ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আবুল হোসেন খান, সাধারণ সম্পাদক হাসান আশকারী, গোলাকান্দাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল সাত্তার ভুঁইয়া, ভুলতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল হোসেন, রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুল হাসান তুহিন, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান শাহিন, রূপগঞ্জ স্বেচ্ছসেবক লীগের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মেহের, সাধারণ সম্পাদক নাঈম ভুঁইয়া, রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্র লীগের সভাপতি ফয়সাল সিকদার, রূপগঞ্জ উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ শীলা রাণি পাল। রূপগঞ্জ উপজেলা যুব মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফেরদৌসী আক্তার, সাধারণ সম্পাদক সেলিনা আক্তার রিতা, আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল মান্নান মুন্সী, আব্দুল মান্নান মিয়া প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, গত ১ জুন তারাবো পৌরসভার গন্ধর্বপুর নামাপাড়া এলাকায় দিনদুপুরে অস্ত্রে শস্ত্রে সজ্জিত ডাকাত প্রবেশ করেছে মর্মে মসজিদে মাইকিং করা হয়। এ সময় গ্রামবাসী ধাওয়া করে সোলায়মানকে জাপটে ধরে গণপিটুনি দেয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান। শুধুমাত্র রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে ও আসন্ন মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তোফায়েল আহমেদ আলমাছসহ অন্যদের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার লক্ষ্যে গণপিটুনিতে নিহতের ঘটনায় একটি চক্র সুকৌশলে আসামী করেছে। তারা দাবি করেন সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রকৃত হত্যাকারীদের বিচার করতে হবে। নিরপরাধীদের মামলা থেকে অব্যহতি দিতে হবে।