সাংবাদিক রিশাদকে মারপিট কারাগারে ছাত্রলীগ নেতা বাবু

বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালকের ছেলে সাংবাদিক রিশাদ হুদাকে মারপিট। মামলায় কারাগারে গেলেন শীর্ষ সন্ত্রাসী পিচ্চি হান্নানের ভাগিনা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজিম আহমেদ বাবু। গত শনিবার গ্রেপ্তার করার পর ওই মামলায় গতকাল আদালতে তোলা হয় শীর্ষ সন্ত্রাসী পিচ্চি হান্নানের ভাগিনা নাজিম বাবুকে। এরপর আদালত তাকে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

এর আগে শনিবার গাড়ির সাইড চাওয়ায় শীর্ষ সন্ত্রাসী পিচ্চি হান্নানের ভাগিনা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা নাজিম আলম বাবুর ক্যাডার বাহিনীর হামলা চালিয়ে মারধর করে গুরুত্বর আহত করেন ইনডিপেনডেন্ট টিভির সিনিয়ার রিপোর্টার রিশাদ হুদাকে। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়। এ ঘটনায় রাতে মামলা দায়েরের পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাজিম আহমেদ বাবুকে গ্রেপ্তার করেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, শাহবাগে ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের সাংবাদিক ও বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালকের ছেলে রিশাদ হুদার ওপর হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ধানমন্ডি থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাজিম আহমেদ বাবুকে রাতেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল তাকে আদালতে হাজির করা হলে আদালত বাবুকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নুরের আদালত এই আদেশ দেন।

শাহবাগ থানার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আলামিন আসামিকে আদালতে হাজির করেন। এরপর মামলাটির তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার জন্য আবেদন করেন। তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

সাংবাদিক রিশাদ হুদা জানান, শনিবার বিকেলে সোয়া ৫টার দিকে আজিজ সুপার মার্কেটের পেছনের গলি দিয়ে মোটরবাইকে যাওয়ার সময় পেছন থেকে হর্ন বাজিয়ে জায়গা চান তিনি। এ সময় ধানমন্ডি থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি পরিচয় দেয়া নাজিম আহমেদের গাড়ি থেকে চার জন বের হয়ে তার ওপর হামলা চালান। হামলাকারীরা হেলমেট দিয়ে তার মাথা, বুক ও পিঠে এলোপাতারি আঘাত করেন। পরে আজিজ সুপার মার্কেটের ভেতরে নিয়ে তাকে আবারও মারধর করা হয়। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে রিশাদ হুদা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেন।

সোমবার, ২২ নভেম্বর ২০২১ , ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

সাংবাদিক রিশাদকে মারপিট কারাগারে ছাত্রলীগ নেতা বাবু

বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালকের ছেলে সাংবাদিক রিশাদ হুদাকে মারপিট। মামলায় কারাগারে গেলেন শীর্ষ সন্ত্রাসী পিচ্চি হান্নানের ভাগিনা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজিম আহমেদ বাবু। গত শনিবার গ্রেপ্তার করার পর ওই মামলায় গতকাল আদালতে তোলা হয় শীর্ষ সন্ত্রাসী পিচ্চি হান্নানের ভাগিনা নাজিম বাবুকে। এরপর আদালত তাকে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

এর আগে শনিবার গাড়ির সাইড চাওয়ায় শীর্ষ সন্ত্রাসী পিচ্চি হান্নানের ভাগিনা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা নাজিম আলম বাবুর ক্যাডার বাহিনীর হামলা চালিয়ে মারধর করে গুরুত্বর আহত করেন ইনডিপেনডেন্ট টিভির সিনিয়ার রিপোর্টার রিশাদ হুদাকে। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়। এ ঘটনায় রাতে মামলা দায়েরের পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাজিম আহমেদ বাবুকে গ্রেপ্তার করেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, শাহবাগে ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের সাংবাদিক ও বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালকের ছেলে রিশাদ হুদার ওপর হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ধানমন্ডি থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাজিম আহমেদ বাবুকে রাতেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল তাকে আদালতে হাজির করা হলে আদালত বাবুকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নুরের আদালত এই আদেশ দেন।

শাহবাগ থানার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আলামিন আসামিকে আদালতে হাজির করেন। এরপর মামলাটির তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার জন্য আবেদন করেন। তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

সাংবাদিক রিশাদ হুদা জানান, শনিবার বিকেলে সোয়া ৫টার দিকে আজিজ সুপার মার্কেটের পেছনের গলি দিয়ে মোটরবাইকে যাওয়ার সময় পেছন থেকে হর্ন বাজিয়ে জায়গা চান তিনি। এ সময় ধানমন্ডি থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি পরিচয় দেয়া নাজিম আহমেদের গাড়ি থেকে চার জন বের হয়ে তার ওপর হামলা চালান। হামলাকারীরা হেলমেট দিয়ে তার মাথা, বুক ও পিঠে এলোপাতারি আঘাত করেন। পরে আজিজ সুপার মার্কেটের ভেতরে নিয়ে তাকে আবারও মারধর করা হয়। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে রিশাদ হুদা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেন।