সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ব্যাপারে সজাগ থাকার আহ্বান

‘কুমিল্লায় মন্দিরের মধ্যে কোরআন শরীফ কিভাবে যায়? কারা রেখেছে?’-প্রশ্ন করে স্থানীয় সরকার সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, ‘এখন মন্দিরের মধ্যে কোরআন শরিফ রাখছে। সেখানে কোরআন শরিফ কীভাবে যায়? কারা রেখেছে? বসে ভিডিও করছে, আবার পুলিশকে খবর দিচ্ছে। এই ঘটনাগুলো নাটক সৃষ্টি করে জনগণকে উত্তেজিত করে হিন্দুদের বিরুদ্ধে আক্রমণ করাচ্ছে।’

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের প্রতিহত করতে স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিদের সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। গতকাল সোনারগাঁও হোটেলের ওই অনুষ্ঠানে তিনি এই আহ্বান জানান।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘যারা কোরআন শরিফ সেখানে রেখেছে। ওরা জানে মুসলিম, নিরীহ মানুষ, সরল মনের মানুষ মন্দিরের ওপর ক্ষেপে যাবে। তখন হিন্দু-মুসলমান দাঙ্গা লাগবে। দেশে অশান্তি লাগবে। আওয়ামী সরকার ব্যর্থ হয়েছে এটা প্রচার করবে। পাকিস্তানের মদদপুষ্ট প্রেতাত্মা আবার ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য স্বপ্ন দেখছে। সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য আজকে এসব করছে।’

তাজুল ইসলাম বলেন, ‘স্ব স্ব অবস্থান থেকে জনপ্রতিনিধিদের প্রস্তুত থাকতে। অবশ্যই এদের (সাম্প্রদায়িক শক্তি) প্রতিহত করতে হবে। বাংলাদেশ এদের কাছে নতি স্বীকার করবে না। সব বিবেকবান মানুষের কাছে আহ্বান করবো, এরা, যারা জাতিকে চিরতরে ধ্বংস করার পরিকল্পনা করছে, তাদেরকে অবশ্যই প্রতিহত করতে হবে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য যারা কাজ করবে, সম্মিলিতভাবে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই সচেতন হতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে পানি সরবরাহ, স্যানিটেশন ও হাইজিন (ওয়াশ) খাতে ৫০ বছরের অর্জন উদযাপন উপলক্ষে এই অনুষ্ঠান হয়। স্থানীয় সরকার বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব হেলালুদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইফুর রহমান প্রমুখ।

রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১ , ০১ কার্তিক ১৪২৮ ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ব্যাপারে সজাগ থাকার আহ্বান

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

‘কুমিল্লায় মন্দিরের মধ্যে কোরআন শরীফ কিভাবে যায়? কারা রেখেছে?’-প্রশ্ন করে স্থানীয় সরকার সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, ‘এখন মন্দিরের মধ্যে কোরআন শরিফ রাখছে। সেখানে কোরআন শরিফ কীভাবে যায়? কারা রেখেছে? বসে ভিডিও করছে, আবার পুলিশকে খবর দিচ্ছে। এই ঘটনাগুলো নাটক সৃষ্টি করে জনগণকে উত্তেজিত করে হিন্দুদের বিরুদ্ধে আক্রমণ করাচ্ছে।’

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের প্রতিহত করতে স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিদের সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। গতকাল সোনারগাঁও হোটেলের ওই অনুষ্ঠানে তিনি এই আহ্বান জানান।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘যারা কোরআন শরিফ সেখানে রেখেছে। ওরা জানে মুসলিম, নিরীহ মানুষ, সরল মনের মানুষ মন্দিরের ওপর ক্ষেপে যাবে। তখন হিন্দু-মুসলমান দাঙ্গা লাগবে। দেশে অশান্তি লাগবে। আওয়ামী সরকার ব্যর্থ হয়েছে এটা প্রচার করবে। পাকিস্তানের মদদপুষ্ট প্রেতাত্মা আবার ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য স্বপ্ন দেখছে। সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য আজকে এসব করছে।’

তাজুল ইসলাম বলেন, ‘স্ব স্ব অবস্থান থেকে জনপ্রতিনিধিদের প্রস্তুত থাকতে। অবশ্যই এদের (সাম্প্রদায়িক শক্তি) প্রতিহত করতে হবে। বাংলাদেশ এদের কাছে নতি স্বীকার করবে না। সব বিবেকবান মানুষের কাছে আহ্বান করবো, এরা, যারা জাতিকে চিরতরে ধ্বংস করার পরিকল্পনা করছে, তাদেরকে অবশ্যই প্রতিহত করতে হবে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য যারা কাজ করবে, সম্মিলিতভাবে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই সচেতন হতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে পানি সরবরাহ, স্যানিটেশন ও হাইজিন (ওয়াশ) খাতে ৫০ বছরের অর্জন উদযাপন উপলক্ষে এই অনুষ্ঠান হয়। স্থানীয় সরকার বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব হেলালুদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইফুর রহমান প্রমুখ।