পঞ্চম ধাপে ৭০৮ ইউপিতে ভোট আজ, নানা শঙ্কা

ভোটের আগেই বিভিন্ন স্থানে সংঘাত-সংঘর্ষ

পঞ্চম ধাপে ৭০৮টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) ভোট আজ। গত চার ধাপে সহিংসতা ও হতাহতের ঘটনায় এবারও ‘শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু নির্বাচন’ অনুষ্ঠান নিয়ে শঙ্কা রয়েছে, এমনটাই মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

বিএনপি প্রতীক নিয়ে ইউপি নির্বাচনে আসেনি। ফলে অধিকাংশ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ভোটের লড়াই হচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নিজেদের মধ্যেই। এরপরও সহিংসতা ঠেকানো যায়নি। চার ধাপে বিভিন্ন এলাকায় সহিংসতায় ভোটের আগে, ভোটের দিন ও পরে অর্ধশতাধিক লোকের প্রাণহানির তথ্য গণমাধ্যমে এসেছে।

পঞ্চম ধাপে আওয়ামী লীগের ৪৮ প্রার্থী ইতোমধ্যে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। অবশিষ্ট অধিকাংশ ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বী দলের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থীরা।

এবারও ভোটের আগেও বিভিন্ন স্থানে বাড়ি-ঘর, নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুর, সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। প্রচারণায় বাধা, ভয়ভীতি, হুমকির পাল্টাপাল্টি অভিযোগও আছে। ফলে ভোট ঘিরে তৈরি হয়েছে শঙ্কা। ক্ষমতাসীনদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে, বলছে সচেতন মহল।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সূত্রে জানা গেছে, আজ ভোট হবে দেশের ৪৮ জেলার ৯৫টি উপজেলায়। ৭০৮টি ইউপেত কেন্দ্র সংখ্যা সাত হাজার ১৩৭, ভোটকক্ষ প্রায় ৪০ হাজার। ভোটে অনিয়ম ও সহিংসতার আশঙ্কায় ১৬টি জেলাকে ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনা করা হচ্ছে।

এই ধাপে মোট প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ৩৬ হাজার ৪৫৭ জন, এর মধ্যে চেয়ারম্যান তিন হাজার ২৭৪, সংরক্ষিত সদস্য সাত হাজার ৯৫০ এবং সাধারণ সদস্য ৩৯ হাজার ৩৯১। এই ধাপে মোট ভোটার সংখ্যা এক কোটি ৪২ লাখ ২০ হাজার ১৯৫ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার ৬৮ লাখ ৩৬ হাজার ৩১ জন ও পুরুষ ৭০ লাখ ৬০ হাজার ১৪০ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার ২১ জন।

ইসির যুগ্মসচিব ও পরিচালক (জনসংযোগ) এসএম আসাদুজ্জামান জানান, ভোটে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ জেলার বিভিন্ন ইউপিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

বরাবরের মতো আজও সকাল ৮টায় শুরু হয়ে বিরতিহীন ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এর মধ্যে ৪০টি ইউপিতে ভোট হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)। ৪৮ জন চেয়ারম্যান ছাড়াও এই ধাপে সাধারণ সদস্য (মেম্বার) পদে ১১২ জন এবং সংরক্ষিত সদস্য (মহিলা মেম্বার) পদে ৩৩ জন প্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

এবার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভের রেকর্ড করেছে ‘নৌকা’। ইসি সূত্রে জানা যায়, পাঁচ ধাপে আওয়ামী লীগের প্রায় সাড়ে তিনশ’ প্রার্থী বিনাভোটে চেয়ারম্যান হয়েছেন। তবে দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের জয়লাভের হারও ধাপে ধাপে বাড়ছে।

এদিকে ‘ধানের শীষ’ প্রতীক না থাকায় বেশির ভাগ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে বিএনপির প্রার্থী নেই। তবে কিছু ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রতীকে লড়ছেন দলের তৃণমূল নেতারা।

