হলে হলে শিক্ষার্থী নির্যাতনের অভিযোগ ঢাবিতে বিক্ষোভ ছাত্র অধিকার পরিষদের

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে চলমান গেস্টরুম নির্যাতনের প্রতিবাদে এবং গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ-পাসের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদ ও প্রজ্ঞাপন দিয়ে হাফ-পাস নিশ্চিতকরণের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

গতকাল দুপুর সাড়ে ১১টায় রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু হয়। সমাবেশ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্য থেকে মিছিল শুরু হয়ে কলাভবন, মধুর কেন্টিন, কেন্দ্রীয় প্রদক্ষিণ করে রাজু ভাস্কর্যে এসে শেষ হয়। সমাবেশে ডাকসু নির্বাচন চাই, গেস্টরুম নির্যাতন বন্ধ করো, হলে হলে নির্যাতন বন্ধ করো, পলিটিক্যাল রুম বাতিল করো, হাফ-পাস নিশ্চিত করো, ইত্যাদি প্লাকার্ড নিয়ে শিক্ষার্থীদের দাঁড়াতে দেখা যায়।

সমাবেশে ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা বলেন, ‘সারাদেশে শিক্ষার্থীদের হাফ-পাসের আন্দোলনে ছাত্র অধিকার পরিষদের পক্ষ থেকে পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি। শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা ও নারী শিক্ষার্থীদের লাঞ্ছনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। প্রজ্ঞাপন দিয়ে হাফ-পাস নিশ্চিত না করলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর আরও হামলা করা হলে নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের মতো আমরা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে রাজপথে নামবো। হলে হলে শিক্ষার্থীদের উপর নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।

শিক্ষার্থীদের রাজনৈতিক দাসে পরিণত করার গেস্ট রুম কালচার বন্ধ করতে হবে। আগামী ১ ডিসেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ডাকসু নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করতে হবে। ডাকসুসহ সারাদেশে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দিয়ে ক্যাম্পাসগুলোতে গণতান্ত্রিক ও শিক্ষার্থীবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।

ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আদীব বলেন, ‘শতবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোকে ক্ষমতাসীন ছাত্রলীগ কারাগারে পরিণত করেছে। হল কমিটির উদ্দেশ্যে শিক্ষার্থীদের জোর করে মিছিলে নিয়ে যাচ্ছে, যারা যেতে অস্বীকৃতি জানায় তাদের গেস্টরুমে নিয়ে নির্যাতন করছে। ছাত্রলীগের উদ্দেশ্যে বলবো ক্ষমতার অপব্যবহার করে, সন্ত্রাসী ভয় দেখিয়ে রাজনীতি না করে শিক্ষার্থীদের জন্য একটি নিরাপদ ক্যাম্পাসের জন্য রাজনীতি করুন।

ছাত্র অধিকার পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মোল্যা রহমাতুল্লাহ্ বলেন, ‘একুশ শতকে এসে আমাদের বারবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গেস্টরুম নামক নির্যাতনের এমন ঘৃণিত ঘটনার মুখোমুখি হতে হচ্ছে, যা আমাদের প্রশাসনিক কাঠামোর দুর্বলতা প্রকাশ করে। যারা এ সব ঘৃণিত কাজের সঙ্গে জড়িত তারা মাদকাসক্ত ও বিকৃত মস্তিষ্কের।’

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসাইন, সহসভাপতি আসিম মাহমুদ, রোকেয়া জাবেদ মায়া, শাকিল মিয়া, সোহেল মৃধা, শাহ মুহাম্মদ সাগরসহ আরও অনেকে।

image

ঢাবি আবাসিক হলগুলোতে নির্যাতন বন্ধ ও ডাকসু নির্বাচনের দাবিতে গতকাল ছাত্র অধিকার পরিষদ ঢাবি ক্যাম্পাসে মানববন্ধন করে -সংবাদ

আরও খবর
যে যে দলেই থাকুক না কেন, মুক্তিযোদ্ধা মুক্তিযোদ্ধাই : প্রধানমন্ত্রী
শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতির শ্রদ্ধা
খালেদার চিকিৎসা নিয়ে বিএনপি বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে ব্যবস্থা          স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
দেশে নদীর সংখ্যা ও দখলদারের তালিকা জানতে চায় হাইকোর্ট
হাইকোর্টের আদেশ না মেনে সন্তানকে নিয়ে পালালেন বাবা
তৃণমূল নেত্রী সায়নী গ্রেপ্তার
বাবার জিম্মায় থাকবে দুই শিশু, দেখা করতে পারবেন মা
শিশু-কিশোরদের প্রতিভা বিকাশের লক্ষ্যেই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান
ছাত্র হলের তুলনায় প্রার্থী কম ছাত্রী হলে

