বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম এখন গো-চারণ ভূমি, জীর্ণ ভবন

সংস্কার না করায় বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম ভবন ঝুঁকিপূর্ন হয়ে পড়েছে। মাঠে খেলাধুলা না থাকায় পরিনত হয়েছে গোচরণ ভূমিতে। দীর্ঘদিন কমিটি না থাকায় বেগমগঞ্জ ক্রীড়া সংস্থায় বিরাজ করছে স্থবিরতা ।

এলাকাবাসী জানান, বেগমগঞ্জে খেলাধুলার উন্নয়নে ২০০৬ সালে তৎকালীন সরকার নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের গনিপুরে স্টেডিয়ামটি স্থাপন করে।একমাত্র স্টেডিয়াম ভবনটি দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। দীর্ঘ ৯ বছর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার কমিটি না হওয়ায় বছরের পর বছর ক্রীড়াঙ্গনে বিরাজ করছে স্থবিরতা। স্টেডিয়ামের অভ্যন্তরে দিনরাত চলে বখাটেপনা, তাস-জুয়ার আসর ও অসামাজিক কার্যকলাপ। নেই খেলাধুলার পরিবেশ। খেলাধুলা না থাকায় শিশু-কিশোররা জড়িয়ে পড়ছে নেশাসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডে, তৈরি হচ্ছেনা কোন খেলোয়াড়। তাই স্টেডিয়ামটি সংস্কারসহ খেলার পরিবেশ সৃষ্টি করার দাবি খেলোয়ার, অভিভাবক ও স্থানীয়দের। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বারবার ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলেও যা কাজের কাজ কিছুই হচ্ছেনা।

বেগমগঞ্জবাসীর খেলাধুলার একমাত্র স্থান বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম যা বেশিরভাগ সময় থাকে তালা বদ্ধ। স্টেডিয়াম ভবনটি নির্মাণের পর থেকে আর সংস্কার হয়নি। ভবনের অভ্যন্তর বিরাজ করছে নোংরা পরিবেশ, খেলোয়াড়দের জন্য নির্মিত ওয়াশরুম, বিশ্রামরুম ও টয়লেট গুলো ব্যবহারের অনুপযোগী। জানা যায়, স্থানীয় শিশু-কিশোররা নিজ উদ্যোগে খেলাধুলার জন্য স্টেডিয়ামে আসলেও পরিবেশ না থাকায় তারা খেলাধুলা করতে পারেনা।

এ ব্যাপারে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সামছুন নাহার বলেন, বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম ভবন ও মাঠ সংস্কার এবং কমিটি গঠনের ব্যাপারে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য সচিব চৌমুহনী পৌরসভার মেয়র খালেদ সাইফুল্যাহ বলেন বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম উন্নয়নে যে কোন সহযোগীতার জন্য আমি সব সময় প্রস্তুত আছি।

সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১ , ০২ কার্তিক ১৪২৮ ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম এখন গো-চারণ ভূমি, জীর্ণ ভবন

প্রতিনিধি,বেগমগঞ্জ (নোয়াখালী)

image

বেগমগঞ্জ (নোয়াখালী) : ভবনের পলেস্তরা খসে পড়ার স্থান দেখাচ্ছেন একজন কর্মী। মাঠে চড়ে বেড়াচ্ছে গরুর পাল -সংবাদ

সংস্কার না করায় বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম ভবন ঝুঁকিপূর্ন হয়ে পড়েছে। মাঠে খেলাধুলা না থাকায় পরিনত হয়েছে গোচরণ ভূমিতে। দীর্ঘদিন কমিটি না থাকায় বেগমগঞ্জ ক্রীড়া সংস্থায় বিরাজ করছে স্থবিরতা ।

এলাকাবাসী জানান, বেগমগঞ্জে খেলাধুলার উন্নয়নে ২০০৬ সালে তৎকালীন সরকার নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের গনিপুরে স্টেডিয়ামটি স্থাপন করে।একমাত্র স্টেডিয়াম ভবনটি দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। দীর্ঘ ৯ বছর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার কমিটি না হওয়ায় বছরের পর বছর ক্রীড়াঙ্গনে বিরাজ করছে স্থবিরতা। স্টেডিয়ামের অভ্যন্তরে দিনরাত চলে বখাটেপনা, তাস-জুয়ার আসর ও অসামাজিক কার্যকলাপ। নেই খেলাধুলার পরিবেশ। খেলাধুলা না থাকায় শিশু-কিশোররা জড়িয়ে পড়ছে নেশাসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডে, তৈরি হচ্ছেনা কোন খেলোয়াড়। তাই স্টেডিয়ামটি সংস্কারসহ খেলার পরিবেশ সৃষ্টি করার দাবি খেলোয়ার, অভিভাবক ও স্থানীয়দের। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বারবার ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলেও যা কাজের কাজ কিছুই হচ্ছেনা।

বেগমগঞ্জবাসীর খেলাধুলার একমাত্র স্থান বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম যা বেশিরভাগ সময় থাকে তালা বদ্ধ। স্টেডিয়াম ভবনটি নির্মাণের পর থেকে আর সংস্কার হয়নি। ভবনের অভ্যন্তর বিরাজ করছে নোংরা পরিবেশ, খেলোয়াড়দের জন্য নির্মিত ওয়াশরুম, বিশ্রামরুম ও টয়লেট গুলো ব্যবহারের অনুপযোগী। জানা যায়, স্থানীয় শিশু-কিশোররা নিজ উদ্যোগে খেলাধুলার জন্য স্টেডিয়ামে আসলেও পরিবেশ না থাকায় তারা খেলাধুলা করতে পারেনা।

এ ব্যাপারে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সামছুন নাহার বলেন, বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম ভবন ও মাঠ সংস্কার এবং কমিটি গঠনের ব্যাপারে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য সচিব চৌমুহনী পৌরসভার মেয়র খালেদ সাইফুল্যাহ বলেন বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম উন্নয়নে যে কোন সহযোগীতার জন্য আমি সব সময় প্রস্তুত আছি।