পরিবেশ মন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদে জাবিতে মানববন্ধন

‘খাসিয়াসহ বেশ কিছু ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর মানুষের বসবাসে বন্য পশুরা নিরাপদ নয়’ পরিবেশ মন্ত্রির এই বক্তব্য প্রত্যাহার ও বন্যপ্রানী সংরক্ষণের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের পাদদেশে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

এসময় দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান বলেন, বন্য পশুরা দিন দিন বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে, এর জন্য আদিবাসীরা দায়ী না বরং আমরা দায়ী। বনের ভিতর সমতলের লোকদেরই ইজারা দিয়ে চাষ করতে দেয়া হয় আদিবাসীদের না। এবছরের জানুয়ারি মাস থেকে এখন পর্যন্ত বনের মধ্যে ২৫টি হাতি হত্যা করা হয়েছে। এসবের কোনও সুষ্ঠু বিচার হয়নি। বন বিভাগের এসবে কোনও ভূমিকা নেই। প্রাণীদের রক্ষা করতে হলে আদিবাসীদের নিয়ে এরকম ‘অযাচিত’ মন্তব্য না করে যারা প্রকৃত দোষী তাদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের শিক্ষার্থী রাকিবুল রনি বলেন, ১৫৫০ সাল থেকে আদিবাসীরা পাহাড়ি অঞ্চলগুলোতে বসবাস করছে। পাহাড়ে বিভিন্ন প্রাণীদের সঙ্গে পাঁচশ বছর ধরে যারা টিকে আছে তারা নিশ্চয়ই আত্মঘাতী না।

অবিলম্বে আদিবাসীদের নিয়ে মন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহার করে তাদের সাংবাধানিক স্বীকৃতির দাবি জানান এই শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ইয়াসির আরাফাত বর্ণের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের শিক্ষার্থী সুমাইয়া ফেরদৌস এবং প্রতœতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী সুদীপ্ত দে। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিলটি শহীদ মিনার থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে পরিবহণ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

উল্লেখ্য, গত বুধবার দেশের পাহাড়ি এলাকায় খাসিয়াসহ বেশ কিছু ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর মানুষের বসবাসের কারণে বন্যপশুরা নিরাপদ নয় বলে মন্তব্য করেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন। রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত ‘বন্য প্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য দমনে আইন প্রয়োগ শক্তিশালী করার লক্ষ্যে পরামর্শ সভা’য় এ বক্তব্য দেন মন্ত্রী।

রবিবার, ২১ নভেম্বর ২০২১ , ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

পরিবেশ মন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদে জাবিতে মানববন্ধন

‘খাসিয়াসহ বেশ কিছু ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর মানুষের বসবাসে বন্য পশুরা নিরাপদ নয়’ পরিবেশ মন্ত্রির এই বক্তব্য প্রত্যাহার ও বন্যপ্রানী সংরক্ষণের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের পাদদেশে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

এসময় দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান বলেন, বন্য পশুরা দিন দিন বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে, এর জন্য আদিবাসীরা দায়ী না বরং আমরা দায়ী। বনের ভিতর সমতলের লোকদেরই ইজারা দিয়ে চাষ করতে দেয়া হয় আদিবাসীদের না। এবছরের জানুয়ারি মাস থেকে এখন পর্যন্ত বনের মধ্যে ২৫টি হাতি হত্যা করা হয়েছে। এসবের কোনও সুষ্ঠু বিচার হয়নি। বন বিভাগের এসবে কোনও ভূমিকা নেই। প্রাণীদের রক্ষা করতে হলে আদিবাসীদের নিয়ে এরকম ‘অযাচিত’ মন্তব্য না করে যারা প্রকৃত দোষী তাদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের শিক্ষার্থী রাকিবুল রনি বলেন, ১৫৫০ সাল থেকে আদিবাসীরা পাহাড়ি অঞ্চলগুলোতে বসবাস করছে। পাহাড়ে বিভিন্ন প্রাণীদের সঙ্গে পাঁচশ বছর ধরে যারা টিকে আছে তারা নিশ্চয়ই আত্মঘাতী না।

অবিলম্বে আদিবাসীদের নিয়ে মন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহার করে তাদের সাংবাধানিক স্বীকৃতির দাবি জানান এই শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ইয়াসির আরাফাত বর্ণের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের শিক্ষার্থী সুমাইয়া ফেরদৌস এবং প্রতœতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী সুদীপ্ত দে। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিলটি শহীদ মিনার থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে পরিবহণ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

উল্লেখ্য, গত বুধবার দেশের পাহাড়ি এলাকায় খাসিয়াসহ বেশ কিছু ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর মানুষের বসবাসের কারণে বন্যপশুরা নিরাপদ নয় বলে মন্তব্য করেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন। রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত ‘বন্য প্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য দমনে আইন প্রয়োগ শক্তিশালী করার লক্ষ্যে পরামর্শ সভা’য় এ বক্তব্য দেন মন্ত্রী।