ব্যাংক ও আর্থিক খাতে পুরস্কার দিল মাস্টারকার্ড

কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল বলেন, ‘মাস্টারকার্ড শুরু থেকেই বাংলাদেশের মানুষকে উদ্ভাবনী ডিজিটাল পেমেন্ট সল্যুশন প্রদানের মাধ্যমে আর্থিক অন্তর্ভুক্তির প্রসারে গুরুত্ব দিয়ে আসছে। নিত্যনতুন টেকনোলজি এবং পার্টনারশিপের সমন্বয়ে মাস্টারকার্ড দেশে নিরবচ্ছিন্ন, নিরাপদ ও সুদক্ষ পেমেন্ট ইকোসিস্টেম গড়ার মাধ্যমে কার্ডহোল্ডারদেরকে সেরা আর্থিক সুল্যশন প্রদানে সচেষ্ট।’

গতকাল মাস্টারকার্ডের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বাংলাদেশে ব্যবসায়িক কার্যক্রমের ৩০ বছর পূর্তি এবং প্রতিষ্ঠানটির শীর্ষ অংশীদার ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও মার্চেন্টদের স্বীকৃতি হিসেবে ‘মাস্টারকার্ড এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ শীর্ষক পুরস্কার দিয়েছে মাস্টারকার্ড। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে পুরস্কার জয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। একই সঙ্গে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পূর্তি উদযাপন করা হয়।

মহামারির কঠিন পরিস্থিতিতে তারা পাশে থাকায় সবার জন্য নিত্যদিনের বাণিজ্যিক কার্যক্রম ছিল সহজ, নিরাপদ ও কার্যকর।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. খুরশিদ আলম এবং গেস্ট অফ অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স হেলেন লা ফেইভ। এছাড়া মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের পার্টনার ব্যাংক, ফিনটেক পার্টনারসহ অন্যান্য মার্চেন্ট প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এ বছর ১৬ ক্যাটাগরি বা শ্রেণিতে পুরস্কার দেয়া হয়। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান একাধিক শ্রেণিতে পুরস্কার পেয়েছে। পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে প্রাইম ব্যাংক, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি), দ্য সিটি ব্যাংক লিমিটেড, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড (ইবিএল), সাউথইস্ট ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, লঙ্কাবাংলা ফিন্যান্স, এসএসএল কমার্জ, আড়ং, বাটা, স্বপ্ন, ট্রান্সকম ডিজিটাল, বিকাশ, চালডাল, দারাজ বাংলাদেশ, ফুডপান্ডা, গ্রামীণফোন ও নগদ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশের আর্থিক খাতে অন্তর্ভুক্তি অর্জনের ক্ষেত্রে অবদান রাখা ব্যাংক, ফিনটেক ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুরস্কার দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো পুরস্কারটি দিল মাস্টারকার্ড।

রবিবার, ২১ নভেম্বর ২০২১ , ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

ব্যাংক ও আর্থিক খাতে পুরস্কার দিল মাস্টারকার্ড

কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল বলেন, ‘মাস্টারকার্ড শুরু থেকেই বাংলাদেশের মানুষকে উদ্ভাবনী ডিজিটাল পেমেন্ট সল্যুশন প্রদানের মাধ্যমে আর্থিক অন্তর্ভুক্তির প্রসারে গুরুত্ব দিয়ে আসছে। নিত্যনতুন টেকনোলজি এবং পার্টনারশিপের সমন্বয়ে মাস্টারকার্ড দেশে নিরবচ্ছিন্ন, নিরাপদ ও সুদক্ষ পেমেন্ট ইকোসিস্টেম গড়ার মাধ্যমে কার্ডহোল্ডারদেরকে সেরা আর্থিক সুল্যশন প্রদানে সচেষ্ট।’

গতকাল মাস্টারকার্ডের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বাংলাদেশে ব্যবসায়িক কার্যক্রমের ৩০ বছর পূর্তি এবং প্রতিষ্ঠানটির শীর্ষ অংশীদার ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও মার্চেন্টদের স্বীকৃতি হিসেবে ‘মাস্টারকার্ড এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ শীর্ষক পুরস্কার দিয়েছে মাস্টারকার্ড। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে পুরস্কার জয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। একই সঙ্গে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পূর্তি উদযাপন করা হয়।

মহামারির কঠিন পরিস্থিতিতে তারা পাশে থাকায় সবার জন্য নিত্যদিনের বাণিজ্যিক কার্যক্রম ছিল সহজ, নিরাপদ ও কার্যকর।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. খুরশিদ আলম এবং গেস্ট অফ অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স হেলেন লা ফেইভ। এছাড়া মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের পার্টনার ব্যাংক, ফিনটেক পার্টনারসহ অন্যান্য মার্চেন্ট প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এ বছর ১৬ ক্যাটাগরি বা শ্রেণিতে পুরস্কার দেয়া হয়। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান একাধিক শ্রেণিতে পুরস্কার পেয়েছে। পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে প্রাইম ব্যাংক, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি), দ্য সিটি ব্যাংক লিমিটেড, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড (ইবিএল), সাউথইস্ট ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, লঙ্কাবাংলা ফিন্যান্স, এসএসএল কমার্জ, আড়ং, বাটা, স্বপ্ন, ট্রান্সকম ডিজিটাল, বিকাশ, চালডাল, দারাজ বাংলাদেশ, ফুডপান্ডা, গ্রামীণফোন ও নগদ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশের আর্থিক খাতে অন্তর্ভুক্তি অর্জনের ক্ষেত্রে অবদান রাখা ব্যাংক, ফিনটেক ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুরস্কার দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো পুরস্কারটি দিল মাস্টারকার্ড।