ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড ২০২১ এ ৬টি আইডিয়া বিজয়ী ও পুরস্কৃত

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড ২০২১ এর গ্র্যান্ড ফিনালেতে ৬টি উদ্ভাবনী আইডিয়া বিজয়ী হয়েছে। আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড প্রযুক্তিগত সমস্যা সমাধানে তরুণ উদ্ভাবকদের সাহায্যকারী একটি প্ল্যাটফর্ম। এতে প্রফেশনাল ট্র্যাক বিজয়ী ‘রিমোটলি’ পুরস্কার হিসাবে ১৫ লক্ষ টাকা পেয়েছে। প্রথম ও দ্বিতীয় রানার-আপ ‘এডুটেক’ ও ‘টিংকার্স টেকনোলজি লিমিটেড’ যথাক্রমে ১০ লাখ টাকা এবং ৫ লাখ টাকা পুরস্কার পেয়েছে। স্টুডেন্ট ট্র্যাক বিজয়ী ‘করি’কে পুরস্কার হিসাবে দুটি ম্যাকবুক, প্রথম রানার আপ ‘ওয়েবেল’কে দুটি ডেস্কটপ দেওয়া হয় এবং দ্বিতীয় রানার-আপ ‘কু অ্যাস্পায়ার’কে দুটি স্মার্টফোন দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিশেষ পুরস্কার হিসেবে ‘ত্রিমাত্রিক’ ও ‘মেইনলি কোডিং’কে ক্রেস্ট এবং সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য ড. সাজ্জাদ হুসেইন; বাংলাদেশ ব্যাংকের পেমেন্ট সিস্টেম ডিপার্টমেন্টের জেনারেল ম্যানেজার মো. মেজবাউল হক; এলআইসিটি’র পলিসি অ্যাডভাইজর সামি আহমেদ; ডেটাবার্ডের সিইও কাশেফ রহমান এবং ডেটাবার্ড-এর সিসিও সাদিয়া হক। রাজধানীর আগারগাঁও-এ অবস্থিত আইসিটি টাওয়ারের বিসিসি অডিটোরিয়ামে গ্র্যান্ড ফিনালেটি অনুষ্ঠিত হয়।

চলতি বছরের জুলাইয়ে ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড ২০২১ যাত্রা শুরু করে। ২৩ জন নারী উদ্যোক্তাসহ দেশজুড়ে ১০০০ জন উদ্ভাবকদের ৩৫০টিরও বেশি দল এতে অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগীরা দুটি বিভাগে অংশগ্রহণ করেন: স্টুডেন্ট এবং প্রফেশনাল ট্র্যাক। রেজিস্ট্রেশন, আইডিয়া ও প্রজেক্ট সাবমিশন, স্ক্রিনিং টেস্ট এবং ফাইনাল প্রেজেন্টেশন ইত্যাদি রাউন্ডে প্রতিযোগিতাটি বিভক্ত ছিল। সবশেষে, স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক বিজ্ঞ বিচারকমন্ডলী সেরা ৫টি সম্ভব্য ও বিনিয়োগযোগ্য আইডিয়াকে বিজয়ী হিসেবে নির্বাচিত করেন। বাজারচাহিদা, প্রযুক্তিগত মান, প্রেজেন্টেশনের দক্ষতা, প্রজেক্ট বাস্তবায়নের সম্ভাব্যতা ইত্যাদি মানদন্ডের ওপর ভিত্তি করে আইডিয়াগুলো সেরা বলে বিবেচিত হয়। প্রতিযোগীদের আইডিয়াগুলোকে আরও দক্ষ, উৎপাদনশীল এবং কার্যকরী করে তুলে ব্যবসায়িক পরিকল্পনা, ঝুঁকি, মূলধন ব্যবস্থাপনা, বিপণন, সাপ্লাই চেইন, সম্পদ ব্যবস্থাপনা, প্রযুক্তিগত ইত্যাদি বিভিন্ন ক্ষেত্রে সাহায্য করেছেন বিজ্ঞ বিচারকমন্ডলী।

উল্লেখ্য, ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে, দেশের মধ্যে একটি ইন্টারনেট ইকোসিস্টেম গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করছে ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

