সশস্ত্র বাহিনী দিবসে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারকে বিমান ও নৌবাহিনীর সংবর্ধনা

সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও কিলো ফ্লাইটের বৈমানিক এবং তাদের উত্তরাধিকারীদের সংবর্ধনা প্রদান করেছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী। বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল শেখ আবদুল হান্নান তেজগাঁওস্থ বিএএফ শাহীন হলে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে মোট ২৫ জন সদস্যকে সংবর্ধনাদেন। অনুষ্ঠানে ‘কিলোফ্লাইট’-এর অসামরিক বৈমানিকদেরও সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে বিমান বাহিনী প্রধান খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও কিলো ফ্লাইটের বৈমানিক এবং তাদের উত্তরাধিকারীদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। বিমান বাহিনী প্রধান তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ সকল বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী সকল শহীদদের।

এছাড়াও, তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে বিমান বাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও কিলো ফ্লাইটের বৈমানিকদের অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। অনুষ্ঠানে প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারগণসহ বিমান বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে নৌবাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত ১৯ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীগণকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া ২০২০ সালে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বীরত্ব ও সাহসিকতাপূর্ণ কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ৩৮ জন নৌসদস্যদের শান্তিকালীন পদকে ভূষিত করা হয়েছে। বনানীস্থ নৌ সদর সাগরিকা হলে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল শাহীন ইকবাল এই সম্মাননা ও শান্তিকালীন পদক তুলে দেন।

শান্তিকালীন পদক প্রাপ্তদের মধ্যে ২ জন নৌবাহিনী পদক (এনবিপি), ৪ জন অসামান্য সেবা পদক (ওএসপি), ৫ জন বিশিষ্ট সেবা পদক (বিএসপি), ৭ জন নৌ গৌরব পদক (এনজিপি), ১০ জন নৌ উৎকর্ষ পদক (এনইউপি) এবং ১০ জন নৌ পারদর্শিতা পদক (এনপিপি) পদকে ভূষিত হয়েছেন।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল আমিন এর পরিবার, ৫ জন বীর উত্তম, ৫ জন বীর বিক্রম, ৮ জন বীর প্রতীক মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তান এবং পরিবারবর্গের সদস্যগণসহ নৌসদরের পিএসও’গণ ও ঢাকা নৌ অঞ্চলের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল আমিন, ইআরএ-১ এর কন্যা নুরজাহান বেগম সম্মাননা গ্রহণ করেন। এছাড়া বীর মুক্তিযোদ্ধা কমডোর আবদুল ওয়াহেদ চৌধুরী, বিএন (অব.) বীর উত্তম, বীর বিক্রম, লে. কমান্ডার মো. জালাল উদ্দিন, বিএন (অব.) বীর উত্তম ও মরহুম আফজাল মিয়া, ইআরএ-১ (অব.) বীর উত্তম এর কন্যা হোসনে আরা আক্তার রুবীসহ উপস্থিত অন্যান্য খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীগণের হাতে সম্মাননা তুলে দেয়া হয়।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নৌপ্রধান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধাভরে স¥রণ করেন। এছাড়াও তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী লাখো শহীদদের কথা সশ্রদ্ধচিত্তে স¥রণ করেন।

সোমবার, ২২ নভেম্বর ২০২১ , ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

সশস্ত্র বাহিনী দিবসে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারকে বিমান ও নৌবাহিনীর সংবর্ধনা

image

সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও কিলো ফ্লাইটের বৈমানিক এবং তাদের উত্তরাধিকারীদের সংবর্ধনা প্রদান করেছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী। বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল শেখ আবদুল হান্নান তেজগাঁওস্থ বিএএফ শাহীন হলে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে মোট ২৫ জন সদস্যকে সংবর্ধনাদেন। অনুষ্ঠানে ‘কিলোফ্লাইট’-এর অসামরিক বৈমানিকদেরও সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে বিমান বাহিনী প্রধান খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও কিলো ফ্লাইটের বৈমানিক এবং তাদের উত্তরাধিকারীদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। বিমান বাহিনী প্রধান তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ সকল বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী সকল শহীদদের।

এছাড়াও, তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে বিমান বাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও কিলো ফ্লাইটের বৈমানিকদের অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। অনুষ্ঠানে প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারগণসহ বিমান বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে নৌবাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত ১৯ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীগণকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া ২০২০ সালে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বীরত্ব ও সাহসিকতাপূর্ণ কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ৩৮ জন নৌসদস্যদের শান্তিকালীন পদকে ভূষিত করা হয়েছে। বনানীস্থ নৌ সদর সাগরিকা হলে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল শাহীন ইকবাল এই সম্মাননা ও শান্তিকালীন পদক তুলে দেন।

শান্তিকালীন পদক প্রাপ্তদের মধ্যে ২ জন নৌবাহিনী পদক (এনবিপি), ৪ জন অসামান্য সেবা পদক (ওএসপি), ৫ জন বিশিষ্ট সেবা পদক (বিএসপি), ৭ জন নৌ গৌরব পদক (এনজিপি), ১০ জন নৌ উৎকর্ষ পদক (এনইউপি) এবং ১০ জন নৌ পারদর্শিতা পদক (এনপিপি) পদকে ভূষিত হয়েছেন।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল আমিন এর পরিবার, ৫ জন বীর উত্তম, ৫ জন বীর বিক্রম, ৮ জন বীর প্রতীক মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তান এবং পরিবারবর্গের সদস্যগণসহ নৌসদরের পিএসও’গণ ও ঢাকা নৌ অঞ্চলের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল আমিন, ইআরএ-১ এর কন্যা নুরজাহান বেগম সম্মাননা গ্রহণ করেন। এছাড়া বীর মুক্তিযোদ্ধা কমডোর আবদুল ওয়াহেদ চৌধুরী, বিএন (অব.) বীর উত্তম, বীর বিক্রম, লে. কমান্ডার মো. জালাল উদ্দিন, বিএন (অব.) বীর উত্তম ও মরহুম আফজাল মিয়া, ইআরএ-১ (অব.) বীর উত্তম এর কন্যা হোসনে আরা আক্তার রুবীসহ উপস্থিত অন্যান্য খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীগণের হাতে সম্মাননা তুলে দেয়া হয়।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নৌপ্রধান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধাভরে স¥রণ করেন। এছাড়াও তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী লাখো শহীদদের কথা সশ্রদ্ধচিত্তে স¥রণ করেন।