এসবিএসি’র সাবেক চেয়ারম্যানসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

কাগুজে প্রতিষ্ঠানের নামে ২০ কোটি ৬০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স (এসবিএসি) ব্যাংক লিমিটেডের সাবেক চেয়ারম্যান এস এম আমজাদ হোসেনসহ সাত ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত বৃহস্পতিবার দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এর উপ-পরিচালক মো. গুলশান আনোয়ার প্রধান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

দুদকের জনসংযোগ থেকে জানানো হয়েছে এস এম আমজাদ হোসেন ছাড়াও আসামি করা হয়েছে, ফার্স্ট অ্যাসিস্টেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহা. মঞ্জুরুল আলম, ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সাবেক শাখাপ্রধান এস এম ইকবাল মেহেদী, এক্সিকিউটিভ অফিসার এবং ক্রেডিট ইনচার্জ মো. নজরুল ইসলাম, ব্যাংকটির খুলনার শাখার সাবেক এমটিও এবং ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার তপু কুমার সাহা, সিনিয়র অফিসার বিদ্যুৎ কুমার মণ্ডল ও সিনিয়র অফিসার মারিয়া খাতুনকে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, অনুসন্ধানকালে রেকর্ডপত্রাদি পর্যালোচনা, সংশ্লিষ্টদের বক্তব্য ও বিএফআইইউর গোয়েন্দা প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা যায় যে, সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লি.-এর সাবেক চেয়ারম্যান এস এম আমজাদ হোসেন নিজে লাভবান হওয়ার অসৎ উদ্দেশ্যে নিজ ক্ষমতার অপব্যবহারপূর্বক প্রতারণার মাধ্যমে বিশ্বাসভঙ্গ করে অন্য আসামিদের সহায়তায় ভুয়া ভিজিট প্রতিবেদন ও ভুয়া স্টক লট প্রস্তুত করে। খুলনা বিল্ডার্স লি. নামীয় কাগুজে প্রতিষ্ঠানের মালিককে ঋণ পাইয়ে দিতে সহযোগিতা করেন। সংশ্লিষ্ট ঋণের বেনিফিসিয়ারিরা সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লি. থেকে বিশ কোটি ষাট লাখ টাকা উত্তোলনপূর্বক আত্মসাৎ করেন এবং পরবর্তীতে বিভিন্ন লেয়ারিং-এর মাধ্যমে উক্ত অর্থ বিভিন্ন কোম্পানি ও ব্যক্তির হিসাবে স্থানান্তর ও রূপান্তরের মাধ্যমে আত্মসাৎ করেন।

আসামিদের বিরুদ্ধে ঋণের অর্থ নিজেদের ভোগদখলে রেখে তার অবৈধ প্রকৃতি, উৎস অবস্থান গোপন বা এর ছদ্মাবরণে পাচার করে দণ্ডবিধি, ১৮৬০ ও মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন-২০১২ এর সম্পৃক্ত ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন মর্মে প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে। অনুসন্ধানকালে রেকর্ডপত্রাদি বিশ্লেষণ করে দেখা যায় যে, খুলনা বিল্ডার্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান বেগম সুফিয়া আমজাদ হলেও মূলত উক্ত প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম আমজাদ হোসেনই একক স্বাক্ষরে সবকিছু পরিচালনা করত এবং মঞ্জুরিকৃত ঋণের অর্থ এস এম আমজাদ হোসেনের একক স্বাক্ষরযুক্ত চেকে উত্তোলিত হয়েছে।

শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১ , ০৭ কার্তিক ১৪২৮ ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সাড়ে ২০ কোটি টাকা আত্মসাৎ

এসবিএসি’র সাবেক চেয়ারম্যানসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

কাগুজে প্রতিষ্ঠানের নামে ২০ কোটি ৬০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স (এসবিএসি) ব্যাংক লিমিটেডের সাবেক চেয়ারম্যান এস এম আমজাদ হোসেনসহ সাত ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত বৃহস্পতিবার দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এর উপ-পরিচালক মো. গুলশান আনোয়ার প্রধান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

দুদকের জনসংযোগ থেকে জানানো হয়েছে এস এম আমজাদ হোসেন ছাড়াও আসামি করা হয়েছে, ফার্স্ট অ্যাসিস্টেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহা. মঞ্জুরুল আলম, ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সাবেক শাখাপ্রধান এস এম ইকবাল মেহেদী, এক্সিকিউটিভ অফিসার এবং ক্রেডিট ইনচার্জ মো. নজরুল ইসলাম, ব্যাংকটির খুলনার শাখার সাবেক এমটিও এবং ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার তপু কুমার সাহা, সিনিয়র অফিসার বিদ্যুৎ কুমার মণ্ডল ও সিনিয়র অফিসার মারিয়া খাতুনকে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, অনুসন্ধানকালে রেকর্ডপত্রাদি পর্যালোচনা, সংশ্লিষ্টদের বক্তব্য ও বিএফআইইউর গোয়েন্দা প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা যায় যে, সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লি.-এর সাবেক চেয়ারম্যান এস এম আমজাদ হোসেন নিজে লাভবান হওয়ার অসৎ উদ্দেশ্যে নিজ ক্ষমতার অপব্যবহারপূর্বক প্রতারণার মাধ্যমে বিশ্বাসভঙ্গ করে অন্য আসামিদের সহায়তায় ভুয়া ভিজিট প্রতিবেদন ও ভুয়া স্টক লট প্রস্তুত করে। খুলনা বিল্ডার্স লি. নামীয় কাগুজে প্রতিষ্ঠানের মালিককে ঋণ পাইয়ে দিতে সহযোগিতা করেন। সংশ্লিষ্ট ঋণের বেনিফিসিয়ারিরা সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লি. থেকে বিশ কোটি ষাট লাখ টাকা উত্তোলনপূর্বক আত্মসাৎ করেন এবং পরবর্তীতে বিভিন্ন লেয়ারিং-এর মাধ্যমে উক্ত অর্থ বিভিন্ন কোম্পানি ও ব্যক্তির হিসাবে স্থানান্তর ও রূপান্তরের মাধ্যমে আত্মসাৎ করেন।

আসামিদের বিরুদ্ধে ঋণের অর্থ নিজেদের ভোগদখলে রেখে তার অবৈধ প্রকৃতি, উৎস অবস্থান গোপন বা এর ছদ্মাবরণে পাচার করে দণ্ডবিধি, ১৮৬০ ও মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন-২০১২ এর সম্পৃক্ত ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন মর্মে প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে। অনুসন্ধানকালে রেকর্ডপত্রাদি বিশ্লেষণ করে দেখা যায় যে, খুলনা বিল্ডার্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান বেগম সুফিয়া আমজাদ হলেও মূলত উক্ত প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম আমজাদ হোসেনই একক স্বাক্ষরে সবকিছু পরিচালনা করত এবং মঞ্জুরিকৃত ঋণের অর্থ এস এম আমজাদ হোসেনের একক স্বাক্ষরযুক্ত চেকে উত্তোলিত হয়েছে।