চ্যানেল আইয়ের বছরের প্রথম টেলিফিল্ম ‘আমি কিন্তু শিল্পী’

চ্যানেল আইয়ের মাঝ দুপুরের টেলিফিল্ম প্রচার হবে ৫ জানুয়ারি, বিকেল ৩টা ০৫ মিটিটে। বছরের প্রথম টেলিফিল্ম হিসেবে প্রচার হবে ‘আমি কিন্তু শিল্পী’। এটি রচনা করেছেন রাজীব মণি দাস। সমাজ ও কাছের মানুষগুলো যখন কোনো মেধাবী ব্যক্তিকে সম্মান না দেখিয়ে উপহাস করে, তখন সে ব্যক্তিটির মানসিকতা স্বাভাবিকভাবেই ভেঙ্গে যায়। তেমনই সঙ্গীত শিল্পী আনসার আলী কষ্ট পেয়ে নিজের ঢোল নিজে পেটাতে গিয়ে সৃষ্টি হয় নানান সমস্যা।

টেলিফিল্মটিতে আরো অভিনয় করেছেন- আ.খ.ম. হাসান, মৌসুমী হামিদ, মাসুম আজিজ, নিপা খান, খলিলুর রহমান কাদেরী, আশরাফুল আলম সোহাগ, নিথর মাহবুব, এ.বি. রশিদ, মাসুদ আহমেদ, সাদমান রানা, ক্লিনটন রোজারিও প্রমুখ।

নাট্যকার রাজীব মণি দাস বলেন, ‘বর্তমানে যেখানে নাটক থেকে বাবা-মা, ভাই-বোন, দাদা-দাদী ও অন্যান্য চরিত্রগুলো বাজেট স্বল্পতার কারণ দেখিয়ে ছাঁটাই করা হচ্ছে; সেখানে আমার গল্পগুলোতে এ ধরনের চরিত্রগুলো বিদ্যমান থাকে।

গল্প ও নির্মাণ সম্পর্কে নির্মাতা মীর সাখাওয়াত বলেন, ‘গল্পটি খুবই চমৎকার, কমেডি ধাঁচের। খুব যতœ নিয়ে এটি নির্মাণ করা হয়েছে। এমন ভালো গল্প পেলে কাজ করতেও ভালো লাগে। পরিবার-সমাজকেন্দ্রিক গল্পনির্ভর টেলিফিল্মটি সব শ্রেণীর দর্শকের ভালো লাগবে বলে আমি আশাবাদী।’

মঙ্গলবার, ০৪ জানুয়ারী ২০২২ , ২০ পৌষ ১৪২৮ ৩০ জমাদিউল আউয়াল

চ্যানেল আইয়ের বছরের প্রথম টেলিফিল্ম ‘আমি কিন্তু শিল্পী’

বিনোদন প্রতিবেদক

image

চ্যানেল আইয়ের মাঝ দুপুরের টেলিফিল্ম প্রচার হবে ৫ জানুয়ারি, বিকেল ৩টা ০৫ মিটিটে। বছরের প্রথম টেলিফিল্ম হিসেবে প্রচার হবে ‘আমি কিন্তু শিল্পী’। এটি রচনা করেছেন রাজীব মণি দাস। সমাজ ও কাছের মানুষগুলো যখন কোনো মেধাবী ব্যক্তিকে সম্মান না দেখিয়ে উপহাস করে, তখন সে ব্যক্তিটির মানসিকতা স্বাভাবিকভাবেই ভেঙ্গে যায়। তেমনই সঙ্গীত শিল্পী আনসার আলী কষ্ট পেয়ে নিজের ঢোল নিজে পেটাতে গিয়ে সৃষ্টি হয় নানান সমস্যা।

টেলিফিল্মটিতে আরো অভিনয় করেছেন- আ.খ.ম. হাসান, মৌসুমী হামিদ, মাসুম আজিজ, নিপা খান, খলিলুর রহমান কাদেরী, আশরাফুল আলম সোহাগ, নিথর মাহবুব, এ.বি. রশিদ, মাসুদ আহমেদ, সাদমান রানা, ক্লিনটন রোজারিও প্রমুখ।

নাট্যকার রাজীব মণি দাস বলেন, ‘বর্তমানে যেখানে নাটক থেকে বাবা-মা, ভাই-বোন, দাদা-দাদী ও অন্যান্য চরিত্রগুলো বাজেট স্বল্পতার কারণ দেখিয়ে ছাঁটাই করা হচ্ছে; সেখানে আমার গল্পগুলোতে এ ধরনের চরিত্রগুলো বিদ্যমান থাকে।

গল্প ও নির্মাণ সম্পর্কে নির্মাতা মীর সাখাওয়াত বলেন, ‘গল্পটি খুবই চমৎকার, কমেডি ধাঁচের। খুব যতœ নিয়ে এটি নির্মাণ করা হয়েছে। এমন ভালো গল্প পেলে কাজ করতেও ভালো লাগে। পরিবার-সমাজকেন্দ্রিক গল্পনির্ভর টেলিফিল্মটি সব শ্রেণীর দর্শকের ভালো লাগবে বলে আমি আশাবাদী।’