ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের আশঙ্কা

ভূমধ্যসাগরে যুদ্ধ জাহাজ মোতায়েনের নির্দেশ যুক্তরাষ্ট্রের

ভূমধ্যসাগরে যুদ্ধ জাহাজ রাখছে যুক্তরাষ্ট্র ভূমধ্যসাগরে যুদ্ধ জাহাজ রাখছে যুক্তরাষ্ট্র মার্কিন নৌবাহিনীর বিমানবাহী যুদ্ধ জাহাজগুলোকে মধ্যপ্রাচ্যের বদলে ভূমধ্যসাগরে অবস্থানের নির্দেশ দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। ইউক্রেন সীমান্তে হাজার হাজার রুশ সেনা মোতায়েন নিয়ে তৈরি হওয়া আশঙ্কায় এই নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের এক প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানান, ইউএসএস হ্যারি এস ট্রুম্যান এবং এর সঙ্গে থাকা পাঁচটি মার্কিন যুদ্ধজাহাজের সময়সূচি বদলের মাধ্যমে ইউরোপে অবস্থান ধরে রাখার প্রয়োজনীয়তা প্রতিফলিত হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কর্মকর্তা বলেন, ওই অঞ্চলের মার্কিন মিত্র ও সহযোগীদের আশ্বস্ত করতে এটা প্রয়োজন রয়েছে। সম্প্রতি ইউক্রেন সীমান্তে সেনা সমাবেশ বাড়াতে শুরু করে রাশিয়া। সর্বোচ্চ দশ হাজার পর্যন্ত সেনা সমাবেশ ঘটায় মস্কো। এতে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা মিত্ররা আশঙ্কা করে যে, ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে রাশিয়া।

২০১৪ সালে ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপত্যকা দখল করে নেয় রাশিয়া। এরপরেই সেটিকে তাদের সমর্থিত বিদ্রোহী গোষ্ঠীর হাতে তুলে দেয়। সাত বছরেরও বেশি সময় ধরে চলা ওই সংঘাতে ১৪ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে ইউক্রেনের শিল্পাঞ্চল।

ইউক্রেনে নতুন কোনও আগ্রাসন চালানোর কথা অস্বীকার করেছে রাশিয়া। এর বদলে তারা অভিযোগ তুলেছে মস্কো সমর্থিত বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলটি পুনরুদ্ধার করতে শক্তি ব্যবহারের চেষ্টা করছে ইউক্রেন। তবে ওই অভিযোগ অস্বীকার করেছে ইউক্রেন।

মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ ইউএসএস হ্যারি এস ট্রুম্যান এর বহরে রয়েছে পাঁচটি জাহাজ। এর মধ্যে ক্রজার ইউএসএস স্যান জ্যাসিন্টো এবং গাইডেড মিসাইল ডেস্ট্রয়ার ইউএসএস কোলে, ইউএসএস বেইনব্রিজ, ইউএসএস গ্রেভলি এবং ইউএসএস জ্যাসন ডানহাম রয়েছে।

ট্রুম্যান গত ১ ডিসেম্বর ভার্জিনিয়ার নরফোলক বন্দর ছেড়ে যায় এবং ১৪ ডিসেম্বর ভূমধ্যসাগরে প্রবেশ করে। এটির পারস্য অঞ্চলে থাকার কথা ছিল।

বৃহস্পতিবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ , ২০ পৌষ ১৪২৮ ২৫ জমাদিউল আউয়াল

ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের আশঙ্কা

ভূমধ্যসাগরে যুদ্ধ জাহাজ মোতায়েনের নির্দেশ যুক্তরাষ্ট্রের

image

ইউক্রেন রাশিয়া হামলার আশঙ্কায় ভূমধ্যসাগরে মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ মোতায়েন করা হচ্ছে -রয়টার্স

ভূমধ্যসাগরে যুদ্ধ জাহাজ রাখছে যুক্তরাষ্ট্র ভূমধ্যসাগরে যুদ্ধ জাহাজ রাখছে যুক্তরাষ্ট্র মার্কিন নৌবাহিনীর বিমানবাহী যুদ্ধ জাহাজগুলোকে মধ্যপ্রাচ্যের বদলে ভূমধ্যসাগরে অবস্থানের নির্দেশ দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। ইউক্রেন সীমান্তে হাজার হাজার রুশ সেনা মোতায়েন নিয়ে তৈরি হওয়া আশঙ্কায় এই নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের এক প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানান, ইউএসএস হ্যারি এস ট্রুম্যান এবং এর সঙ্গে থাকা পাঁচটি মার্কিন যুদ্ধজাহাজের সময়সূচি বদলের মাধ্যমে ইউরোপে অবস্থান ধরে রাখার প্রয়োজনীয়তা প্রতিফলিত হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কর্মকর্তা বলেন, ওই অঞ্চলের মার্কিন মিত্র ও সহযোগীদের আশ্বস্ত করতে এটা প্রয়োজন রয়েছে। সম্প্রতি ইউক্রেন সীমান্তে সেনা সমাবেশ বাড়াতে শুরু করে রাশিয়া। সর্বোচ্চ দশ হাজার পর্যন্ত সেনা সমাবেশ ঘটায় মস্কো। এতে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা মিত্ররা আশঙ্কা করে যে, ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে রাশিয়া।

২০১৪ সালে ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপত্যকা দখল করে নেয় রাশিয়া। এরপরেই সেটিকে তাদের সমর্থিত বিদ্রোহী গোষ্ঠীর হাতে তুলে দেয়। সাত বছরেরও বেশি সময় ধরে চলা ওই সংঘাতে ১৪ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে ইউক্রেনের শিল্পাঞ্চল।

ইউক্রেনে নতুন কোনও আগ্রাসন চালানোর কথা অস্বীকার করেছে রাশিয়া। এর বদলে তারা অভিযোগ তুলেছে মস্কো সমর্থিত বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলটি পুনরুদ্ধার করতে শক্তি ব্যবহারের চেষ্টা করছে ইউক্রেন। তবে ওই অভিযোগ অস্বীকার করেছে ইউক্রেন।

মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ ইউএসএস হ্যারি এস ট্রুম্যান এর বহরে রয়েছে পাঁচটি জাহাজ। এর মধ্যে ক্রজার ইউএসএস স্যান জ্যাসিন্টো এবং গাইডেড মিসাইল ডেস্ট্রয়ার ইউএসএস কোলে, ইউএসএস বেইনব্রিজ, ইউএসএস গ্রেভলি এবং ইউএসএস জ্যাসন ডানহাম রয়েছে।

ট্রুম্যান গত ১ ডিসেম্বর ভার্জিনিয়ার নরফোলক বন্দর ছেড়ে যায় এবং ১৪ ডিসেম্বর ভূমধ্যসাগরে প্রবেশ করে। এটির পারস্য অঞ্চলে থাকার কথা ছিল।