খেলাপি না করার বিশেষ সুবিধা জুন পর্যন্ত চায় বিটিএমএ

করোনা মহামারীতে অর্থনৈতিক কার্যক্রম পুরোপুরি স্বাভাবিক না হওয়ায়, ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা এখনো ভয়াবহ অবস্থা পার করছেন। তাই ঋণ শ্রেণীকরণ (খেলাপি) সুবিধা ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত বাড়াতে বাংলাদেশ ব্যাংককে চিঠি দিয়েছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংঠন বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস এসোসিয়েশন (বিটিএমএ)।

গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস এসোসিয়েশনের (বিটিএমএ) প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আলী খোকন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বরাবর চিঠি পাঠিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আলী খোকন চিঠিতে উল্লেখ করেছেন, ‘চলমান কভিড পরিস্থিতিতে ঋণ বিরূপমানে শ্রেণীকরণ প্রক্রিয়া প্রদেয় ঋণের ২৫ শতাংশ পরিশোধের শর্ত শিথিলপূর্বক ৩০ জুন ২০২০ পর্যন্ত স্থগিত চেয়ে চিঠি দিয়েছেন। কোভিড ১৯ পরিস্থিতিতে বিবেচনা ও তা থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত বিভিন্ন ধরণের স্টিমুলাস প্যাকেসের বাস্তবায়ন ও বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক বিদ্যামান কোভিড মোকাবিলায় সময়োপযোগী আর্থিক ও নীতি সহায়ক নিয়ে এগিয়ে আসার জন্য আমরা আপনাকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক গৃহীত কতিপয় নীতি সহায়তায় মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য নীতি হচ্ছে, বিআরপিডি সার্কুলার নম্বর ৫০ তারিখ ১৪ ডিসেম্বর ২০২১ ছিল যার মাধ্যমে ঋণ-বিনিয়োগ গ্রহীতা কর্তৃক প্রদেয় কিস্তি ২৫ ডিসেম্বর ২০২১ শেষ কর্ম দিবসের পরিশোধের সময় সীমা নির্ধারণ, ব্যর্থতায় ঋণ বিরূপমান শ্রেণীকরণ সুবিধা বাতিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ প্রসঙ্গে আপনাকে অবহিত করছি যে বিদ্যমান কোভিড পরিস্থিতির সঙ্গে ভীতির কারণ হিসেবে আরেকটি ধরণ যোগ হয়েছে তা হলো ওমিক্রন। ইতোমধ্যে ইউরোপ ও আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশে কোভিডের সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে কোন কোন দেশে লকডাউন কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপিত হয়েছে। ফলে উক্ত দেশগুলির অর্থনীতি পাশাপাশি আমাদের ব্যবসা বাণিজ্যের প্রভাব পড়েছে। তাই বিআরপিডি সার্কুলার ৫০ এর শর্ত অনুযায়ী, অনেক শিল্প ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পক্ষে তাদের ঋণের কিস্তি সময়মত পরিশোধ করতে পারছেনা মর্মে সমিতি অবহিত হয়েছে।’

বৃহস্পতিবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ , ২০ পৌষ ১৪২৮ ২৫ জমাদিউল আউয়াল

খেলাপি না করার বিশেষ সুবিধা জুন পর্যন্ত চায় বিটিএমএ

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

করোনা মহামারীতে অর্থনৈতিক কার্যক্রম পুরোপুরি স্বাভাবিক না হওয়ায়, ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা এখনো ভয়াবহ অবস্থা পার করছেন। তাই ঋণ শ্রেণীকরণ (খেলাপি) সুবিধা ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত বাড়াতে বাংলাদেশ ব্যাংককে চিঠি দিয়েছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংঠন বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস এসোসিয়েশন (বিটিএমএ)।

গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস এসোসিয়েশনের (বিটিএমএ) প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আলী খোকন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বরাবর চিঠি পাঠিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আলী খোকন চিঠিতে উল্লেখ করেছেন, ‘চলমান কভিড পরিস্থিতিতে ঋণ বিরূপমানে শ্রেণীকরণ প্রক্রিয়া প্রদেয় ঋণের ২৫ শতাংশ পরিশোধের শর্ত শিথিলপূর্বক ৩০ জুন ২০২০ পর্যন্ত স্থগিত চেয়ে চিঠি দিয়েছেন। কোভিড ১৯ পরিস্থিতিতে বিবেচনা ও তা থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত বিভিন্ন ধরণের স্টিমুলাস প্যাকেসের বাস্তবায়ন ও বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক বিদ্যামান কোভিড মোকাবিলায় সময়োপযোগী আর্থিক ও নীতি সহায়ক নিয়ে এগিয়ে আসার জন্য আমরা আপনাকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক গৃহীত কতিপয় নীতি সহায়তায় মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য নীতি হচ্ছে, বিআরপিডি সার্কুলার নম্বর ৫০ তারিখ ১৪ ডিসেম্বর ২০২১ ছিল যার মাধ্যমে ঋণ-বিনিয়োগ গ্রহীতা কর্তৃক প্রদেয় কিস্তি ২৫ ডিসেম্বর ২০২১ শেষ কর্ম দিবসের পরিশোধের সময় সীমা নির্ধারণ, ব্যর্থতায় ঋণ বিরূপমান শ্রেণীকরণ সুবিধা বাতিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ প্রসঙ্গে আপনাকে অবহিত করছি যে বিদ্যমান কোভিড পরিস্থিতির সঙ্গে ভীতির কারণ হিসেবে আরেকটি ধরণ যোগ হয়েছে তা হলো ওমিক্রন। ইতোমধ্যে ইউরোপ ও আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশে কোভিডের সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে কোন কোন দেশে লকডাউন কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপিত হয়েছে। ফলে উক্ত দেশগুলির অর্থনীতি পাশাপাশি আমাদের ব্যবসা বাণিজ্যের প্রভাব পড়েছে। তাই বিআরপিডি সার্কুলার ৫০ এর শর্ত অনুযায়ী, অনেক শিল্প ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পক্ষে তাদের ঋণের কিস্তি সময়মত পরিশোধ করতে পারছেনা মর্মে সমিতি অবহিত হয়েছে।’