সোমবার, ২২ নভেম্বর ২০২১ , ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

হলে হলে শিক্ষার্থী নির্যাতনের অভিযোগ ঢাবিতে বিক্ষোভ ছাত্র অধিকার পরিষদের

image

ঢাবি আবাসিক হলগুলোতে নির্যাতন বন্ধ ও ডাকসু নির্বাচনের দাবিতে গতকাল ছাত্র অধিকার পরিষদ ঢাবি ক্যাম্পাসে মানববন্ধন করে -সংবাদ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে চলমান গেস্টরুম নির্যাতনের প্রতিবাদে এবং গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ-পাসের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদ ও প্রজ্ঞাপন দিয়ে হাফ-পাস নিশ্চিতকরণের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

গতকাল দুপুর সাড়ে ১১টায় রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু হয়। সমাবেশ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্য থেকে মিছিল শুরু হয়ে কলাভবন, মধুর কেন্টিন, কেন্দ্রীয় প্রদক্ষিণ করে রাজু ভাস্কর্যে এসে শেষ হয়। সমাবেশে ডাকসু নির্বাচন চাই, গেস্টরুম নির্যাতন বন্ধ করো, হলে হলে নির্যাতন বন্ধ করো, পলিটিক্যাল রুম বাতিল করো, হাফ-পাস নিশ্চিত করো, ইত্যাদি প্লাকার্ড নিয়ে শিক্ষার্থীদের দাঁড়াতে দেখা যায়।

সমাবেশে ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা বলেন, ‘সারাদেশে শিক্ষার্থীদের হাফ-পাসের আন্দোলনে ছাত্র অধিকার পরিষদের পক্ষ থেকে পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি। শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা ও নারী শিক্ষার্থীদের লাঞ্ছনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। প্রজ্ঞাপন দিয়ে হাফ-পাস নিশ্চিত না করলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর আরও হামলা করা হলে নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের মতো আমরা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে রাজপথে নামবো। হলে হলে শিক্ষার্থীদের উপর নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।

শিক্ষার্থীদের রাজনৈতিক দাসে পরিণত করার গেস্ট রুম কালচার বন্ধ করতে হবে। আগামী ১ ডিসেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ডাকসু নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করতে হবে। ডাকসুসহ সারাদেশে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দিয়ে ক্যাম্পাসগুলোতে গণতান্ত্রিক ও শিক্ষার্থীবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।

ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আদীব বলেন, ‘শতবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোকে ক্ষমতাসীন ছাত্রলীগ কারাগারে পরিণত করেছে। হল কমিটির উদ্দেশ্যে শিক্ষার্থীদের জোর করে মিছিলে নিয়ে যাচ্ছে, যারা যেতে অস্বীকৃতি জানায় তাদের গেস্টরুমে নিয়ে নির্যাতন করছে। ছাত্রলীগের উদ্দেশ্যে বলবো ক্ষমতার অপব্যবহার করে, সন্ত্রাসী ভয় দেখিয়ে রাজনীতি না করে শিক্ষার্থীদের জন্য একটি নিরাপদ ক্যাম্পাসের জন্য রাজনীতি করুন।

ছাত্র অধিকার পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মোল্যা রহমাতুল্লাহ্ বলেন, ‘একুশ শতকে এসে আমাদের বারবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গেস্টরুম নামক নির্যাতনের এমন ঘৃণিত ঘটনার মুখোমুখি হতে হচ্ছে, যা আমাদের প্রশাসনিক কাঠামোর দুর্বলতা প্রকাশ করে। যারা এ সব ঘৃণিত কাজের সঙ্গে জড়িত তারা মাদকাসক্ত ও বিকৃত মস্তিষ্কের।’

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসাইন, সহসভাপতি আসিম মাহমুদ, রোকেয়া জাবেদ মায়া, শাকিল মিয়া, সোহেল মৃধা, শাহ মুহাম্মদ সাগরসহ আরও অনেকে।