শুক্রবার, ১৫ অক্টোবর ২০২১ , ৩০ আশ্বিন ১৪২৮ ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড ২০২১ এ ৬টি আইডিয়া বিজয়ী ও পুরস্কৃত

image

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড ২০২১ এর গ্র্যান্ড ফিনালেতে ৬টি উদ্ভাবনী আইডিয়া বিজয়ী হয়েছে। আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড প্রযুক্তিগত সমস্যা সমাধানে তরুণ উদ্ভাবকদের সাহায্যকারী একটি প্ল্যাটফর্ম। এতে প্রফেশনাল ট্র্যাক বিজয়ী ‘রিমোটলি’ পুরস্কার হিসাবে ১৫ লক্ষ টাকা পেয়েছে। প্রথম ও দ্বিতীয় রানার-আপ ‘এডুটেক’ ও ‘টিংকার্স টেকনোলজি লিমিটেড’ যথাক্রমে ১০ লাখ টাকা এবং ৫ লাখ টাকা পুরস্কার পেয়েছে। স্টুডেন্ট ট্র্যাক বিজয়ী ‘করি’কে পুরস্কার হিসাবে দুটি ম্যাকবুক, প্রথম রানার আপ ‘ওয়েবেল’কে দুটি ডেস্কটপ দেওয়া হয় এবং দ্বিতীয় রানার-আপ ‘কু অ্যাস্পায়ার’কে দুটি স্মার্টফোন দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিশেষ পুরস্কার হিসেবে ‘ত্রিমাত্রিক’ ও ‘মেইনলি কোডিং’কে ক্রেস্ট এবং সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য ড. সাজ্জাদ হুসেইন; বাংলাদেশ ব্যাংকের পেমেন্ট সিস্টেম ডিপার্টমেন্টের জেনারেল ম্যানেজার মো. মেজবাউল হক; এলআইসিটি’র পলিসি অ্যাডভাইজর সামি আহমেদ; ডেটাবার্ডের সিইও কাশেফ রহমান এবং ডেটাবার্ড-এর সিসিও সাদিয়া হক। রাজধানীর আগারগাঁও-এ অবস্থিত আইসিটি টাওয়ারের বিসিসি অডিটোরিয়ামে গ্র্যান্ড ফিনালেটি অনুষ্ঠিত হয়।

চলতি বছরের জুলাইয়ে ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড ২০২১ যাত্রা শুরু করে। ২৩ জন নারী উদ্যোক্তাসহ দেশজুড়ে ১০০০ জন উদ্ভাবকদের ৩৫০টিরও বেশি দল এতে অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগীরা দুটি বিভাগে অংশগ্রহণ করেন: স্টুডেন্ট এবং প্রফেশনাল ট্র্যাক। রেজিস্ট্রেশন, আইডিয়া ও প্রজেক্ট সাবমিশন, স্ক্রিনিং টেস্ট এবং ফাইনাল প্রেজেন্টেশন ইত্যাদি রাউন্ডে প্রতিযোগিতাটি বিভক্ত ছিল। সবশেষে, স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক বিজ্ঞ বিচারকমন্ডলী সেরা ৫টি সম্ভব্য ও বিনিয়োগযোগ্য আইডিয়াকে বিজয়ী হিসেবে নির্বাচিত করেন। বাজারচাহিদা, প্রযুক্তিগত মান, প্রেজেন্টেশনের দক্ষতা, প্রজেক্ট বাস্তবায়নের সম্ভাব্যতা ইত্যাদি মানদন্ডের ওপর ভিত্তি করে আইডিয়াগুলো সেরা বলে বিবেচিত হয়। প্রতিযোগীদের আইডিয়াগুলোকে আরও দক্ষ, উৎপাদনশীল এবং কার্যকরী করে তুলে ব্যবসায়িক পরিকল্পনা, ঝুঁকি, মূলধন ব্যবস্থাপনা, বিপণন, সাপ্লাই চেইন, সম্পদ ব্যবস্থাপনা, প্রযুক্তিগত ইত্যাদি বিভিন্ন ক্ষেত্রে সাহায্য করেছেন বিজ্ঞ বিচারকমন্ডলী।

উল্লেখ্য, ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে, দেশের মধ্যে একটি ইন্টারনেট ইকোসিস্টেম গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করছে ডেটাবার্ড লঞ্চপ্যাড। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।