আসিয়ান সম্মেলনে আমন্ত্রণ পাচ্ছে না মায়ানমার জান্তাপ্রধান

অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এসিয়ান ন্যাশন্সের (আসিয়ান) শীর্ষ সম্মেলনে মায়ানমার থেকে অরাজনৈতিক প্রতিনিধিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এই সম্মেলনে মায়ানমারের রাজনৈতিক প্রতিনিধিত্বের উপস্থিতি নিয়ে সদস্য রাষ্ট্রগুলো একমত হতে না পারায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত ফেব্রুয়ারিতে মায়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে বেসামরিক সরকারকে সরিয়ে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। সে সময় অং সান সু চিসহ বেশ কয়েকজন নেতা ও সরকারি কর্মকর্তাকে আটক করা হয়। তখন থেকেই দেশের ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণ করছে সামরিক জান্তা সরকার বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

আসিয়ানের সদস্য রাষ্ট্রগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা এক জরুরি বৈঠক করেন। ওই বৈঠকে মায়ানমারের জান্তাপ্রধান মিন অং হ্লেইংয়ের বদলে শীর্ষ সম্মেলনে মিয়ানমার থেকে অরাজনৈতিক প্রতিনিধি রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এই পদক্ষেপকে সাহসী উদ্যোগ বলে অভিহিত করা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জান্তা প্রধান মিন অং হ্লেইংকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত কঠিন হলেও আসিয়ানের বিশ্বাসযোগ্যতা বজায় রাখার জন্য এটি ছিল প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত। গত এপ্রিলে মায়ানমারে শান্তি ফিরিয়ে আনতে আসিয়ানের বিশেষ সম্মেলনে যেসব বিষয়ে সমঝোতা হয়েছিল সেগুলো যথাযথভাবে পালন করা হয়নি। জান্তা সরকার সে সময় এসব বিষয়ে একমত হলেও তারা তেমন কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি।

জান্তা সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর এর বিরোধিতা করে রাজপথে নামে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। সেনাবাহিনী বিক্ষোভ-প্রতিবাদ প্রতিহত করতে অভিযান শুরু করে। জাতিসংঘের হিসেব অনুযায়ী, মিয়ানমারে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে এক হাজারের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। গ্রেফতার হয়েছে আরও কয়েক হাজার মানুষ।

এদিকে আসিয়ানের বর্তমান সভাপতি দেশ ব্রুনেই বলছে, আগামী ২৬ থেকে ২৮ অক্টোবরের সম্মেলনে মায়ানমার থেকে অরাজনৈতিক প্রতিনিধি রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। দেশটি বলছে, মিয়ানমার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে না পারায় অনেক জোট সদস্যের চাপে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে মিন অং হ্লেইংয়ের পরিবর্তে কাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে সে বিষয়টি পরিস্কার করা হয়নি।

রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১ , ০১ কার্তিক ১৪২৮ ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আসিয়ান সম্মেলনে আমন্ত্রণ পাচ্ছে না মায়ানমার জান্তাপ্রধান

অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এসিয়ান ন্যাশন্সের (আসিয়ান) শীর্ষ সম্মেলনে মায়ানমার থেকে অরাজনৈতিক প্রতিনিধিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এই সম্মেলনে মায়ানমারের রাজনৈতিক প্রতিনিধিত্বের উপস্থিতি নিয়ে সদস্য রাষ্ট্রগুলো একমত হতে না পারায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত ফেব্রুয়ারিতে মায়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে বেসামরিক সরকারকে সরিয়ে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। সে সময় অং সান সু চিসহ বেশ কয়েকজন নেতা ও সরকারি কর্মকর্তাকে আটক করা হয়। তখন থেকেই দেশের ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণ করছে সামরিক জান্তা সরকার বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

আসিয়ানের সদস্য রাষ্ট্রগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা এক জরুরি বৈঠক করেন। ওই বৈঠকে মায়ানমারের জান্তাপ্রধান মিন অং হ্লেইংয়ের বদলে শীর্ষ সম্মেলনে মিয়ানমার থেকে অরাজনৈতিক প্রতিনিধি রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এই পদক্ষেপকে সাহসী উদ্যোগ বলে অভিহিত করা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জান্তা প্রধান মিন অং হ্লেইংকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত কঠিন হলেও আসিয়ানের বিশ্বাসযোগ্যতা বজায় রাখার জন্য এটি ছিল প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত। গত এপ্রিলে মায়ানমারে শান্তি ফিরিয়ে আনতে আসিয়ানের বিশেষ সম্মেলনে যেসব বিষয়ে সমঝোতা হয়েছিল সেগুলো যথাযথভাবে পালন করা হয়নি। জান্তা সরকার সে সময় এসব বিষয়ে একমত হলেও তারা তেমন কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি।

জান্তা সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর এর বিরোধিতা করে রাজপথে নামে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। সেনাবাহিনী বিক্ষোভ-প্রতিবাদ প্রতিহত করতে অভিযান শুরু করে। জাতিসংঘের হিসেব অনুযায়ী, মিয়ানমারে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে এক হাজারের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। গ্রেফতার হয়েছে আরও কয়েক হাজার মানুষ।

এদিকে আসিয়ানের বর্তমান সভাপতি দেশ ব্রুনেই বলছে, আগামী ২৬ থেকে ২৮ অক্টোবরের সম্মেলনে মায়ানমার থেকে অরাজনৈতিক প্রতিনিধি রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। দেশটি বলছে, মিয়ানমার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে না পারায় অনেক জোট সদস্যের চাপে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে মিন অং হ্লেইংয়ের পরিবর্তে কাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে সে বিষয়টি পরিস্কার করা হয়নি।