ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দেয়ার সময় জ্ঞান হারালেন সাক্ষী, ঢামেকে ভর্তি

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দিতে এসে হঠাৎ জ্ঞান হারিয়েছেন সাক্ষী লাল বিবি (৭০)। অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাকে জরুরিভিত্তিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের ৮ রাজাকারের বিরুদ্ধে করা মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের সময় গতকাল চেয়ারম্যান বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে এ ঘটনা ঘটে।

লাল বিবি এই মামলার রাষ্ট্রপক্ষের পঞ্চম সাক্ষী। জবানবন্দি দিয়ে অসুস্থ হয়ে মেঝেতে পড়ে যান। এ সময় তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে।

প্রসিকিউটর ঋষিকেশ সাহা জানান, প্রসিকিউশনের পঞ্চম সাক্ষী মোছা. লাল বিবি তার জবানবন্দি দেন। জবানবন্দি শেষে তিনি কাঠগড়া থেকে নেমে দাঁড়ান। নিয়ম অনুযায়ী আসামিপক্ষ জেরা শুরু করতে গেলে লাল বিবি হঠাৎ পড়ে যান। তখন দ্রুত আমরা কাছে গিয়ে তাকে ট্রাইব্যুনালের সিটে এনে শুইয়ে দেই। মুখে পানি ছিটিয়ে দেখি তিনি জ্ঞান হারিয়েছেন। এরপর ট্রাইব্যুনাল থেকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে তার সিটি স্ক্যান করা হয়েছে। চিকিৎসক তাকে পর্যবেক্ষণে রেখেছেন।

আদালত এ মামলার ২৬ ডিসেম্বর পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ঠিক করে দিয়েছেন। আদালতের আসামিপক্ষে আইনজীবী ছিলেন আবদুস সাত্তার পালোয়ান, গাজী এমএইচ তামিম ও আবুল হাসান।

বুধবার, ২৪ নভেম্বর ২০২১ , ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দেয়ার সময় জ্ঞান হারালেন সাক্ষী, ঢামেকে ভর্তি

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দিতে এসে হঠাৎ জ্ঞান হারিয়েছেন সাক্ষী লাল বিবি (৭০)। অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাকে জরুরিভিত্তিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের ৮ রাজাকারের বিরুদ্ধে করা মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের সময় গতকাল চেয়ারম্যান বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে এ ঘটনা ঘটে।

লাল বিবি এই মামলার রাষ্ট্রপক্ষের পঞ্চম সাক্ষী। জবানবন্দি দিয়ে অসুস্থ হয়ে মেঝেতে পড়ে যান। এ সময় তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে।

প্রসিকিউটর ঋষিকেশ সাহা জানান, প্রসিকিউশনের পঞ্চম সাক্ষী মোছা. লাল বিবি তার জবানবন্দি দেন। জবানবন্দি শেষে তিনি কাঠগড়া থেকে নেমে দাঁড়ান। নিয়ম অনুযায়ী আসামিপক্ষ জেরা শুরু করতে গেলে লাল বিবি হঠাৎ পড়ে যান। তখন দ্রুত আমরা কাছে গিয়ে তাকে ট্রাইব্যুনালের সিটে এনে শুইয়ে দেই। মুখে পানি ছিটিয়ে দেখি তিনি জ্ঞান হারিয়েছেন। এরপর ট্রাইব্যুনাল থেকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে তার সিটি স্ক্যান করা হয়েছে। চিকিৎসক তাকে পর্যবেক্ষণে রেখেছেন।

আদালত এ মামলার ২৬ ডিসেম্বর পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ঠিক করে দিয়েছেন। আদালতের আসামিপক্ষে আইনজীবী ছিলেন আবদুস সাত্তার পালোয়ান, গাজী এমএইচ তামিম ও আবুল হাসান।