বুধবার, ০৫ জানুয়ারী ২০২২ , ২১ পৌষ ১৪২৮ ১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

পঞ্চম ধাপে ৭০৮ ইউপিতে ভোট আজ, নানা শঙ্কা

ভোটের আগেই বিভিন্ন স্থানে সংঘাত-সংঘর্ষ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

পঞ্চম ধাপে ৭০৮টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) ভোট আজ। গত চার ধাপে সহিংসতা ও হতাহতের ঘটনায় এবারও ‘শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু নির্বাচন’ অনুষ্ঠান নিয়ে শঙ্কা রয়েছে, এমনটাই মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

বিএনপি প্রতীক নিয়ে ইউপি নির্বাচনে আসেনি। ফলে অধিকাংশ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ভোটের লড়াই হচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নিজেদের মধ্যেই। এরপরও সহিংসতা ঠেকানো যায়নি। চার ধাপে বিভিন্ন এলাকায় সহিংসতায় ভোটের আগে, ভোটের দিন ও পরে অর্ধশতাধিক লোকের প্রাণহানির তথ্য গণমাধ্যমে এসেছে।

পঞ্চম ধাপে আওয়ামী লীগের ৪৮ প্রার্থী ইতোমধ্যে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। অবশিষ্ট অধিকাংশ ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বী দলের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থীরা।

এবারও ভোটের আগেও বিভিন্ন স্থানে বাড়ি-ঘর, নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুর, সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। প্রচারণায় বাধা, ভয়ভীতি, হুমকির পাল্টাপাল্টি অভিযোগও আছে। ফলে ভোট ঘিরে তৈরি হয়েছে শঙ্কা। ক্ষমতাসীনদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে, বলছে সচেতন মহল।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সূত্রে জানা গেছে, আজ ভোট হবে দেশের ৪৮ জেলার ৯৫টি উপজেলায়। ৭০৮টি ইউপেত কেন্দ্র সংখ্যা সাত হাজার ১৩৭, ভোটকক্ষ প্রায় ৪০ হাজার। ভোটে অনিয়ম ও সহিংসতার আশঙ্কায় ১৬টি জেলাকে ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনা করা হচ্ছে।

এই ধাপে মোট প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ৩৬ হাজার ৪৫৭ জন, এর মধ্যে চেয়ারম্যান তিন হাজার ২৭৪, সংরক্ষিত সদস্য সাত হাজার ৯৫০ এবং সাধারণ সদস্য ৩৯ হাজার ৩৯১। এই ধাপে মোট ভোটার সংখ্যা এক কোটি ৪২ লাখ ২০ হাজার ১৯৫ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার ৬৮ লাখ ৩৬ হাজার ৩১ জন ও পুরুষ ৭০ লাখ ৬০ হাজার ১৪০ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার ২১ জন।

ইসির যুগ্মসচিব ও পরিচালক (জনসংযোগ) এসএম আসাদুজ্জামান জানান, ভোটে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ জেলার বিভিন্ন ইউপিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

বরাবরের মতো আজও সকাল ৮টায় শুরু হয়ে বিরতিহীন ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এর মধ্যে ৪০টি ইউপিতে ভোট হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)। ৪৮ জন চেয়ারম্যান ছাড়াও এই ধাপে সাধারণ সদস্য (মেম্বার) পদে ১১২ জন এবং সংরক্ষিত সদস্য (মহিলা মেম্বার) পদে ৩৩ জন প্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

এবার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভের রেকর্ড করেছে ‘নৌকা’। ইসি সূত্রে জানা যায়, পাঁচ ধাপে আওয়ামী লীগের প্রায় সাড়ে তিনশ’ প্রার্থী বিনাভোটে চেয়ারম্যান হয়েছেন। তবে দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের জয়লাভের হারও ধাপে ধাপে বাড়ছে।

এদিকে ‘ধানের শীষ’ প্রতীক না থাকায় বেশির ভাগ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে বিএনপির প্রার্থী নেই। তবে কিছু ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রতীকে লড়ছেন দলের তৃণমূল নেতারা।