স্বতন্ত্র প্রার্থীকে এলাকায় ঢুকতে দেওয়া হবে না

আসন্ন ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল হান্নান মোল্যার নির্বাচনী প্রচারণায় এসে গত শনিবার রাতে গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র মোঃ নজরুল ইসলাম মন্ডল প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে বলেছেন, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আহম্মেদ আলী মাষ্টার আওয়ামী লীগের লোক, তিনি মনোনয়ন প্রত্যাহারের কথা বলে মোবাইল বন্ধ রেখে প্রার্থী হয়েছেন। তাকে এলাকায় ঢুকতে দেওয়া হবে না। তার কোন এজেন্ট দিতে দেওয়া হবে না। নৌকার সাথে যারা মীরজাফরগীরি করেছে, তাদেরকে আমরা গোয়ালন্দে রাখেনি। ইসলামপুরের মানুষ শান্তিপুর্ণ ভাবে ঘুমাবে না, তা নির্বাচনে সিদ্ধান্ত নিবেন। কারসাথে লড়তে এসেছে মাষ্টার এবার আমরা দেখাবো, কিভাবে নির্বাচন হয়, গোয়ালন্দে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সবগুলো ওয়ার্ডে নৌকার বিজয়ী করেছি। আমরা নির্বাচনের দিন ১,২ ও ৩নং ওয়ার্ডে থাকবো। এ ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আহম্মদ আলী মাষ্টার বলেন, গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম মন্ডল নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্গন করেছেন। ভোটারদের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।

আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী বলেন, আসলে তিনি বেড়াতে এসেছিলেন। তার বক্তব্যে দেওয়া ঠিক হয়নি। বহরপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ খলিলুর রহমান খান বলেন, ইলিশকোল চরপাড়াতে নির্বাচনী সভায় নৌকার প্রার্থীর উপস্থিতিতে আসাদুজ্জামান জাহাঙ্গীর নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্গন করে বলেছেন, নৌকার বিপক্ষে যারা ভোট দিবে তাদেরকে কেন্দ্রে যেতে দেওয়া হবে না, কোন এজেন্ট থাকতে দিবো না।

এ ব্যাপারে গত রোববার উপজেলা নির্বাচন অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জঙ্গল ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নৃপেন্দ্রনাথ বিশ্বাস বলেন, আমার কর্মীদের মারধোর, হুমকি-ধামকি দেওয়াসহ ভোটারদের মাঝে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টির পয়তারা চালাচ্ছেন। উপজেলা নির্বাচন অফিসার নিজাম উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, আমার নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর ২০২১ , ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

গোয়ালন্দ মেয়রের হুমকি

স্বতন্ত্র প্রার্থীকে এলাকায় ঢুকতে দেওয়া হবে না

আসন্ন ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল হান্নান মোল্যার নির্বাচনী প্রচারণায় এসে গত শনিবার রাতে গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র মোঃ নজরুল ইসলাম মন্ডল প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে বলেছেন, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আহম্মেদ আলী মাষ্টার আওয়ামী লীগের লোক, তিনি মনোনয়ন প্রত্যাহারের কথা বলে মোবাইল বন্ধ রেখে প্রার্থী হয়েছেন। তাকে এলাকায় ঢুকতে দেওয়া হবে না। তার কোন এজেন্ট দিতে দেওয়া হবে না। নৌকার সাথে যারা মীরজাফরগীরি করেছে, তাদেরকে আমরা গোয়ালন্দে রাখেনি। ইসলামপুরের মানুষ শান্তিপুর্ণ ভাবে ঘুমাবে না, তা নির্বাচনে সিদ্ধান্ত নিবেন। কারসাথে লড়তে এসেছে মাষ্টার এবার আমরা দেখাবো, কিভাবে নির্বাচন হয়, গোয়ালন্দে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সবগুলো ওয়ার্ডে নৌকার বিজয়ী করেছি। আমরা নির্বাচনের দিন ১,২ ও ৩নং ওয়ার্ডে থাকবো। এ ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আহম্মদ আলী মাষ্টার বলেন, গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম মন্ডল নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্গন করেছেন। ভোটারদের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।

আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী বলেন, আসলে তিনি বেড়াতে এসেছিলেন। তার বক্তব্যে দেওয়া ঠিক হয়নি। বহরপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ খলিলুর রহমান খান বলেন, ইলিশকোল চরপাড়াতে নির্বাচনী সভায় নৌকার প্রার্থীর উপস্থিতিতে আসাদুজ্জামান জাহাঙ্গীর নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্গন করে বলেছেন, নৌকার বিপক্ষে যারা ভোট দিবে তাদেরকে কেন্দ্রে যেতে দেওয়া হবে না, কোন এজেন্ট থাকতে দিবো না।

এ ব্যাপারে গত রোববার উপজেলা নির্বাচন অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জঙ্গল ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নৃপেন্দ্রনাথ বিশ্বাস বলেন, আমার কর্মীদের মারধোর, হুমকি-ধামকি দেওয়াসহ ভোটারদের মাঝে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টির পয়তারা চালাচ্ছেন। উপজেলা নির্বাচন অফিসার নিজাম উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, আমার নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।