দেলদুয়ারে ভোটের ৯ দিন পর কেন্দ্রের ছাদে মিলল সিলমারা ৫২৭ ব্যালট

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে ভোট গ্রহণের ৯ দিন পর ভোট কেন্দ্রের ছাদে মিলল সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের তালগাছ প্রতীকে সিলমারা ৫২৭ ব্যালট পেপার। ঘটনাটি উপজেলা ডুবাইল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ডুবাইল সেহড়াতৈল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে। জানা যায়, ডুবাইল ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য প্রার্থী বিউটি আক্তার দ্বিতীয় দফার ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে তালগাছ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দি¦তা করেন। ভোট গ্রহণ শেষে সংশ্লিষ্ট প্রিজাইডিং অফিসার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মাইক প্রতীকের রাশেদা বেগমকে ২৭০ ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী ঘোষণা করেন। গত শনিবার ভোট কেন্দ্রের ছাদে স্কুল শিক্ষার্থীরা তালগাছ প্রতীকে সিলমারা ছড়ানো ছিটানো ব্যালট পেপার দেখতে পেয়ে প্রার্থী বিউটি আক্তারকে খরব দেয়। পরে প্রার্থী তার সমর্থকদের নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ৫২৭টি সিলমারা এবং সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের স্বাক্ষর সম্বলিত ব্যালট পেপার উদ্ধার করেন। প্রার্থী বিউটি আক্তার বলেন, ভোটাররা আমাকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেছিল। ঘোষণা মতে আমি ২৭০ ভোটে পরাজিত হয়েছি। আমার তালগাছ প্রতীকের ৫২৭ ব্যালট পেপার চুরি করে আমাকে পরাজিত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মওলানা ভাসানী ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মাহমুদুল হাসানের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আব্দুল বাতেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ঘটনাটি আশি শুনেছি। দেখে পরে বিষয়টি নিয়ে বলতে পারব।

সোমবার, ২২ নভেম্বর ২০২১ , ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

দেলদুয়ারে ভোটের ৯ দিন পর কেন্দ্রের ছাদে মিলল সিলমারা ৫২৭ ব্যালট

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে ভোট গ্রহণের ৯ দিন পর ভোট কেন্দ্রের ছাদে মিলল সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের তালগাছ প্রতীকে সিলমারা ৫২৭ ব্যালট পেপার। ঘটনাটি উপজেলা ডুবাইল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ডুবাইল সেহড়াতৈল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে। জানা যায়, ডুবাইল ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য প্রার্থী বিউটি আক্তার দ্বিতীয় দফার ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে তালগাছ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দি¦তা করেন। ভোট গ্রহণ শেষে সংশ্লিষ্ট প্রিজাইডিং অফিসার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মাইক প্রতীকের রাশেদা বেগমকে ২৭০ ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী ঘোষণা করেন। গত শনিবার ভোট কেন্দ্রের ছাদে স্কুল শিক্ষার্থীরা তালগাছ প্রতীকে সিলমারা ছড়ানো ছিটানো ব্যালট পেপার দেখতে পেয়ে প্রার্থী বিউটি আক্তারকে খরব দেয়। পরে প্রার্থী তার সমর্থকদের নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ৫২৭টি সিলমারা এবং সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের স্বাক্ষর সম্বলিত ব্যালট পেপার উদ্ধার করেন। প্রার্থী বিউটি আক্তার বলেন, ভোটাররা আমাকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেছিল। ঘোষণা মতে আমি ২৭০ ভোটে পরাজিত হয়েছি। আমার তালগাছ প্রতীকের ৫২৭ ব্যালট পেপার চুরি করে আমাকে পরাজিত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মওলানা ভাসানী ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মাহমুদুল হাসানের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আব্দুল বাতেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ঘটনাটি আশি শুনেছি। দেখে পরে বিষয়টি নিয়ে বলতে পারব।