টেস্টকে আনুষ্ঠানিক বিদায় মাহমুদুল্লাহর

টি-২০ ও ওয়ানডে খেলে যাবেন

বাংলাদেশে টি-২০ দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ টেস্ট ক্রিকেটকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানালেন। বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করছে বিসিবি।

জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারেতে টেস্ট চলাকালে হঠাৎই সতীর্থদের জানিয়ে দেন, এরপর আর টেস্ট খেলবেন না তিনি। আজ সেটিরই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এসেছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেটি ছিলো তার ৫০তম ও শেষ টেস্ট ম্যাচ।

শেষ ম্যাচ রিয়াদ ১৫০ রানের অনবদ্য এক ইনিংস খেলেন, এবং সেই ম্যাচে ছিল তার টেস্ট ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি। সব মিলিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৩৩.৪৯ গড়ে ২৯১৪ রান করেছেন এবং ৪৩ উইকেটও তার দখলে। এছাড়াও তিনি ছয়টি টেস্ট খেলায় বাংলাদেশের অধিনায়কত্ব করেছেন।

অবসর নিয়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেছেন এমন একটি ফর্মেট ছেড়ে যাওয়া সহজ নয় এবং আমি বিশ্বাস করি এটি আমার টেস্ট ক্যারিয়ার শেষ করার সঠিক সময়। আমি টেস্ট দলে ফিরে আসার সময় আমাকে সমর্থন করার জন্য বিসিবি সভাপতির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই। আমি আমার সতীর্থ এবং সাপোর্ট স্টাফদের ধন্যবাদ জানাই আমাকে সর্বদা উৎসাহিত করার জন্য এবং আমার উপর বিশ্বাস রাখার জন্য। বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট ক্রিকেট খেলা সম্মান ও সৌভাগ্যের বিষয়।

টি-২০ অধিনায়ক আরোও বলেন, যদিও আমি টেস্ট থেকে অবসর নিচ্ছি, তবুও আমি ওয়ানডে এবং টি-২০ খেলা চালিয়ে যাবো। সাদা বলের ক্রিকেটে আমার দেশের হয়ে সেরাটা দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাবো।

বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২১ , ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ ১৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

টেস্টকে আনুষ্ঠানিক বিদায় মাহমুদুল্লাহর

টি-২০ ও ওয়ানডে খেলে যাবেন
image

বাংলাদেশে টি-২০ দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ টেস্ট ক্রিকেটকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানালেন। বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করছে বিসিবি।

জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারেতে টেস্ট চলাকালে হঠাৎই সতীর্থদের জানিয়ে দেন, এরপর আর টেস্ট খেলবেন না তিনি। আজ সেটিরই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এসেছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেটি ছিলো তার ৫০তম ও শেষ টেস্ট ম্যাচ।

শেষ ম্যাচ রিয়াদ ১৫০ রানের অনবদ্য এক ইনিংস খেলেন, এবং সেই ম্যাচে ছিল তার টেস্ট ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি। সব মিলিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৩৩.৪৯ গড়ে ২৯১৪ রান করেছেন এবং ৪৩ উইকেটও তার দখলে। এছাড়াও তিনি ছয়টি টেস্ট খেলায় বাংলাদেশের অধিনায়কত্ব করেছেন।

অবসর নিয়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেছেন এমন একটি ফর্মেট ছেড়ে যাওয়া সহজ নয় এবং আমি বিশ্বাস করি এটি আমার টেস্ট ক্যারিয়ার শেষ করার সঠিক সময়। আমি টেস্ট দলে ফিরে আসার সময় আমাকে সমর্থন করার জন্য বিসিবি সভাপতির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই। আমি আমার সতীর্থ এবং সাপোর্ট স্টাফদের ধন্যবাদ জানাই আমাকে সর্বদা উৎসাহিত করার জন্য এবং আমার উপর বিশ্বাস রাখার জন্য। বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট ক্রিকেট খেলা সম্মান ও সৌভাগ্যের বিষয়।

টি-২০ অধিনায়ক আরোও বলেন, যদিও আমি টেস্ট থেকে অবসর নিচ্ছি, তবুও আমি ওয়ানডে এবং টি-২০ খেলা চালিয়ে যাবো। সাদা বলের ক্রিকেটে আমার দেশের হয়ে সেরাটা দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাবো।