সত্য ঘটনা অবলম্বনে ‘ওমর ফারুকের মা’

জাহিদুর রহমান বিপ্লব প্রথমবারের মতো একটি চলচ্চিত্র (স্বল্পদৈর্ঘ্য) নির্মাণ করেছেন। চলচ্চিত্রের নাম ‘ওমর ফারুকের মা’। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন দিলারা জামান। ২০১৭-২০১৮ সালে দশ লাখ অনুদানপ্রাপ্ত এই চলচ্চিত্রটির নির্মাণ কাজ বেশ কিছুদিন আগেই শেষ হয়েছে। শিগগিরই তিনি চলচ্চিত্রটি সেন্সরের জন্য জমা দিবেন। এ চলচ্চিত্রে অনেকেই অভিনয় করেছেন। তবে সবচেয়ে বড় বিষয় হলো চলচ্চিত্রে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুকের বোন সালমা একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন। চলচ্চিত্রটির মূল গল্প এবং কাহিনী সংক্ষেপ পরিচালকের নিজের। চিত্রনাট্য করেছেন মাসুম রেজা। চলচ্চিত্রটি প্রসঙ্গে জাহিদুর রহমান বিপ্লব বলেন, ‘এটি মূলত পিরোজপুরের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুকের মাকে নিয়ে গল্প। তাকে ঘিরেই কাহিনী আবর্তিত হয়েছে।’ এই চলচ্চিত্রে আরও অভিনয় করেছেন খায়রুল আলম সবুজ, নাজনীন চুমকী, শাহেদ শরীফ খান, কাজী রাজু, সাঈদ বাবুসহ আরও অনেকে। চলচ্চিত্রে ওমর ফারুকের মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন দিলারা জামান। তিনি বলেন, ‘আমি যখন জানতে পারলাম মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুকের মা বেঁচে আছেন, তখন আমি পিরোজপুরে গিয়ে তারসঙ্গে দেখা করলাম। তিনি কথা বলতে পারেন না। বারবার আমাকে ছুঁয়ে দেখছিলেন। যখন অভিনয় করি আমি আমার নিজেরই অজান্তে কান্না চলে আসছিল। সেই মা এখনো তার ঘরের দরজা লাগান না, যে কোন সময় তার ছেলে চলে আসতে পারের বিধায়।’ এদিকে দিলারা জামান শ্যাম বানেগালের নির্দেশনায় বঙ্গবন্ধু’কে নিয়ে নির্মিত বায়োপিক-এ বঙ্গবন্ধুর মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। এছাড়াও তিনি বঙ্গবন্ধু’কে নিয়ে নির্মিত ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ ও ‘চিরঞ্জীব শেখ মুজিব’ চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন।

শনিবার, ১২ জুন ২০২১ , ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ ৩০ শাওয়াল ১৪৪২

সত্য ঘটনা অবলম্বনে ‘ওমর ফারুকের মা’

image

জাহিদুর রহমান বিপ্লব প্রথমবারের মতো একটি চলচ্চিত্র (স্বল্পদৈর্ঘ্য) নির্মাণ করেছেন। চলচ্চিত্রের নাম ‘ওমর ফারুকের মা’। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন দিলারা জামান। ২০১৭-২০১৮ সালে দশ লাখ অনুদানপ্রাপ্ত এই চলচ্চিত্রটির নির্মাণ কাজ বেশ কিছুদিন আগেই শেষ হয়েছে। শিগগিরই তিনি চলচ্চিত্রটি সেন্সরের জন্য জমা দিবেন। এ চলচ্চিত্রে অনেকেই অভিনয় করেছেন। তবে সবচেয়ে বড় বিষয় হলো চলচ্চিত্রে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুকের বোন সালমা একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন। চলচ্চিত্রটির মূল গল্প এবং কাহিনী সংক্ষেপ পরিচালকের নিজের। চিত্রনাট্য করেছেন মাসুম রেজা। চলচ্চিত্রটি প্রসঙ্গে জাহিদুর রহমান বিপ্লব বলেন, ‘এটি মূলত পিরোজপুরের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুকের মাকে নিয়ে গল্প। তাকে ঘিরেই কাহিনী আবর্তিত হয়েছে।’ এই চলচ্চিত্রে আরও অভিনয় করেছেন খায়রুল আলম সবুজ, নাজনীন চুমকী, শাহেদ শরীফ খান, কাজী রাজু, সাঈদ বাবুসহ আরও অনেকে। চলচ্চিত্রে ওমর ফারুকের মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন দিলারা জামান। তিনি বলেন, ‘আমি যখন জানতে পারলাম মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুকের মা বেঁচে আছেন, তখন আমি পিরোজপুরে গিয়ে তারসঙ্গে দেখা করলাম। তিনি কথা বলতে পারেন না। বারবার আমাকে ছুঁয়ে দেখছিলেন। যখন অভিনয় করি আমি আমার নিজেরই অজান্তে কান্না চলে আসছিল। সেই মা এখনো তার ঘরের দরজা লাগান না, যে কোন সময় তার ছেলে চলে আসতে পারের বিধায়।’ এদিকে দিলারা জামান শ্যাম বানেগালের নির্দেশনায় বঙ্গবন্ধু’কে নিয়ে নির্মিত বায়োপিক-এ বঙ্গবন্ধুর মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। এছাড়াও তিনি বঙ্গবন্ধু’কে নিয়ে নির্মিত ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ ও ‘চিরঞ্জীব শেখ মুজিব’ চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন।