সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে কটূক্তি : নোবিপ্রবি কর্মকর্তা সম্রাট আটক

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে ফেইসবুকে অশালীন মন্তব্য ও কটূক্তি করায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান সম্রাটকে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল দুপুর আড়াইটায় উপজেলার উত্তর লামছি গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে সম্রাটকে আটক করা হয়। আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে কবিরহাট থানার ওসি টমাস বডুয়া জানান, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাহেবকে নিয়ে ফেইসবুকে অশালীন মন্তব্য ও কটূক্তি করায় গত শুক্রবার রাতে কবিরহাট উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে সম্রাটকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাত ১২টায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) ডিপিডি দপ্তরের সহকারী পরিচালক জিয়াউর রহমান সম্রাট নিজের ফেইসবুক আইডিতে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য ও কটূক্তি করেন।

অভিযুক্ত জিয়াউর রহমান সম্রাট কবিরহাট উপজেলার উত্তর লামছি গ্রামের ইউসুফ ভূঁইয়ার ছেলে এবং নোবিপ্রবির ডিপিডি দপ্তরের সহকারী পরিচালক।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, ১৭ জুন রাত ১২টা ৮ মিনিটের দিকে জিয়াউর রহমান সম্রাট তার নিজের ফেইসবুকে ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে স্ট্যাটাস দেন। এ ধরনের স্ট্যাটাস মন্ত্রীর মানসম্মান ক্ষুণœ করে। অভিযোগে বলা হয়, বিবাদী নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের সহকারী পরিচালক পদে কর্মরত থাকা অবস্থায় বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রীর বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাস দিয়ে রাষ্ট্রীয় শিষ্টাচারবহির্ভূত আচরণ করেছেন।

নোবিপ্রবির ডিপিডি দপ্তরের সহকারী পরিচালক জিয়াউর রহমান সম্রাট দাবি করেন, ফেইসবুকের ওই আইডি তার নিজের হলেও স্ট্যাটাসটি তিনি করেননি। তিনি বিষয়টি থানার ওসিকে মৌখিকভাবে জানিয়েছেন বলেও জানান।

তবে অভিযোগের বাদী ও কবিরহাট উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম এ ঘটনার জন্য সরকারি চাকরিজীবী জিয়াউর রহমান সম্রাটের শাস্তির দাবি করে জানান, সে নোবিপ্রবিতে চাকরি করে বেতন নিলেও সে কোনদিন নোবিপ্রবিতে যায় না, সে যুবলীগ নেতা দাবি করে এলাকায় মাদক ব্যবসা ও অস্ত্র ব্যবসার সঙ্গে জড়িত রয়েছে।

এদিকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের বিরুদ্ধে এমন কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যকারী জিয়াউর রহমান সম্রাটকে গ্রেপ্তারপূর্বক সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

রবিবার, ২০ জুন ২০২১ , ৬ আষাঢ় ১৪২৮ ৮ জিলকদ ১৪৪২

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে কটূক্তি : নোবিপ্রবি কর্মকর্তা সম্রাট আটক

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে ফেইসবুকে অশালীন মন্তব্য ও কটূক্তি করায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান সম্রাটকে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল দুপুর আড়াইটায় উপজেলার উত্তর লামছি গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে সম্রাটকে আটক করা হয়। আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে কবিরহাট থানার ওসি টমাস বডুয়া জানান, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাহেবকে নিয়ে ফেইসবুকে অশালীন মন্তব্য ও কটূক্তি করায় গত শুক্রবার রাতে কবিরহাট উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে সম্রাটকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাত ১২টায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) ডিপিডি দপ্তরের সহকারী পরিচালক জিয়াউর রহমান সম্রাট নিজের ফেইসবুক আইডিতে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য ও কটূক্তি করেন।

অভিযুক্ত জিয়াউর রহমান সম্রাট কবিরহাট উপজেলার উত্তর লামছি গ্রামের ইউসুফ ভূঁইয়ার ছেলে এবং নোবিপ্রবির ডিপিডি দপ্তরের সহকারী পরিচালক।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, ১৭ জুন রাত ১২টা ৮ মিনিটের দিকে জিয়াউর রহমান সম্রাট তার নিজের ফেইসবুকে ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে স্ট্যাটাস দেন। এ ধরনের স্ট্যাটাস মন্ত্রীর মানসম্মান ক্ষুণœ করে। অভিযোগে বলা হয়, বিবাদী নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের সহকারী পরিচালক পদে কর্মরত থাকা অবস্থায় বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রীর বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাস দিয়ে রাষ্ট্রীয় শিষ্টাচারবহির্ভূত আচরণ করেছেন।

নোবিপ্রবির ডিপিডি দপ্তরের সহকারী পরিচালক জিয়াউর রহমান সম্রাট দাবি করেন, ফেইসবুকের ওই আইডি তার নিজের হলেও স্ট্যাটাসটি তিনি করেননি। তিনি বিষয়টি থানার ওসিকে মৌখিকভাবে জানিয়েছেন বলেও জানান।

তবে অভিযোগের বাদী ও কবিরহাট উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম এ ঘটনার জন্য সরকারি চাকরিজীবী জিয়াউর রহমান সম্রাটের শাস্তির দাবি করে জানান, সে নোবিপ্রবিতে চাকরি করে বেতন নিলেও সে কোনদিন নোবিপ্রবিতে যায় না, সে যুবলীগ নেতা দাবি করে এলাকায় মাদক ব্যবসা ও অস্ত্র ব্যবসার সঙ্গে জড়িত রয়েছে।

এদিকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের বিরুদ্ধে এমন কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যকারী জিয়াউর রহমান সম্রাটকে গ্রেপ্তারপূর্বক সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।