হবিগঞ্জে পূজা মণ্ডপের পাশে কোরানসহ যুবক গ্রেপ্তার

হবিগঞ্জ শহরের চৌধুরীবাজার সার্বজনীন পূজামণ্ডপের পাশ থেকে কোরআনসহ এক অজ্ঞাত যুবককে আটক করেছেন স্থানীয়রা। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

গতকাল বিকেল চারটার দিকে স্থানীয় লোকজন তাকে আটক করে। ওই যুবককে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। তবে তার নাম পরিচয় জানা যায়নি।

স্থানীয়রা বলছেন ওই যুবক তার বাড়ি নোয়াখালী বলে জানিয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী সানি রায় জানান, গতকাল দুপুর থেকে ওই যুবক চৌধুরী বাজার সার্বজনীন পূজামণ্ডপের চারপাশে ঘুরাফেরা করছিল। এ সময় সেখানকার কয়েকজন লোক সন্দেহজনকভাবে তাকে নজরে রাখেন। এক পর্যায়ে ওই যুবক মণ্ডপের পেছনে গেলে স্থানীয় লোকজন তাকে আটক করে। এ সময় তার কাছে থাকা একটি ব্যাগে কোরআর পাওয়া যায়।

জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক বিপ্লব রায় সুজন বলেন, ওই যুবককে স্থানীয়রা আটক করে আমাকে খবর দেয়। আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে তার নাম পরিচয় জিজ্ঞেস করলে সে জানায় তার নাম মিজান, বাড়ি নোয়াখালী। এক পর্যায়ে সে নিজেকে পাগল দাবি করে। পরে আমরা আর সময়ক্ষ্যাপন না করে পুলিশকে খবর দেই।

খবর পেয়ে চৌধুরীবাজার ফাঁড়ি পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই যুবককে আটক করে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে সদর মডেল থানার ওসি মো. মাসুক আলী, পরিদর্শক (তদন্ত) দৌস মোহাম্মদ ঘটনাস্থলে আসেন। পরে ওই যুবককে সদর মডেল থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) দৌস মোহাম্মদ জানান, ওই যুবককে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। পরে বিস্তারিত জানানো হবে।

শনিবার, ২০ নভেম্বর ২০২১ , ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

হবিগঞ্জে পূজা মণ্ডপের পাশে কোরানসহ যুবক গ্রেপ্তার

image

হবিগঞ্জ শহরের চৌধুরীবাজার সার্বজনীন পূজামণ্ডপের পাশ থেকে কোরআনসহ এক অজ্ঞাত যুবককে আটক করেছেন স্থানীয়রা। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

গতকাল বিকেল চারটার দিকে স্থানীয় লোকজন তাকে আটক করে। ওই যুবককে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। তবে তার নাম পরিচয় জানা যায়নি।

স্থানীয়রা বলছেন ওই যুবক তার বাড়ি নোয়াখালী বলে জানিয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী সানি রায় জানান, গতকাল দুপুর থেকে ওই যুবক চৌধুরী বাজার সার্বজনীন পূজামণ্ডপের চারপাশে ঘুরাফেরা করছিল। এ সময় সেখানকার কয়েকজন লোক সন্দেহজনকভাবে তাকে নজরে রাখেন। এক পর্যায়ে ওই যুবক মণ্ডপের পেছনে গেলে স্থানীয় লোকজন তাকে আটক করে। এ সময় তার কাছে থাকা একটি ব্যাগে কোরআর পাওয়া যায়।

জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক বিপ্লব রায় সুজন বলেন, ওই যুবককে স্থানীয়রা আটক করে আমাকে খবর দেয়। আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে তার নাম পরিচয় জিজ্ঞেস করলে সে জানায় তার নাম মিজান, বাড়ি নোয়াখালী। এক পর্যায়ে সে নিজেকে পাগল দাবি করে। পরে আমরা আর সময়ক্ষ্যাপন না করে পুলিশকে খবর দেই।

খবর পেয়ে চৌধুরীবাজার ফাঁড়ি পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই যুবককে আটক করে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে সদর মডেল থানার ওসি মো. মাসুক আলী, পরিদর্শক (তদন্ত) দৌস মোহাম্মদ ঘটনাস্থলে আসেন। পরে ওই যুবককে সদর মডেল থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) দৌস মোহাম্মদ জানান, ওই যুবককে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। পরে বিস্তারিত জানানো হবে।