ভৈরবে জমি বিবাদে হত ১, আহত ১০

ভৈরবে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এক যুবক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরও অন্ততপক্ষে ১০ জন। গত সোমবার সকাল ৭টার দিকে ভৈরব উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের মানিকদী পুরানগাঁও এলাকায় জমি সংক্রান্ত জেরে দুই বাপ-চাচার সংঘর্ষে ভাতিজা টেটাবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়। নিহত ব্যক্তির নাম বাবু মিয়া (১৯)। সে মানিকদী পুরনাগাঁও এলাকার কালা মিয়ার ছেলে। জানা যায়, দীর্ঘদিন মানিকদী গ্রামে ঝুরুর বংশের সহোদর দুই ভাই কালা মিয়া ও মজনু মিয়ার মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। এ ঘটনায় একাধিক সালিশ দরবার হলেও তার কোন সুরাহা হয়নি। গত ১২ জুন স্থানীয় একটি সামাজিক সংগঠনে শালিস দরবারে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলোচনার সময় দু’পক্ষের সংঘর্ষ হয়।

এ সময় স্থানীয়দের হস্তক্ষেপে তাৎক্ষণিক মীমাংসা হলে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে ১৫ জুন সালিশ দরবার হওয়ার কথা থাকলেও আজ ১৪ জুন সোমবার সকালে মজনু মিয়ার লোকজন কালা মিয়ার বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। এ ঘটনায় কালা মিয়ার ছেলে বাবু টেটাবিদ্ধ হয়ে আহত হয়। আহত অবস্থায় এলাকাবাসী উদ্ধার করে বাজিতপুর ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ভৈরব থানা ওসি মো. শাহিন বলেন, ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছি।

বুধবার, ১৬ জুন ২০২১ , ২ আষাড় ১৪২৮ ৪ জিলকদ ১৪৪২

ভৈরবে জমি বিবাদে হত ১, আহত ১০

ভৈরবে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এক যুবক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরও অন্ততপক্ষে ১০ জন। গত সোমবার সকাল ৭টার দিকে ভৈরব উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের মানিকদী পুরানগাঁও এলাকায় জমি সংক্রান্ত জেরে দুই বাপ-চাচার সংঘর্ষে ভাতিজা টেটাবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়। নিহত ব্যক্তির নাম বাবু মিয়া (১৯)। সে মানিকদী পুরনাগাঁও এলাকার কালা মিয়ার ছেলে। জানা যায়, দীর্ঘদিন মানিকদী গ্রামে ঝুরুর বংশের সহোদর দুই ভাই কালা মিয়া ও মজনু মিয়ার মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। এ ঘটনায় একাধিক সালিশ দরবার হলেও তার কোন সুরাহা হয়নি। গত ১২ জুন স্থানীয় একটি সামাজিক সংগঠনে শালিস দরবারে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলোচনার সময় দু’পক্ষের সংঘর্ষ হয়।

এ সময় স্থানীয়দের হস্তক্ষেপে তাৎক্ষণিক মীমাংসা হলে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে ১৫ জুন সালিশ দরবার হওয়ার কথা থাকলেও আজ ১৪ জুন সোমবার সকালে মজনু মিয়ার লোকজন কালা মিয়ার বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। এ ঘটনায় কালা মিয়ার ছেলে বাবু টেটাবিদ্ধ হয়ে আহত হয়। আহত অবস্থায় এলাকাবাসী উদ্ধার করে বাজিতপুর ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ভৈরব থানা ওসি মো. শাহিন বলেন, ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছি।