বেকার জসীমের স্বপ্ন তছনছ

ফলন্ত লাউ ক্ষেত কর্তন দুর্বৃত্তের

দরিদ্র পিতার এম এ পাস ছেলে বেকার জসীমের স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন রাতের আঁধারে কেড়ে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গত শুক্রবার রাতে ভালুকার হবিরবাড়ী ইউনিয়নের পাড়াগাঁও গ্রামের শিক্ষিত বেকার কৃষক জসীম উদ্দীনের খেতের ফলধরা প্রায় শতাধিক লাউ গাছ গোড়া হতে কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা।

জসীম উদ্দীন জানান, তার দরিদ্র বাবা অনেক কষ্ট করে লেখাপড়া করালেও চাকরির যোগার করতে না পেরে বেকার জীবন কাটাচ্ছিলেন তিনি। বেকারত্ব দূর করতে কৃষি বিভাগের পরামর্শ নিয়ে নিজস্ব ১৪ শতাংশ জমিতে প্রথম বারের মতো লাউয়ের চারা রোপণ করে কৃষি কাজ শুরু করেন। নিজে এবং শ্রমিক দিয়ে গাছ গুলির পরিচর্যা করায় বর্তমানে গাছগুলো মাচা ছেয়ে ফল ধরতে শুরু করেছে। ধার দেনা করে এ পর্যন্ত তিনি ২৫-৩০ হাজার টাকার মতো খরচ করেছেন। তার স্বপ্ন ছিল চাকরির পেছনে সময় নষ্ট না করে লাউয়ের ফলনের টাকায় ধারদেনা শোধ দিয়ে আস্তে আস্তে অন্য সবজির আবাদ শুরু করবেন। তার লাউধরা গাছগুলো কেটে ফেলায় প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতির সম্মুখীন। এখন তিনি সর্বস্বান্ত হয়ে গেছেন। ঘটনাটি জানিয়ে তিনি স্থানীয় ইউপি মেম্বারসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিকট বিচার দাবি করেছেন। তবে কেবা কারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে এ ব্যাপারে কেউ কিছু জানাতে পারেনি।

সোমবার, ২২ নভেম্বর ২০২১ , ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

বেকার জসীমের স্বপ্ন তছনছ

ফলন্ত লাউ ক্ষেত কর্তন দুর্বৃত্তের

image

দরিদ্র পিতার এম এ পাস ছেলে বেকার জসীমের স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন রাতের আঁধারে কেড়ে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গত শুক্রবার রাতে ভালুকার হবিরবাড়ী ইউনিয়নের পাড়াগাঁও গ্রামের শিক্ষিত বেকার কৃষক জসীম উদ্দীনের খেতের ফলধরা প্রায় শতাধিক লাউ গাছ গোড়া হতে কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা।

জসীম উদ্দীন জানান, তার দরিদ্র বাবা অনেক কষ্ট করে লেখাপড়া করালেও চাকরির যোগার করতে না পেরে বেকার জীবন কাটাচ্ছিলেন তিনি। বেকারত্ব দূর করতে কৃষি বিভাগের পরামর্শ নিয়ে নিজস্ব ১৪ শতাংশ জমিতে প্রথম বারের মতো লাউয়ের চারা রোপণ করে কৃষি কাজ শুরু করেন। নিজে এবং শ্রমিক দিয়ে গাছ গুলির পরিচর্যা করায় বর্তমানে গাছগুলো মাচা ছেয়ে ফল ধরতে শুরু করেছে। ধার দেনা করে এ পর্যন্ত তিনি ২৫-৩০ হাজার টাকার মতো খরচ করেছেন। তার স্বপ্ন ছিল চাকরির পেছনে সময় নষ্ট না করে লাউয়ের ফলনের টাকায় ধারদেনা শোধ দিয়ে আস্তে আস্তে অন্য সবজির আবাদ শুরু করবেন। তার লাউধরা গাছগুলো কেটে ফেলায় প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতির সম্মুখীন। এখন তিনি সর্বস্বান্ত হয়ে গেছেন। ঘটনাটি জানিয়ে তিনি স্থানীয় ইউপি মেম্বারসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিকট বিচার দাবি করেছেন। তবে কেবা কারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে এ ব্যাপারে কেউ কিছু জানাতে পারেনি।